গেইমার উপযোগী হেডফোন করসায়্যার ভেনজেন্স ১৫০০

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : কম্পিউটারের নানা আনুষাঙ্গিক পণ্য তৈরিতে অল্প সময়ে বেশ সুনাম করেছে ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক ব্র্যান্ড করসায়্যার। বিশেষ করে গেইমিং পণ্য তৈরির দিক দিয়ে কোম্পানিটি এখন সবচেয়ে এগিয়ে। আর গেইমারদের কথা চিন্তা করেই তৈরি হয়েছে করসায়্যার ভেনজেন্স ১৫০০ হেডসেট- যা বেশ কমদামে ৭.১ সারাউন্ড সাউন্ডের অভিজ্ঞতা দেবে।

পলিশড প্লাস্টিকে তৈরি হেডসেটটি দেখতে বেশ আকর্ষণীয়। ইয়ারকাপ দুটির বাহু প্লাস্টিকে তৈরি হলেও দেখতে ধাতু বলে ভুল হবে। হেডব্যান্ডটি ফক্স-লেদার ও ফোম দিয়ে তৈরি। ইয়ারকাপের ভেতরে রয়েছে ভেলভেটে মোড়ানো ফোম। এটি মোটামুটি সহজেই বেশিরভাগ ইউজারের মাথায় বসে যাবে এবং ব্যবহারের সময় কোনো অস্বস্তি হবে না।

headphone_techshohor

তবে বিপত্তি বাধতে পারে যাদের কান কিছুটা বড় তাদের ক্ষেত্রে। কেননা তাদের কানে ইয়ারকাপ খাপে খাপে নাও বসতে পারে। যাদের বেশি মাথা নাড়াচাড়া করার অভ্যাস আছে, তাদের জন্য উপরের ব্যান্ডটি মাঝে মাঝে খুলে আসতে পারে।

সাউন্ড কোয়ালিটির দিক দিয়ে ভেনজেন্স বেশিরভাগ হেডফোনের চেয়ে উন্নত হলেও নিখুঁত নয়। ৭.১ ভার্চুয়াল সারাউন্ড সাউন্ডের অভিজ্ঞতা বাস্তবিকভাবে পাওয়া যাবে। যুদ্ধের গেইম খেলার সময় অনুভব করতে পারবেন টিমমেটের চিৎকার বা গুলির আওয়াজ কোনদিক থেকে আসছে। সাউন্ড লিক নেই বললেই চলে, নয়েজ ক্যান্সেল লেভেল সন্তোষজনক। তবে কোনো কোনো ক্ষেত্রে বেজ দুর্বল ও বিচ্ছিন্ন মনে হতে পারে, যে কারণে মুভি দেখা বা গান শোনার জন্য হেডফোনটি পারফেক্ট বলা যায়না।

দুটি চ্যানেলে সাউন্ড সেপারেশনও নিখুঁত নয়। চ্যানেল বদলের সময় হালকা শিসের মতো শব্দ হতে পারে কোনো কোনো ক্ষেত্রে।

তবে হেডফোনটির মাইক্রোফোন খুবই উন্নতমানের এবং আউটপুট সেরা। স্কাইপেতে কিংবা গেইম চ্যাটে স্বাচ্ছন্দ্যে এটি ব্যবহার করা যাবে। ভলিউম কন্ট্রোল বাটনেও কোনো সমস্যা নেই।

কিছুটা দুর্বলতা থাকা সত্ত্বেও দাম মাত্র ১০৬ ডলার হওয়ায় সাধারণ ইউজার এবং গেইমাররা নিঃসন্দেহে ভেনজেন্স ১৫০০ বেছে নিতে পারেন।

এক নজরে ভালো

–      দাম কম, দেখতে আকর্ষণীয়

–      উন্নত মাইক্রোফোন

এক নজরে খারাপ

–      সাউন্ড কোয়ালিটি পারফেক্ট নয়

–      কারও কারও মাথায় ঠিকভাবে না-ও বসতে পারে

Related posts

*

*

Top