সেরা ৮ ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ল্যাঙ্গুয়েজ

তুহিন মাহমুদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : যখনই ওয়েব ডেভেলপমেন্টের বিষয় আসে তখন কোন ল্যাঙ্গুয়েজে করা হবে সেটি প্রধান বিবেচ্য বিষয় হয়ে দাড়ায়। তবে একটি বিষয় মনে না রাখলেই নয়, ওয়েব ডেভেলপমেন্টের জন্য এককভাবে কোনো ভালো ল্যাঙ্গুয়েজ নেই!

ডেভেলপারদের তার প্রজেক্টের বিষয়বস্তু অনুসারে যথাযথ ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ল্যাঙ্গুয়েজ বেছে নিতে হয়। ওয়েব ডেভেলপমেন্টের মূলত তিনটি অংশ রয়েছে। এগুলো হলো ক্লায়েন্ট-সাইড স্ক্রিপ্টিং, সার্ভার-সাইড স্ক্রিপ্টিং ও ডাটাবেজ টেকনোলজি। সবগুলোর ক্ষেত্রে কিছু বেসিক ল্যাঙ্গুয়েজ আছে। অন্যগুলো মূলত ক্লায়েন্ট-সাইড অথবা সার্ভার-সাইডের জন্য। এখানে বর্তমানের জনপ্রিয় ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ল্যাঙ্গুয়েজ সম্পর্কে বলা হলো।

web development-techshohor

বেসিক ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ল্যাঙ্গুয়েজ
এইচটিএমএল এবং সিএসএস সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় ও বেসিক ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ল্যাঙ্গুয়েজ। ইন্টারনেটে থাকা বেশিরভাগ ওয়েবপেইজই এইচটিএমএল ও সিএসএস ল্যাঙ্গুয়েজ দিয়ে তৈরি।

এইচটিএমএল
একটি ওয়েবের কনটেন্ট স্ট্রাকচার ও ফরম্যাটের জন্য এইচটিএমএল হলো স্টান্ডার্ড মার্কআপ ল্যাঙ্গুয়েজ। এইচটিএমএল ডকুমেন্টের মধ্যে বিভিন্ন পেইজ এলিমেন্ট যেমন টাইটেল, হেডিং, টেক্সট ও লিংক রয়েছে।

সিএসএস
সিএসএসের পূর্ণ অর্থ হলো ক্যাসকেডিং স্টাইল শিট। এটি একটি স্টাইল-শিট ল্যাঙ্গুয়েজ। এইচটিএমএলের সঙ্গে যৌথভাবে সিএসএস একাধিক ওয়েবপেইজের স্টাইল ও ফরম্যাট করে। এর এলিমেন্টের মধ্যে রয়েছে কালার, লেআউট, ফন্ট ইত্যাদি। এটি মূলত ওয়েব পেইজের সৌন্দর্য্য বর্ধনের কাজ করে।

ক্লায়েন্ট-সাইড স্ক্রিপ্টিং
এটি মূলত একটি ব্রাউজারে ওয়েবসাইটকে ফুটিয়ে তোলার বিষয়। এরমধ্যে এইচটিএমএল ও সিএসএস যুক্ত আছে। ক্লায়েন্ট-সাইড স্ক্রিপ্টিং হলো যা একটি ব্রাউজার সাময়িকভাবে ওয়েব সার্ভার থেকে ডাউনলোড ও প্রদর্শন করে। এরপর ইন্টারনেট চলে গেলেও ফাইলগুলো ব্রাউজার থেকে বন্ধ না করা পর্যন্ত দেখা যায়। জাভা স্ক্রিপ্ট ও অ্যাকশনস্ক্রিপ্ট জনপ্রিয় দুই ক্লায়েন্ট-সাইড স্ক্রিপ্টিং ল্যাঙ্গুয়েজ।

জাভাস্ক্রিপ্ট
জাভাস্ক্রিপ্ট ইন্টারনেটে ব্যবহৃত সবচেয়ে জনপ্রিয় স্ক্রিপ্টিং ল্যাঙ্গুয়েজ। এটি একটি ক্লায়েন্ট-সাইড স্ক্রিপ্টিং ল্যাঙ্গুয়েজ বা ব্রাউজার স্ক্রিপ্টিং। জাভাস্ক্রিপ্ট একটি প্রোটোটাইপ-ভিত্তিক স্ক্রিপ্টিং ল্যাঙ্গুয়েজ যাতে পরিবর্তনশীল, দুর্বল টাইপ এবং প্রথম শ্রেণীর ফাংশন আছে। এটি একটি অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড, কার্যকরী প্রোগ্রামিং শৈলী সমর্থনকারী। জাভাস্ক্রিপ্ট অ্যানিমেশন, গেইমস, অ্যাপস ও ডায়নামিক ইফেক্ট দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়।

অ্যাকশনস্ক্রিপ্ট
অ্যাডোবি ফ্লাশের জন্য অ্যাকশনস্ক্রিপ্ট ল্যাঙ্গুয়েজ ব্যবহার করা হয়। ফ্লাশ অ্যানিমেশন, অডিও এবং ভিডিও স্ট্রিমিংয়ের ক্ষেত্রে অ্যাকশনস্ক্রিপ্ট বহুল প্রচলিত ল্যাঙ্গুয়েজ।

সার্ভার-সাইড স্ক্রিপ্টিং
সকল ওয়েবসাইটকেই একটি ওয়েব সার্ভারের ডাটাবেইজে হোস্ট করতে হয়। সার্ভার-সাইড স্ক্রিপ্টিং ওয়েব সার্ভার থেকে ডাটাকে ব্রাউজারে ট্রান্সফার করার সুবিধা দেয়। এটি যেকেনো কোডকে ডাটাবেজ তৈরি ডাটা ম্যানেজমেন্টের জন্য রেফার করে। সার্ভার-সাইড স্ক্রিপ্ট ওয়েব সার্ভারে কাজ করে। এটি নিরাপদ, কারণ সোর্স কোড ওয়েব সার্ভারে থাকে।

পিএইচপি
পিএইচপি মূলত সার্ভার-সাইড স্ক্রিপ্টিংয়ের জন্য ব্যবহৃত হয়। পিএইচপি হচ্ছে একটি স্ক্রিপ্টিং ভাষা যা মূলতঃ চলমান ওয়েবপেইজ তৈরির জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। ইহা কমান্ড লাইন ইন্টারফেস ক্ষমতাকে অন্তর্ভুক্ত করেছে এবং স্ট্যান্ডআলোন গ্রাফিক্যাল আপ্লিকেশনকে ব্যবহার করতে পারে। সকল ওয়েব সার্ভারের প্রায় ৭৫ শতাংশ পিএইচপি ব্যবহার করে। এটি ওপেন সোর্স ভিত্তিক ল্যাঙ্গুয়েজ। প্রায় সকল অপারেটিং সিস্টেম ও অবস্থান ভেদে বিনামূল্যে ব্যবহার করা যায়। ২০ মিলিয়নেরও বেশি ওয়েবসাইট ও ১ মিলিয়ন ওয়েব সার্ভারে পিএইচপি ব্যবহৃত হচ্ছে।

জাভা
জাভা একটি প্রোগ্রামিং ভাষা। সান মাইক্রোসিস্টেম ৯০ এর দশকের গোড়ার দিকে জাভা ডিজাইন করার পরে এটি অতি দ্রুত বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রোগ্রামিং ভাষার একটিতে পরিণত হয়। জাভা’র এই জনপ্রিয়তার মুল কারণ এর বহনযোগ্যতা অর্থাৎ বিভিন্ন প্লাটফর্মে ব্যবহার করা যায়, নিরাপত্তা, অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং এবং ওয়েব প্রোগ্রামিংয়ের পরিপূর্ণ সমর্থন। স্যাম’স ক্লাব, অ্যামাজন, অ্যাপল অ্যাপ স্টোরসহ অধিক ট্রাফিকের ওয়েবসাইটে এই ল্যাঙ্গুয়েজ ব্যবহার করা হয়।

পাইথন
পাইথন বর্তমানে একটি বহুল ব্যবহৃত প্রোগ্রামিং ভাষা। দিন দিন এর জনপ্রিয়তা বেড়েই চলেছে। প্রফেশনাল কাজে যেমন পাইথনের ব্যবহার বাড়ছে, তেমনিভাবে একাডেমিক সেক্টরেও এটির জনপ্রিয়তা বেড়েই চলেছে। কোর্সেরাতে বিভিন্ন অনলাইন কোর্সে প্রোগ্রামিং ভাষা হিসেবে পাইথনের বহুল ব্যবহার লক্ষ্য করার মতো। লিনাক্স, ম্যাক ওএসএক্স ও উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে চলে। গুগলের অফিসিয়াল প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজগুলোর একটি হচ্ছে পাইথন। অন্য ল্যাঙ্গুয়েজগুলোর থেকে এটিতে কয়েকলাইনের কোডেই বেশি কাজ করা যায়। জাভার মতোই পাইথন অধিক ট্রাফিকের ওয়েবসাইট যেমন শপজিলা, ইয়াহু ম্যাপস ও ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিসের ওয়েবসাইটের ক্ষেত্রে পাইথন ব্যবহার করা হয়।

রুবি
রুবিও পাইথনের মতোই। প্রোগ্রামিংকে আরও সহজ ও ছোট করতে এটি ডিজাইন করা হয়েছে। রুবি একটি রিফ্লেকটিভ, চলমান, অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং ভাষা। এর সিনট্যাক্স মূলত নেওয়া হয়েছে পার্ল থেকে। এতে স্মলটকের মতো অবজেক্ট ওরিয়েন্টেশন বা বস্তু সংশ্লিষ্টতা যুক্ত করা হয়েছে। এছাড়া এতে পাইথন, লিস্প, ডিলন ও সিএলইউ এর কিছু বৈশিষ্ঠ্যও যুক্ত হয়েছে। রুবি একটি একক ধাপের ইন্টারপ্রেটেড ভাষা। এর আনুষ্ঠানিক বাস্তবায়ন করা হয়েছে উম্মুক্ত সফটওয়ার হিসেবে।

Related posts

*

*

Top