ডেলের এক্সপিএস১২ ল্যাপটপ কাম ট্যাব

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নতুন প্রজন্মের কনভার্টেবল ল্যাপটপের হাক-ডাক বাজারে এখন বেশ ভালো। কিন্তু আকাশ ছোঁয়া দামের তুলনায় ক্রেতাদের চাহিদা পুরোপুরি মেটাতে পারছে না প্রায় কোনটাই। ডেল এর সাম্প্রতিক ল্যাপটপ ডেল এক্সপিএস ১২- কে বলা হয় পারফেক্ট টাচস্ক্রিন ল্যাপটপ এর পথে সবচেয়ে সফলতম প্রচেষ্টার মধ্যে একটি।

গড়ন ও ডিসপ্লে

অনেকটা কার্বন ফাইবার ও অ্যালুমিনিয়ামের মিশ্রণে গঠিত ল্যাপটপটি তুলনামূলক ভারি। ডেল ইন্সপিরেশনডুও এর মতো এক্সপিএস ১২ তে ডিসপ্লে ১৮০ ডিগ্রী ঘুরিয়ে ট্যাবলেট হিসাবে ব্যবহারের সুবিধা। এর অসম্ভব সুন্দর ১৯২০*১০৮০ পিক্সেল রেস্যুলুশনের গ্লসি ডিসপ্লে প্রায় সব রকমের দৃষ্টিকোণ থেকে আপনাকে দিবে উজ্জ্বল এবং অক্ষত কালার কন্ট্রাস্ট। এমনকি ডিসপ্লেটি মুখের কাছে আনলেও রেস্যুলুশন ফাটবে না চুল পরিমাণ।

Dell_XPS_12_techshohor

ইনপুট ও কানেকটিভিটি

ল্যাপটপটির পোর্টের অভাব হতাশা করবে সবাইকে। মাত্র দুটি ইউএসবি পোর্ট ৩ থাকার পাশাপাশি এটিতে নেই কোন ইথারনেট, ভিজিএ, কার্ড রিডার অথবা এচডিএমএল পোর্ট। কিন্তু ডেল এক্সপিএস ১২-এ সাউন্ড কোয়ালিটি আশ্চর্য রকমের উচ্চমানের যা প্রচলিত অন্য ল্যাপটপে দেখা যায় না। এ ছাড়াও রয়েছে ডিসপ্লের ওপরে ১.৩ মেগাপিক্সেলের ওয়েবক্যাম এবং ওয়্যারলেস কানেকটিভিটির মধ্যে ওয়াই-ফাই ও ব্লুটুথ ৩.০।

কনফিগারেশন

এর ভিতরে রয়েছে ক্লক রেট ২.৫ গিগাহার্জ সম্বলিত দুর্দান্ত ইন্টেল কোর আইফাইভ এর হ্যাজওয়েল প্রসেসর ও ৪ জিবিডিডিআর ৩ র‍্যাম। আছে ১২৮ গিগাবাইট ইন্টার্নাল হার্ডড্রাইভ স্পেস। বলে দিতে হয় না, অত্যন্ত শক্তিশালী কনফিগারেশন। উইন্ডজ ৮ এ ভারি ভারি কাজ করতে পারবেন নির্বিঘ্নে; গতি শ্লথ হবে না কখনোই। শুধু গেমারদের জন্য উপযোগী নয় ল্যাপটপটি, কারণ সমালোচকরা ইতিমধ্যে অভিযোগ এনেছেন এর গেমিংসেক্টরে বাজে পারফরমেন্সের প্রতি।

কিবোর্ড ও টাচপ্যাড

কিবোর্ডের সুবিধাজনক বড় বড় বাটনে জড়ানো হয়েছে রাবার পৃষ্ঠ যা একে মুক্ত রাখবে ধুলো-বালি থেকে। টাইপিংয়ের ক্ষেত্রে কিবোর্ডটি একটি বিস্ময়। নিঃশব্দ টাইপিং এবং অসম্ভব রেস্পন্সিভ এ রকম কিবোর্ড বাজারে খুব কম দেখা যায়। এ ছাড়া টাচপ্যাড তো আছেই! যদিও টাচপ্যাডে একটির বেশি আঙ্গুল আপনি ব্যবহার করতে পারবেন না।

ব্যাটারি

ব্যাটারি লাইফের দিক দিয়েও এগিয়ে রয়েছে ডেল এক্সপিএস ১২। এর  শক্তিশালী কনফিগারেশন ভাল ব্যাটারি খেলেও হ্যাজওয়েল প্রসেসর ল্যাপটপটির ব্যাটারি লাইফ বাড়িয়ে দিয়েছে প্রায় দিগুণ। গেম খেলা বাদ দিলে, প্রায় ৭ ঘন্টা পর্যন্ত এটি দিয়ে আপনি কাজ চালিয়ে যেতে পারবেন নিশ্চিন্তে।

এক নজরে ভালো

-অসম্ভব সুন্দর ডিসপ্লে

-আদর্শ কিবোর্ড এবং টাচপ্যাড

-ভালো ব্যাটারি লাইফ

এক নজরে খারাপ

-যথেষ্ট পোর্ট নেই

-তুলনামূলক ভারি

-গেমিং পারফরমেন্স বাজে

ট্যাগ ,

Related posts

*

*

Top