আদর্শ বিজনেস ল্যাপটপ স্যামসাংয়ের আল্ট্রাবুক সিরিজ ৯

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দক্ষিণ কোরিয়ান নির্মাতা স্যামসাংয়ের প্রিমিয়াম কোয়ালিটির আলট্রাবুক সিরিজ ৯ এনপি৯০০এক্স৩সি। বর্তমানের অন্যতম সেরা আলট্রাবুক বললেও ভুল হবে না। দাম কিছুটা বেশি হলেও ডিজাইন, পারফর্ম্যান্সসহ প্রতিটি ক্ষেত্রেই অন্যান্য আলট্রাবুককে পেছনে ফেলবে এটি।

ডিজাইন

সাদামাটা হলেও আকর্ষণীয় গড়ন স্যামসাংয়ের অনেক পণ্যের প্রধান বৈশিষ্ট্য। এ ল্যাপটপটিও তাই। মেটাল অ্যালয় বডির ফিনিশিং মসৃণ ও খুবই আরামদায়ক। লিডটি স্বাচ্ছন্দ্যে ওঠানামা করে। আকারে স্লিম হওয়ায় সহজেই বহন করা যাবে।

samsung_ultrabook_techshohor

ডিসপ্লে

এতে ব্যবহার করা হয়েছে স্যামসাং বিশেষ পিএলএস ডিসপ্লে। এর ভিউয়িং অ্যাঙ্গেল প্রায় অসীম বলা যায়। ১৩.৩ ইঞ্চি স্ক্রিনের রেজুল্যুশন ১৬০০*৯০০ পিক্সেল; কিন্তু আদপে ইমেজ কোয়ালিটি এই রেজুল্যুশনের চেয়েও অনেক ভালো। বিশেষ অ্যান্টি-গ্লেয়ার কোটিং থাকায় উজ্জ্বল আলোতেও ব্যবহার করতে কোনো অসুবিধা হবে না। বাজারের সেরা ল্যাপটপ ডিসপ্লেগুলোর মধ্যে একটি বলা যায় একে।

কানেক্টিভিটি

পাতলা আকারের কারণে এতে বিস্তৃত কানেক্টিভিটি ও পোর্ট নেই। ভিজিএ, এইচডিএমআই ও ইথারনেট পোর্টও না থাকায় এসব আলাদা ডঙ্গলের মাধ্যমে কানেক্ট করতে হবে। তবে একজোড়া ইউএসবি ৩.০ পোর্ট ও একটি মাইক্রোফোন/হেডফোন জ্যাক আছে। ডানপাশে এসডি কার্ড স্লট রয়েছে। এ ছাড়া ব্লুটুথ ও ওয়াইফাই তো আছেই।

কনফিগারেশন

আলট্রাবুকের ভেতরে রয়েছে ইন্টেল কোর আইসেভেন ১.৯ গিগাহার্জ ডুয়াল কোর প্রসেসর, ইন্টেল ৪০০০ গ্রাফিক্স, ৪ গিগাবাইট ডিডিআর৩ র‍্যাম। স্ক্রিনের ওপর এইচডি ওয়েবক্যাম আছে। স্টোরেজ হিসেবে ২৫৬ গিগাবাইট এসএসডি রয়েছে। দুটি ১.৫ ওয়াটের স্টেরিও স্পিকার রয়েছে যেগুলোর সাউন্ড কোয়ালিটি ল্যাপটপের তুলনায় যথেষ্ট নিখুঁত ও জোরালো।

কিবোর্ড ও টাচপ্যাড

এর কিবোর্ড ও টাচপ্যাড সার্বিক ডিজাইনের মতোই ইউজার ফ্রেন্ডলি। কিবোর্ডের বাটনগুলো আকারে বড় ও পৃথক। ব্যাকলিট সুবিধা রয়েছে। টাচপ্যাডটি স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যবহার করার মতো বড় ও ক্লিকপ্যাড সাপোর্টেড, অর্থাৎ প্যাডের যে কোনো জায়গায়ই ক্লিক করা যাবে।

পারফর্ম্যান্স

ল্যাপটপটির পারফর্ম্যান্স যে কোনো ল্যাপটপের জন্য সর্বোচ্চ বলা যায়। সাধারণ ব্যবহারকারীরা তো বটেই ব্যবসায়ী বা পেশাদারদের প্রয়োজনীয় কাজের জন্য এটি আদর্শ। তাই এ ধরনের ল্যাপটপকে ‘বিজনেস ল্যাপটপ’ও বলা হয়।

ব্যাটারি

৬৩০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার-আওয়ারের লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে এতে। সাধারণ ব্যবহারে যা সাড়ে সাত ঘণ্টা ব্যাকআপ দেবে।

দেশের বাজারে এর দাম এক লাখ ২৪ হাজার টাকা।

এক নজরে ভালো

–     প্রিমিয়াম বিল্ড ও ডিজাইনি

–     অনন্য ডিসপ্লে

–     শক্তিশালী কনফিগারেশন

এক নজরে খারাপ

–     দাম বেশি

–     সবরকম কানেক্টিভিটি নেই

Related posts

*

*

Top