শাওমি রেডমি৩ প্রো : ডিসপ্লের ঘাটতি পোষাবে পারফরমেন্স ও ব্যাটারিতে

রিয়াদ আরিফিন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অপেক্ষাকৃত কম দামে উন্নত কনফিগারেশনের স্মার্টফোন বাজারজাতকরণে শাওমির জুড়ি মেলা ভার। চীনা এ কোম্পানি এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি বাজারে এনেছে শাওমি রেডমি ৩ প্রো। এটি মূলত রেডমি৩-এর বর্ধিত সংস্করণ।

ফিংগারপ্রিন্ট সেন্সরের এ ফোনের ডিসপ্লে ও ডিজাইনের তেমন নতুনত্ব না থাকলেও পারফরমেন্সে বেশ ভালো। ব্যাটারি সেবাও অতুলনীয় বলে ব্যবহারকারীদের মন্তব্য। এই ১৪ হাজার থেকে সাড়ে ১৪ হাজার টাকায় মাঝারি বাজেটের ফোনটি দেশের বাজারেও বিক্রি শুরু হয়েছে।

একনজরে রেডমি৩ প্রো
পাঁচ ইঞ্চি আইপিএস ডিসপ্লে
ফোরজিসহ হাইব্রিড ডুয়াল সিম
স্নাপড্রাগন ৬১৬ চিপসেট
অ্যান্ড্রিনো ৩০৬ জিপিইউ
৩ গিগাবাইট র‍্যাম
৩২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ
পেছনে ১৩ মেগাপিক্সেল ও সামনে ৫ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা
৪,১০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের নন-রিমুভেবল ব্যাটারি
ফিংগারপ্রিন্ট রিডার সেন্সর

xiami-redmi-3-techshohor-1

মোড়ক খুললে যা মিলবে
হ্যান্ডসেট
চার্জিং এডাপটর।
একটি ইউএসবি ডেটা ক্যাবল
ইউজার ম্যানুয়াল ও
ওয়ারেন্টি কার্ড

ডিজাইনে নেই নতুনত্ব
রেডমি সিরিজের আগের ফোন রেডমি৩-এ চেয়ে এটির ডিজাইনে কোনো পরিবর্তন আনা হয়নি। অ্যালুমিনিয়াম মেটাল ডিজাইনের ফোনটি দেখতে অবশ্য প্রিমিয়াম লাগবে। তবে মেটালিক ডিজাইনের কারণে দীর্ঘক্ষণ ব্যবহারে কিছুটা গরম হয়ে যায়। মেটালিক বডির কারণে কিছুটা অস্বস্তিও হতে পারে।

পাঁচ ইঞ্চির এ ডিভাইস হালকা গড়নের হওয়ায় অনায়সে এক হাতে ব্যবহার করা যায়। এটির ফ্রন্ট প্যানেলের উপরের দিকে রয়েছে স্পিকার, ফ্রন্ট ফেসিং ক্যামেরা ও প্রক্সিমিটি সেন্সর।

ডিসপ্লের একেবারে নিচে রয়েছে তিনটি টাচ ক্যাপাসিটিভ বাটন। এতে কোনো হার্ডওয়্যার বাটন ব্যবহার করা হয় নি।

ফোনের ডান পাশে রিমুভএবল সিম ট্রেতে একই সঙ্গে মাইক্রো ও ন্যানো সিম অথবা মাইক্রো সিম ও এসডি কার্ড ব্যবহার করা যাবে। অর্থাৎ একই সাথে ডুয়াল সিম ও এক্সটার্নাল মেমরি কার্ড ব্যবহার করা যাবে না ।

একেবারে ব্যাক প্যানেলে থাকছে ফিংগারপ্রিন্ট রিডার সেন্সর।

xiami-redmi-3-techshohor (3)

ডিসপ্লে আহামরি নয়
৫ ইঞ্চির ৭২০ পিক্সেল আইপিএস ডিসপ্লের পিপিআই মাত্র ২৯৪। তবে দামের বিবেচনায় ডিসপ্লে কোয়ালিটি মোটামুটি মানের।

কাস্টমাইজড ইউজার ইন্টারফেস
শাওমির নিজস্ব কাস্টমাইজড অপারেটিং সিস্টেম মিইউআই সেভেনে চলবে এ ফোন। এটি মূলত অ্যান্ড্রয়েড ৫.১ ললিপপের একটি কাস্টমাইজড ভার্সন। এ কারণে ললিপপের পাশাপাশি নতুন ফিচার মিলবে।

xiami-redmi-3-techshohor (5)

পারফরমেন্সে এগিয়ে
দুই জিবি র‍্যামের কারণে রেডমি ৩ কিছুটা ধীরগতির ছিল। এ সমস্যা সমাধানে এ ফোনে ব্যবহার করা হয়েছে তিন জিবি র‍্যাম। পাশাপাশি কোয়ালকমের স্নাপড্রাগন ৬১৬ চিপসেট রয়েছে যা আগের সংস্করণের চেয়ে উন্নত।

অক্টাকোর প্রসেসরের এ ডিভাইসে কর্টেক্স এ৫৩ আর্কিটেক্সারের ১.৫ গিগারহার্জের চারটি ও ১.২ গিগাহার্জের চারটি প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। গ্রাফিক্স প্রসেসিংয়ের জন্য রয়েছে অ্যান্ড্রিনো ৪০৫ জিপিউ।

প্রসেসর ও র‍্যামের সমন্বয় ভালো হওয়ায় ফোনটি খুব ভালো পারফরমেন্স দিতে সক্ষম। একই কারণে গেইমিং অভিজ্ঞতাও হবে ঝামেলাবিহীন।

অন্যদিকে ফিঙ্গারপ্রিন্ট রিডার সেন্সরের কারণে বিভিন্ন নিরাপত্তা ফিচারে দৃশ্যমান সমস্যা পাওয়া যায়নি।

xiami-redmi-3-techshohor (1)

মাল্টিমিডিয়াতে ভালো
সঙ্গীতপ্রেমীদের কাছে শাওমি অনেক আগে থেকেই আস্থার ব্র্যান্ড। এটিতেও সে ধারাবাহিকতা বজায় আছে। অডিও আউটপুট কোয়ালিটি বেশ ভালো। কোনো ধরনের ল্যাগ ছাড়াই ফুল এইচডি ভিডিও প্লেব্যাক হয়।

ক্যামেরাতে মাঝারি
পেছনে ১৩ মেগাপিক্সেল ও সামনে পাঁচ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা দিয়ে বেশ ভালো ছবি তোলা যাবে। তবে মৃদু আলোতে ছবির মান কিছুটা ঘোলাটে। এ ক্যামেরা দিয়ে ১০৮০ পিক্সেল রেজুলেশনের ফুল এইচডি ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন।

xiami-redmi-3-techshohor (2)

ব্যাটারিতে অসাধারন
৪,১০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের নন-রিমুভএবল লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারির কারণে ব্যাকআপ অসাধারণ। একবার ফুল চার্জে টানা দুই বা তিন দিনও চলবে। ফার্স্ট চার্জিং সুবিধা থাকায় অল্প সময়েই ফুল চার্জ হবে।

কানেক্টিভিটিতে পরিপূর্ণ
ফোনটি সেভেন ব্যান্ডের ফোরজি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট করে। এ ছাড়া ওয়াই-ফাই,ওয়াই-ফাই ডিরেক্ট, জিপিএস, এফএম রেডিও, ইউএসবি ২.০ প্রভৃতি কানেক্টিভিটি সুবিধা রয়েছে।

এক নজরে ভালো
অসাধারন বিল্ড কোয়ালিটি
অনেক ভালো ব্যাটারি লাইফ
স্মুথ ইউজার ইন্টারফেস
ফিংগারপ্রিন্ট রিডার সেন্সর

এক নজরে খারাপ
ডিসপ্লের রেজুলেশন কম
একই সঙ্গে ডুয়াল সিম ও মেমরি কার্ড ব্যবহার করা যায় না
এনএফসি সুবিধা নেই

Related posts

*

*

Top