নোকিয়া লুমিয়া ১৫২০ : উইন্ডোজের সেরা পারফরম্যান্স

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি নোট থ্রি, এলজির জি প্যাড ৮.৩, সনি এক্সপেরিয়া জেড- এর সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী এখন নোকিয়ার লুমিয়া ১৫২০। উইন্ডোজচালিত এ ফোনটি অন্যসব বড় ব্র্যান্ডের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের সঙ্গে ভালোই পাল্লা দিচ্ছে।

ডিজাইন
লুমিয়া সিরিজের সিগনেচার ডিজাইন রয়েছে এতে। ফ্ল্যাট ও স্টাইলিশ গড়নের পাশাপাশি রয়েছে চারটি কালার অপশন- হলুদ, সাদা, কালো ও লাল।

nokia lumia 1520_techshohor

আকারে কিছুটা বড় এ স্মার্টফোনটি ০.৩৪ ইঞ্চি স্লিম ও ওজন মাত্র ২০৯ গ্রাম। তবে যেহেতু আকারে অনেক বড়, তাই সবসময় হাতে বা পকেটে বহন করতে কিছুটা অসুবিধা হবে।

ডিসপ্লে
এর ডিসপ্লের আকার ৬ ইঞ্চি, রেজুল্যুশন ১০৮০*১৯২০ পিক্সেল। এক কথায়, প্রথম দেখাতে মুগ্ধ হওয়ার মতো ডিসপ্লে। চমৎকার ডিসপ্লে কোয়ালিটির পাশাপাশি আছে নোকিয়ার ক্লিয়ারব্ল্যাক ডিসপ্লে টেকনোলজি। এ ছাড়া স্ক্রিনের ওপর গরিলা গ্লাসের প্রলেপ রয়েছে।

কানেক্টিভিটি
অ্যান্ড্রয়েডের সেরা ডিভাইসগুলোর চেয়ে কানেক্টিভিটির কোনো দিক থেকেই পিছিয়ে নেই এটি। টুজি, থ্রিজি ও ফোরজি’র (এলটিই) পাশাপাশি আছে ডুয়াল ব্যান্ড ওয়াই-ফাই, এটুডিপি ব্লুটুথ। দ্রুত ফাইল শেয়ারিং এর জন্য এনএফসি আছে। সেন্সরের মধ্যে আছে এ-জিপিএস, অ্যাক্সেলেরোমিটার, জাইরো, প্রক্সিমিটি ও কম্পাস।

ক্যামেরা
অ্যান্ড্রয়েডে যেমনও ক্যামেরা ফোনের দিক দিয়ে এগিয়ে আছে সনি, উইন্ডোজ ফোনে তেমনি নোকিয়া। কিংবা অনেক দিক দিয়ে সনির চেয়েও ভালো ক্যামেরা বলা যেতে পারে।

লুমিয়া ১৫২০ এ ব্যবহার করা হয়েছে কার্ল জিস লেন্সের ২০ মেগাপিক্সেল সেন্সর। সঙ্গে আছে অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন, অটোফোকাস, ডুয়াল-এলইডি ফ্ল্যাশ, পিওরভিউ, ডুয়াল ক্যাপচার, প্যানারোলা ইত্যাদি ফিচার। ভিডিও চ্যাটের জন্য সামনে ১.২ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা রয়েছে।

কনফিগারেশন
ফোনটির হার্ডওয়্যারের মধ্যে আছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮০০ চিপসেট ও কোয়াড কোর ক্রাইট ৪০০ প্রসেসর। এতে রয়েছে অ্যাড্রেনো ৩৩০ গ্রাফিক্স প্রসেসর, ২ জিবি র্যা ম। ইন্টারনাল মেমরি ১৬ জিবি ও ৩২ জিবি যা বাড়ানো যাবে ৬৪ জিবি পর্যন্ত।

পারফরম্যান্স
মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ফোন ৮ ব্ল্যাক এডিশন এতে ব্যবহার করা হয়েছে। আর উইন্ডোজ ফোনের সবচেয়ে সেরা পারফরম্যান্স পাওয়া যাবে এ ডিভাইসে। শক্তিশালী হার্ডওয়্যার, সাথে আকর্ষণীয় ডিসপ্লে ও ক্যামেরা মিলে একে গ্যালাক্সি নোট থ্রি ও সনি এক্সপেরিয়া জেড এর প্রতিদ্বন্দ্বী করে তুলেছে।

উইন্ডোজ ফোনের যে কোনো ফিচার তো চমত্কারভাবে হাই কোয়ালিটিতে উপভোগ করতে পারবেন, সাথে বড় স্ক্রিনে এইচডি মুভি দেখে বাড়তি আনন্দ পাওয়া যাবে। এ ছাড়া এতে ৭ জিবি ওয়ানড্রাইভ স্টোরেজ ফ্রি পাবেন।

ব্যাটারি
এর ব্যাটারি ৩৪০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার। স্ট্যান্ডবাই টাইপ ৭৬৮ ঘণ্টা ও টানা মিউজিক প্লে ক্রবে ১২৪ ঘণ্টা

বাংলাদশের বাজারে এর দাম ৫১ হাজার টাকা।

এক নজরে ভালো
– চমৎকার ডিসপ্লে ও ডিজাইন
– শক্তিশালী ক্যামেরা, সবরকম কানেক্টিভিটি ফিচার
– উইন্ডোজের সেরা পারফরম্যান্স

এক নজরে খারাপ
– আকারে অনেক বড়
– উইন্ডোজভিত্তিক হওয়ায় অ্যান্ড্রয়েডের মতো কাস্টোমাইজড অনেক সুবিধা নেই

Related posts

*

*

Top