দাম বেশি হলেও কাজের প্রিন্টার ক্যাননের এলবিপি৬২০০ডি

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দাম কিছুটা বেশি হলেও কাজের দিক দিয়ে পুষিয়ে দেবে এমনই একটি সাদা-কালো প্রিন্টার ক্যাননের এলবিপি৬২০০ডি। অফিসের দৈনন্দিন কাজ বা বাসার টূকিটাকি ব্যবহারের জন্য এটি বেশ উপযোগী।

এইচপি বা স্যামসাংয়ের একই গোত্রের প্রিন্টারগুলোর চেয়ে এটি দেখতে বেশ আকর্ষণীয়। ওজন প্রায় সাত কেজি। এর সামনে দিকে ধুলো প্রতিরোধী একটি বিশেষ স্বচ্ছ কভার রয়েছে।

canon printer_techshohor

সামনের প্যানেলটিতে ২৫০টি এ৪ কাগজ রাখা যাবে। বেশি মোটা কাগজে প্রিন্ট করার জন্য ম্যানুয়াল ইনপুট ট্রে রয়েছে। টোনার দিয়ে একবারে ২১০০ কাগজ প্রিন্ট করা যাবে।

এটি অটোমেটিক ডুপ্লেক্স প্রিন্টিং সাপোর্ট করে অর্থাৎ একই সঙ্গে কাগজের দু’পাশে প্রিন্ট হবে। সাধারণভাবে প্রতি মিনিটে ২৫টি ও ডুপ্লেক্স প্রিন্টিংয়ে মিনিটে ১৫.৪টি কাগজ প্রিন্ট করতে পারে। ফলে গতির দিক দিয়ে এটি বেশ এগিয়ে আছে বলতে হবে।

আউটপুট কোয়ালিটি ক্যাননের বেশিরভাগ সাদাকালো লেজার প্রিন্টারের মতোই। ছাপা স্পষ্ট ও ঝকঝকে। তবে কখনও কখনও ঝাপসা আসতে পারে। গ্রাফ, চার্ট ধরনের গ্রাফিক্যাল প্রিন্ট করতে গেলে মাঝে মাঝেই অসুবিধা হতে পারে- চেক চেক দাগ বা প্যাটার্ন চলে আসতে পারে।

আলো-ছায়ার ব্যবধান বেশি নয়, এমন প্রিন্টের আউটপুটও পছন্দসই আসবে না। বান্ডেল সফটওয়্যারের সাহায্যে ড্রাইভার সেটিংসে পরিবর্তন এনে মান কিছুটা বাড়ানো যেতে পারে। তবে সব মিলিয়ে ছবির মান চলনসই বলতে হবে।

প্রিন্টারটির আরেক অসুবিধা হলো, স্মার্ট ডিভাইসগুলোর সঙ্গে কানেক্ট করার জন্য এতে ব্লুটুথ বা ওয়াই-ফাই নেই। ফলে সরাসরি আপনার ফোন থেকে প্রিন্ট করতে পারবেন না। যদিও কাছাকাছি দামের মধ্যে এ ধরনের কানেক্টিভিটিসম্পন্ন প্রিন্টার রয়েছে।

দেশের বাজারে এর বর্তমান দাম ১১ হাজার টাকা।

এক নজরে ভালো
– দ্রুত গতির প্রিন্টিং
– দেখতে আকর্ষণীয়
এক নজরে খারাপ
– ওয়্যারলেস সুবিধা নেই
– আউটপুটের মান আশাব্যঞ্জক নয়

Related posts

*

*

Top