Maintance

ভিই মঙ্ক প্লাস : স্বল্প দামে সাউন্ডে রাজা

প্রকাশঃ ৪:০০ অপরাহ্ন, এপ্রিল ৬, ২০১৮ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৯:১৭ অপরাহ্ন, এপ্রিল ৫, ২০১৮

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নাগালের মধ্যে মূল্য, আর মনের মতো সাউন্ড, দুটো একসঙ্গে পাওয়া খুবই কঠিন।

আজকাল ৫০০ টাকার মধ্যে মন মত বেইসসহ হেডফোন পাওয়া গেলেও, সাউন্ডস্টেজ আর ফিডেলিটির অভাব রয়েই যায়। সেদিক থেকে ভিই মঙ্ক প্লাস অনেক সমাদৃত আজ বেশ কিছু বছর ধরে। চলুন দেখা যাক আজও সেটি তার সুনামের যোগ্য কি না।

এক নজরে ভিই মঙ্ক প্লাস

  • ইয়ারবাড ডিজাইন
  • ফ্রিকুয়েন্সি রেসপন্স: ২০ হার্জ থেকে ২০,০০০ হার্জ, তবে মূলত ৪৫ হার্জ থেকে ১২,০০০ হার্জ পর্যন্ত সাউন্ড সবচেয়ে ভালো পাওয়া যাবে
  • ইম্পিডন্স: ৬৪ ওম
  • সেন্সিটিভিটি : ৯৮ডিবি
  • নয়েজ রিডাকশন : ৫ ডিবি পর্যন্ত
  • মাইক্রোফোন নেই
  • ৩.৫ মিলিমিটার জ্যাক

ডিজাইন

খুবই সাদামাটা ডিজাইনের ইয়ারবাডটি দেখে কোনো ভাবেই সাউন্ডের মান নিয়ে আন্দাজ করা যাবে না। ইয়ারবাড দুটি তৈরি করা হয়েছে অর্ধস্বচ্ছ প্লাস্টিকে। প্রয়োজনে তার সঙ্গে ফোম ব্যবহার করা যাবে। রাবারাইজড তারটি বেশ মোটা, সহজে প্যাঁচ লাগবে না। ইয়ারবাডটিতে কোনও মাইক্রোফোন নেই অবশ্য, কথা বলার জন্য তৈরি করা হয়নি।

বেইস

ব্যালান্সড সাউন্ডের দিকে নজর দেয়ায় ইয়ারবাডে সাব বেইস নেই বললেই চলে। তার অর্থ, এতে বেইস নেই তা নয়, তা খুবই নিয়ন্ত্রিত আর শক্তিশালী, কাঁপানো নয়। গানের লো ফ্রিকুয়েন্সিগুলো উন্নত হলে পরিষ্কারভাবে শোনা যাবে, তবে মাথা ধরানো বেইস পাওয়া যাবে না।

মিড

ভোকাল বা গানের শিল্পীর কন্ঠ সুন্দরভাবে উপস্থাপন করে মঙ্ক প্লাস। বলা যেতে পারে, অ্যাকুস্টিক ও খালি গলার গানের জন্য ইয়ারবাডটি আদর্শ। যত বেইস বা ট্রেবলই থাকুক না কেন, ভোকালের কোনও অংশ চাপা পড়বেই না।

ট্রেবল

পেছনের অংশ খোলা হওয়ায় ট্রেবল কড়া হওয়ার পরও হিসিং বা সিবিলেন্স নেই। উচ্চ ফ্রিকুয়েন্সির ট্রেবল কিছুটা চাপা, ফলে সাউন্ড হয়ে গেছে একটু মিডকেন্দ্রিক। এর ফলাফল অবশ্য ভালো, খারাপ নয়। উচ্চ ফ্রিকুয়েন্সির সাউন্ড কানে সবচেয়ে বেশি চাপ ফেলে থাকে।

Symphony 2018

ফিডেলিটি ও সাউন্ড স্টেজ

বেইস, মিড ও ট্রেবল একসঙ্গে সঠিকভাবে দেয়ার ফলে ইয়ারবাডের ফিডেলিটি ও ফ্রিকুয়েন্সি রেসপন্স চমৎকার। যেটুকু সীমাবদ্ধতা আছে তা দুই হাজার টাকার ইয়ারবাডেও ক্ষমা করে দেয়া যায়, সেখানে মঙ্কের মূল্য তার অর্ধেকেরও কম।

ইয়ারবাডের পেছনটা খোলা হওয়ায় সাউন্ড স্টেজ খুবই খোলামেলা। কানের মধ্যে লাগানো থাকলেও সাউন্ড বেশ দূর থেকে আসছে মনে হবে। স্টেরিও সেপারেশন যথেষ্ট ভালো।

ভলিউম ও আইসোলেশন

যে কোনও সোর্সের সঙ্গেই উচ্চমাত্রার সাউন্ড দিতে সক্ষম মঙ্ক প্লাস। তাই ফোনের সঙ্গে ব্যবহার করা নিয়ে চিন্তার কিছু নেই।

ওপেন ব্যাক হওয়ায় চারপাশের সাউন্ডও সরাসরি শোনা যাবে, হেডফোনের সাউন্ডও অন্যরা শুনবে। অফিস ও পাবলিক প্লেসে ব্যবহার চিন্তাভাবনা করে করতে হবে।

তৈরির মান

শুধুমাত্র হেডফোনের সঙ্গে থাকা ইয়ারবাড ফোমগুলোর মান নিয়ে সংশয় আছে। এছাড়া তারের মান বা ইয়ারবাডের প্লাস্টিক সহজেই নষ্ট হবার কথা নয়। মঙ্ক প্লাসের জ্যাকটিও গোল্ড প্লেটিং করা।

মূল্য

বাজারে ৫৫০ থেকে ৬৫০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে এয়ারফোনটি।

এস এম তাহমিদ

*

*

Related posts/