Maintance

ক্লাউডে নতুনত্ব, ছবিতে বেশ তবে কনফিগারেশনে পিছিয়ে উই এক্স১

প্রকাশঃ ২:১৯ অপরাহ্ন, জুন ১২, ২০১৬ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ২:২১ অপরাহ্ন, জুন ১২, ২০১৬

তানভীর আহমেদ ফয়সাল, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নিজের প্রয়োজনীয় ফাইল, ছবি বা ভিডিও অনলাইনে সংরক্ষণের পদ্ধতি এখন বেশ জনপ্রিয় হচ্ছে। দেশে ক্লাউড স্টোরেজের ব্যবহার আগে তেমন একটা ছিল না। বর্তমানে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের মধ্যে এটি জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। এটি বিবেচনায় রেখে দেশীয় স্মার্টফোন কোম্পানি আমরা কোম্পানিজ ‘উই স্মার্ট সলিউশনের আওতায় ক্লাউড স্টোরেজ সেবাসহ নিয়ে এসেছে নতুন স্মার্টফোন উই এক্স ১।

ক্লাউডের বিষয়ে নতুনত্ব থাকলেও ১২৪.৫ গ্রাম ওজন ও পাঁচ ইঞ্চি ডিসপ্লের এক্স১ স্মার্টফোনটি তুলনামূলকভাবে সমসাময়িক স্মার্টফোনের কনফিগারেশন থেকে কিছুটা পিছিয়ে।

চলুন দেখে নেয়া যাক কি আছে ‘ফোনের চেয়েও বেশি’ স্লোগান নিয়ে আসা এ স্মার্টফোনে।

WE X1-Feature-3-TechShohor

এক নজরে ফোনের কনফিগারেশন
• ৭২০*১০৮০ পিক্সেল রেজ্যুলেশনের ৫ ইঞ্চি এইচডি অ্যামোলেড ডিসপ্লে
• অ্যান্ড্রয়েড কিটক্যাট ৪.৪.৪
• ১.২ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৪১০ প্রসেসর
• থ্রিজি ও ফোরজি সুবিধা
• অ্যাড্রেনো ৩০৬ ৪০০ মেগাহার্টজ জিপিইউ
• ২ গিগাবাইট র‍্যাম
• ১৬ গিগাবাইট ইন্টারন্যাল স্টোরেজ
• পেছনে ১৩ মেগাপিক্সেল ও সামনে ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা
• ২০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম-পলিমার ব্যাটারি

ডিজাইন
অনেকটাই আইফোন ৬-এর আদলে তৈরি ফোনটি। প্রায় ৬.১৫ মিলিমিটার পাতলা, ওজন ১২৪.৫ গ্রাম। এর সামনে নিচের দিকে হোম, ব্যাক ও রিসেন্ট কন্ট্রোল বাটন রয়েছে।

বামদিকে রয়েছে ভলিউম আপ ও ডাউন বাটন, ডান দিকে পাওয়ার বাটন এবং উপরের দিকে রয়েছে হেডফোন জ্যাক। ডিভাইসটির ফ্রন্ট প্যানেলের উপরের দিকে রয়েছে স্পিকার, সেলফি ক্যামেরা ও প্রক্সিমিটি সেন্সর।

ডিসপ্লের মান মোটামুটি
ফোনটিতে ব্যবহৃত ৭২০*১২৮০ পিক্সেল রেজ্যুলেশনের ৫.০ ইঞ্চির আয়ামোলেড ডিসপ্লেটির পিক্সেল ঘনত্ব মাত্র ২৯৪। বর্তমান বাজারে স্মার্টফোনগুলোর পিক্সেল ঘনত্ব বেশিরভাগই ৪০০ এর উপরে। এ কারণে ডিসপ্লেটি থেকে অনেকেই সন্তুষ্ট নাও হতে পারেন।

করনিং গরিলা গ্লাস ৩ ব্যবহার করা হয়েছে স্ক্রিন প্রটেকশনের জন্য, যাতে সহজে স্ক্র্যাচের ঝামেলা থেকে রেহাই পাওয়া যাবে।

WE-X1-Back-Perspective-TechShohor

অপারেটিং সিস্টেমে পিছিয়ে
বর্তমানে গ্রাহকরা ব্যবহার করছেন ললিপপ ও মার্সমেলো অপারেটিং সিস্টেম (ওএস)। সেখানে এতে ওএস হিসেবে রয়েছে কিটক্যাট ৪.৪.৪। এ কারণে  ফোনের চেয়েও বেশি কিছু স্লোগানের বিপরীতে বাজারে আসা ফোনটিতে নতুনত্ব কম।

তবে সহজে ব্যবহার করতে এবং দ্রুত ও পরিবর্তনশীল দৃষ্টিনন্দন থিম, ক্যামেরা সেটিংস, কনট্যাক্ট লিস্টসহ বেশ কয়েকটি ফিচার কাস্টোমাইজ করতে এতে ব্যবহার করা হয়েছে দারুণ ওএস ইউআই (ইউজার ইন্টারফেস)।

হার্ডওয়্যারে তৃপ্তি নাও মিটতে পারে
ফোনটি রয়েছে ২ গিগাবাইট র‍্যাম ও ১৬ গিগাবাইট মেমরি। কোনো মেমরি স্লট নেই, ফলে চাইলেও মেমরি বাড়ানো যাবে না। নির্ভর করতে হবে ক্লাউড সেবার উপর।

ফোনটিতে রয়েছে একটি সিম স্লট। ফলে যারা দুটি সিম ব্যবহার করতে চান তাদের আশায় গুঁড়েবালি।

এতে রয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৪১০ প্রসেসর, দুই হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি, ইউএসবি বি-টাইপ পোর্ট। গ্রাফিক্স সুবিধা দিতে রয়েছে অ্যান্ডেনো ৩০৬ জিপিইউ, যা খুব বেশি উন্নত নয়।

WE X1-Feature-Processor-TechShohor

ক্যামেরাতে সন্তুষ্টি
ফোনটির পিছনে রয়েছে ফ্ল্যাশসহ ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সামনে সেলফির জন্য রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। দেশীয় স্মার্টফোনের বিবেচনায় ক্যামেরা কোয়ালিটি মোটামুটি ভালোমানের।

পাশাপাশি ম্যাজিক ক্যামেরা অ্যাপ, ফেইস বিউটি, জিআইএফ শট, জেশচার, এইচডিআর, প্যানোরমা, সেলফ টাইমার ও ফেইস ডিটেকশন ফিচার রয়েছে, যা আপনার ছবিকে আরও প্রানবন্ত করে তুলবে।

মাল্টিমিডিয়ার মান মোটামুটি
মিউজিক অভিজ্ঞতা মোটামুটি মানের। ইয়ারপিচ কাজ চালিয়ে নেওয়ার মতো। ফোনে কোনো ল্যাগ ছাড়াই ফুল এইচডি ভিডিও প্লেব্যাক করা যায়। তবে র‍্যামে অধিক চাপ থাকলে এ ক্ষেত্রে অসুবিধা হতে পারে।

গেইমাদের জন্য পছন্দনীয়
স্মার্টফোনে গেইম খেলতে যারা পছন্দ করেন ডিভাইসটি তাদের বেশ পছন্দ হবে। কারণ এতে রয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৪১০ প্রসেসর ও অ্যাড্রেনো ৩০৬ জিপিইউ। হাই গ্রাফিক্সের গেইম খেলা যাবে ল্যাগ ছাড়াই।

ট্যাম্পল রান, ফ্রুট নিঞ্জা, রেসিং কার জাতীয় গেইমগুলোর পাশাপাশি জিটিএ, এনএফএসসহ অন্যান্য হাই গ্রাফিক্স গেইমগুলো চলবে চমৎকারভাবে। তবে র‍্যামের স্বল্পতার কারণে চাপ বেশি হলে মাল্টিটাস্কিং ও গেইমিংয়ের ক্ষেত্রে কিছুটা অসুবিধা হতে পারে।

ব্যাটারি ব্যাকআপ মোটামুটি সন্তোষজনক
আনলিমিটেড ইন্টারনেট এক্সেসযোগ্য ফোনটিতে ২০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম-পলিমার ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে। তবে এটি পুরোপুরি ব্যাকআপের জন্য যথেষ্ঠ নয়। মোটামুটি ব্যবহার বা কথা বলা ও মাঝে মাঝে ইন্টারনেট ব্যবহার করলে সারাদিন ব্যাকআপ পাবেন।

ক্লাউড স্টোরেজ ও ওয়াই-ফাই সুবিধা
নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি ১০০ গিগাবাইট পর্যন্ত ক্লাউড স্টোরেজ বিনামূল্যে ব্যবহারের সুযোগ দিচ্ছে। ফলে অনলাইনে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ফাইল সংরক্ষণ করা যাবে। একই সঙ্গে দেশব্যাপী বিস্তৃত আমরা ওয়াই-ফাই ব্যবহার করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা।

WE X1 Price bangladesh - TechShohor

দাম
দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১৮ হাজার ৬০০ টাকা। সঙ্গে থাকবে ১ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা।

এক নজরে ভালো
• বিনামূল্যে ক্লাউড ও ওয়াই-ফাই ব্যবহারের সুবিধা
• ৬৪ বিট সমর্থিত প্রসেসর
• ক্যামেরায় সন্তুষ্টি
• হাই গ্রাফিক্সের গেইম খেলা যাবে

এক নজরে খারাপ
• পুরনো ওএস
• ওটিজি সুবিধা নেই
• এক্সটারন্যাল মেমরি ব্যবহারের সুযোগ নেই
• মাঝারি মানের ডিসপ্লে
• কনফিগারেশনে পিছিয়ে

*

*

Related posts/