ফুজিৎসু লাইফবুক ই৭৩৩ : দামও যেমন গতিও তেমন

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ফুজিৎসুর ই সিরিজের ল্যাপটপগুলো প্রিমিয়াম মানের। ব্যবসায়িক বা পেশাদার কাজে ব্যবহারের উপযোগী। এ সিরিজের চমৎকার একটি মডেল লাইফবুক ই৭৩৩। এটির বিভিন্ন আকারের ডিসপ্লের মডেল রয়েছে। এ রিভিউতে ১৩.৩ ইঞ্চি মডেলের নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

ডিজাইন
ফুজিৎসুর বেশিরভাগ নোটবুকের মতো এটিও দেখতে খুবই চমৎকার ও স্টাইলিশ। ধাতব রঙের ম্যাগনেশিয়াম অ্যালয়ের বডি যেমন মজবুত, তেমন ঝকঝকে।

কিবোর্ডের নিচে চমৎকার লালরঙের লাইনিং রয়েছে। এ ছাড়া এর ওজন ৩.৭৫ পাউন্ড, পুরুত্ব ১.০৬ ইঞ্চি।

fujitsu_techshohor

ডিসপ্লে
নোটবুকটির এলইডি স্ক্রিনের আকার ১৩.৩ ইঞ্চি, স্ক্রিন রেজুল্যুশন ১৩৬৬*৭৬৮। স্ক্রিনের ওপর প্রতিফলনরোধক প্রলেপ রয়েছে। তারপরও হাইএন্ড একটি ল্যাপটপের তুলনায় স্ক্রিনের মান অনাকর্ষণীয় বলতে হবে। একে তো রেজুল্যুশন কিছুটা কম, তারওপর ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল তেমন ভালো নয়।

কানেক্টিভিটি
কানেক্টিভিটির দিক থেকে এতে ফিচারের অভাব নেই। নেটওয়ার্কের জন্য আছে ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ও ইন্টারনেট। ইনপুট পোর্টের মধ্যে আছে ভিজিএ, তিনটি ইউএসবি ৩.০ পোর্ট, এসডি কার্ড স্লট ও ৩.৫ মিলিমিটার অডিও পোর্ট। এ ছাড়া ডিভিডি রাইটার রয়েছে। নিরাপত্তার জন্য আছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার। স্ক্রিনের ওপর ওয়েবক্যাম আছে।

কনফিগারেশন
লাইফবুকটিতে রয়েছে ইন্টেল কোর আই৫ ৩.২ গিগাহার্জ প্রসেসর, ৪ গিগবাইট র‍্যাম ও ইন্টেল বিল্ট-ইন ৪০০০ গ্রাফিক্স। হার্ডডিস্ক ৫০০ গিগাবাইট।

চিকলেট স্টাইলের কিবোর্ডের প্রতিটি কি পৃথক। তাই দ্রুত ও স্বাচ্ছন্দ্যে টাইপ করা যাবে। টাচপ্যাডের ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য। উইন্ডোজের গেশ্চারও সহজে ব্যবহার করতে পারবেন। এ ছাড়া ল্যাপটপটিতে স্টেরিও স্পিকার রয়েছে, যা চলনসই সাউন্ড দেবে।

পারফরম্যান্স
পারফরম্যান্স ও গতির দিক থেকে একে বাজার সেরা বলা যেতে পারে। উইন্ডোজ ৭ বা ৮ পুরোপুরি মসৃণ গতিতে চলবে। একই সঙ্গে হার্ডওয়্যারজনিত কারণে প্রোগ্রাম ক্র্যাশ  করার সম্ভাবনা খুব কম।

বিল্ট-ইন গ্রাফিক্সের ফলে উচ্চমানের গেইম খেলা না গেলেও ব্যবসায়িক বা পেশাদার কাজে ব্যবহারে কোনো অসুবিধা হবে না। ফটোশপ এডিটিং ও ছোটখাটো ভিডিও এডিটিংও করা যাবে।

ব্যাটারি
এর লিথিয়াম আয়নের ব্যাটারি গড়ে সাড়ে পাঁচঘণ্টার মতো ব্যাকআপ দেবে।

দেশের বাজারে নোটবুকটির দাম ১ লাখ ২৬ হাজার টাকা।

এক নজরে ভালো
– দেখতে চমৎকার ও স্টাইলিশ
– ভালো পারফরম্যান্স, সহজে বহনযোগ্য

এক নজরে খারাপ
– দুর্বল ডিসপ্লে
– দাম বেশি, এসএসডি নেই

Related posts

*

*

Top