এলজি জি প্যাড৮.৩ : সিম ছাড়াও চলনসই পারফরম্যান্স

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : স্মার্ট ডিভাইসের রাজা স্যামসাংয়ের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে প্রতিদ্বন্দ্বিতার চেষ্টা করছে আরেক কোরিয়ান কোম্পানি এলজি। কিন্তু কিছুতেই যেন প্রতিদ্বন্দ্বীর ক্রেতা টানতে পারছে না এলজি।

এ কারণে বিকল্প পথ ধরেছে এলজি। সম্প্রতি কোম্পানিটি কম দামে আকর্ষণীয় ফিচারের বেশ কিছু ডিভাইস এনেছে। এর মধ্যে অন্যতম জি প্যাড ৮.৩। এটি বাজারে গ্যালাক্সি ট্যাব সিরিজের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে।

ডিজাইন
এলজির বেশিরভাগ স্মার্ট ডিভাইসের মতো এটিও খুবই স্লিম। গ্লাস, অ্যালুমিনিয়াম ও প্লাস্টিকের মিশ্রণে তৈরি। বডি বেশ মজবুত ও ফিনিশিং মসৃণ। ওজন মাত্র ৩৪০ গ্রাম। সুবিধাজনক আকারের ফলে খুব সহজে বড় পকেট বা ব্যাগের পকেটে এঁটে যাবে।

LG_G_Pad_8.3_techshohor

ডিসপ্লে
ট্যাবটির ডিসপ্লের আকার ৮.৩ ইঞ্চি। আইপিএস প্যানেল এলসিডি ডিসপ্লের রেজুল্যুশন ১২০০*১৯০০ পিক্সেল। সুরক্ষার জন্য ওপরে গরিলা গ্লাসের প্রলেপ রয়েছে। ডিসপ্লেতে ছবি একেবারে ঝকঝকে ও পরিস্কার আসবে। চমৎকার রেজুল্যুশনে মুভি দেখে বাড়তি মজা পাবেন।

কানেক্টিভিটি
এতে সিম সুবিধা নেই। ইন্টারনেট কানেক্টিভিটির জন্য আছে ওয়াই-ফাই ও ওয়াই-ফাই হটস্পট, ওয়াইফাই ডিরেক্ট। ব্লুটুথ, ইনফ্রারেড ও মাইক্রোইউএসবি ২.০ রয়েছে। সেন্সরের মধ্যে আছে অ্যাক্সেলেরোমিটার, জাইরো ও কম্পাস।

ক্যামেরা
জি প্যাডের প্রধান ক্যামেরা পাঁচ মেগাপিক্সেল। অটোফোকাস, জিওট্যাগিং, টাচ ফোকাস, প্যানারোমা ইত্যাদি ফিচার রয়েছে এতে। সেকেন্ডারি ক্যামেরা ১.৩ মেগাপিক্সেল। মূল ক্যামেরা দিয়ে ফুল এইচডি কোয়ালিটিতে ভিডিও করা যাবে।

কনফিগারেশন
কোয়ালকমের শক্তিশালী স্ন্যাপড্রাগন ৬০০ চিপসেট রয়েছে এতে। প্রসেসর কোয়াড ক্রাইট ৩০০, ক্লকরেট ১.৫ গিগাহার্জ। গ্রাফিক্স প্রসেসর অ্যাড্রেনো ৩২০ ও র্যা্ম ২ জিবি। ইন্টারনাল মেমরি ১৬ জিবি, যা ৬৪ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

পারফরম্যান্স
অ্যান্ড্রয়েড জেলি বিন ৪.২.২ রয়েছে এতে। জেলি বিনের পরবর্তী এডিশন কিটক্যাটে আপডেট করতে পারবেন। এর প্রসেসর যদিও কিছুটা পুরনো, কিন্তু তাতে অ্যান্ড্রয়েডের পুরো মজা উপভোগ করতে কোনো সমস্যা হবে না।

এলজির জি সিরিজের প্রতিটি ডিভাইসই শক্তিশালী পারফরম্যান্স দিয়ে ক্রেতাদের সন্তুষ্ট করেছে, এটিও করবে। সনির এক্সপেরিয়া জেড বা স্যামসাং গ্যালাক্সি ট্যাবের বিকল্প হিসেবে একে স্বচ্ছন্দে ব্যবহার করতে পারেন। গেইম, মাল্টিমিডিয়া ফাইলসহ যে কোনো অ্যাপ সর্বোচ্চ কোয়ালিটিতে উপভোগ করা যাবে।

ব্যাটারি
এতে নন-রিমুভেবল ৪৬০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার-আওয়ারের ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। সাধারণভাবে যার টকটাইম ব্যাকআপ ১৮ ঘণ্টা।

এক নজরে ভালো
– আকর্ষণীয় ডিজাইন, চমৎকার ডিসপ্লে
– সন্তোষজনক পারফরম্যান্স ও ফিচার

এক নজরে খারাপ
– সিম নেই
– গ্যালাক্সি সিরিজের মতো নিজস্ব কোনো বিশেষ ফিচার নেই

Related posts

*

*

Top