লুমিয়া ৬২৫ : দুর্বল ডিসপ্লের পরও চমৎকার ফিচারের স্মার্টফোন

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নোকিয়ার জন্য ঘটনাবহুল বছর হলো ২০১৩। স্মার্টফোন রাজত্বের হারানো ঐতিহ্য গত বছরে কিছুটা হলেও ফিরে পেয়েছে ফিনিশ কোম্পানিটি। আবার নিজেদের স্মার্টফোন ইউনিট মাইক্রোসফটের কাছে বিক্রির বিষয়টি চূড়ান্ত করেছে ক্রমাগত লোকসান ঠেকাতে। এর মধ্যেও অ্যান্ড্রয়েডের ব্যাপক দাপট সত্ত্বেও লুমিয়া সিরিজের ফোন দিয়ে কিছুটা হলেও বাজার পুনরুদ্ধার করতে পেরেছে কোম্পানিটি। আর বছরের একেবারে শেষ দিকে কোম্পানিটির অ্যান্ড্রয়েডচালিত ফোন আনার খবর ফাঁস হওয়ায় তা বেশ চমক তৈরি করে।

শুরুর দিকের লুমিয়া ফোনগুলো বেশ দামি হলেও পরবর্তীতে নোকিয়া এন্ট্রি লেভেলের লুমিয়া উইন্ডোজ ফোন তৈরি শুরু করে। যার অন্যতম লুমিয়া ৬২৫।

nokia lumia 625_techshohor

ডিজাইন
উইন্ডোজ ফোনের তুলনায় ৬২৫ এর স্ক্রিন বেশ বড় – ৪.৫ ইঞ্চি। চমৎকার স্লিম আকারের কারণে সহজে হাতে আঁটবে। ওজন কিছুটা বেশি, ১৫৯ গ্রাম। লুমিয়া সিরিজের সিগনেচার স্টাইল এতেও ব্যবহার করা হয়েছে। এর বডি সম্পূর্ণ প্লাস্টিকে তৈরি। মসৃণ ফিনিশিংয়ের কারণে দেখতে চমৎকার হলেও কিছুটা প্লাস্টিক ভাব রয়ে গেছে।

ডিসপ্লে
দুর্বল ডিসপ্লে ফোনটির সবচেয়ে বড় নেতিবাচক দিক। ৪.৭ ইঞ্চি আইপিএস ডিসপ্লের রেজুল্যুশন মাত্র ৪৮০*৮০০ পিক্সেল, পিপিআই ২০১। দাম কম রাখার জন্য এ রকম স্ক্রিন ব্যবহার করা হয়েছে; কিন্তু এটি অনেক ব্যবহারকারীকে হতাশ করবে। স্ক্রিনের ওপর গরিলা গ্লাসের প্রলেপ রয়েছে।

কানেক্টিভিটি
টুজি, থ্রিজি ও ফোরজি (এলটিই) নেটওয়ার্ক সাপোর্ট করে ফোনটি। রয়েছে ওয়াই-ফাই, ওয়াই-ফাই হটস্পট, ব্লুটুথ ও মাইক্রো ইউএসবি। অ্যাক্সেলেরোমিটার ও প্রক্সিমিটি সেন্সর আছে।

ক্যামেরা
এর প্রধান ক্যামেরাটি ৫ মেগাপিক্সেল, সাথে এলইডি ফ্ল্যাশ আছে। সেকেন্ডারি ক্যামেরা ভিজিএ। প্রধান ক্যামেরা দিয়ে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও করা যাবে। ছবির মান সন্তোষজনক। ক্যামেরা চালনার জন্য নোকিয়ার ফিচারসমৃদ্ধ স্মার্টক্যাম অ্যাপ রয়েছে।

কনফিগারেশন
এতে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৯৩০ চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে। সিপিইউ ডুয়াল কোর ১.২ গিগাহার্জ ক্রাইট ও জিপিইউ অ্যাড্রেনো ৩০৫। র‌্যাম ৫১২ মেগাবাইট ও রম ৮ গিগাবাইট। তবে মেমরি ৬৪ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

পারফর্ম্যান্স
ফোনটির অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে উইন্ডোজ ফোন ৮ ব্যবহার করা হয়েছে। যদিও র‌্যাম কম, তাতে মসৃণভাবে ফোন অপারেট করতে কোনো সমস্যা হবে না। উইন্ডোজ ফোনের নতুন সব ফিচারই উপভোগ করা যাবে। ব্রাউজিং, ভিডিও চ্যাট, গেইম ইত্যাদিতে এটি চমৎকার পারফর্ম্যান্স দেবে। তবে ডিসপ্লের মান খারাপ হওয়ায় মুভি দেখার মজায় কিছটা ছেদ পড়তে পারে।

ব্যাটারি
২০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার-আওয়ারের ব্যাটারি রয়েছে এতে। এর স্ট্যান্ডবাই টাইম ৫৫২ ঘণ্টা। টানা ৯০ ঘণ্টা গান শোনা যাবে।

দেশের বাজারে ফোনটির দাম ১৯ হাজার ৫০০ টাকা।

এক নজরে ভালো
–        দেখতে আকর্ষণীয়, বড় ডিসপ্লে
–        চমৎকার পারফর্ম্যান্স

এক নজরে খারাপ
–        ডিসপ্লের আউটপুট ভালো নয়
–        দাম কিছুটা বেশি

Related posts

*

*

Top