হার্টব্লিড ভাইরাসে মার্কিন সর্তকতা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : হার্টব্লিড ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বজুড়ে। ওয়েবসাইট থেকে তথ্য চুরির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে এটি। বিশেষ করে ব্যাংক ও ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানগুলো ক্ষতির মুখে পড়েছে। এ পরিস্থিতিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সরকার সকল আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে।

সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়ত বাড়ছে সাইবার হামলার ঘটনা। তথ্য চুরির জন্য হ্যাকাররা প্রতিনিয়ত নিত্যনতুন পদ্ধতি অবলম্বন করছে। এবার তারা হার্টব্লিড নামের ভয়ংকর এক ভাইরাস ব্যবহার করছে তথ্য চুরির হাতিয়ার হিসাবে।

ইতিমধ্যে বিশ্বের লাখো কম্পিউটার ও সার্ভারে ঢুকে পড়েছে ভাইরাসটি। এ জন্য গত সপ্তাহ থেকে বৃহৎ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো সবাইকে সতর্ক থাকতে গোপনীয় পাসওয়ার্ড পরিবর্তনের পরামর্শও দিয়েছে।

Heartbleed _techshohor

ওপেন এসএসএল কোডের মাধ্যমে এ ভাইরাস ছড়ানোর কারণে তা দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। ওপেনএসএসএল কোড হচ্ছে একটি বিশেষ এনক্রিপশন সিস্টেম, যা ই-মেইল বা ইন্টারনেটভিত্তিক যে কোনো প্রতিষ্ঠানে ব্যবহার করা হয়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, কোনো নির্দিষ্ট সাইটে এ ভাইরাস ছড়াচ্ছে না। ধারাবাহিকভাবে প্রচুর সাইটে এটি ছড়াচ্ছে। ফলে ক্ষতির পরিমাণ অনেক বাড়বে বলে ধারণা করছেন সাইবার বিশেষজ্ঞরা।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার (এনএসএ) এরই মধ্যে হার্টব্লিডের সঙ্গে তাদের সম্পৃক্ত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেছে। হোয়াইট হাউস ও এনএসএ উভয়ই এ ভাইরাস সম্পর্কে চলতি মাসের আগে কিছু জানত না বলে জানিয়েছে।

তবে যেসব ওয়েবসাইট অ্যাপাচি এবং এনজিনএক্স ওয়েব সার্ভার সফটওয়্যার ব্যবহার করে তাদেরকে আক্রমণ করছে এটি। হার্টব্লিড ওই সাইটের ব্যবহারকারীর সকল তথ্য উন্মুক্ত করে দিতে সক্ষম।

বিশ্লেষকদের মতে, এ জন্য ঝুঁকির পরিমাণ বেশি। ওয়েবনির্ভর অ্যাপ্লিকেশন, ওয়েব ই-মেইল এমনকি তাৎক্ষণিক ম্যাসেজিংও যদি অ্যাপাচি ও এনজিনএক্স ওয়েব সার্ভার নির্ভর হয়ে থাকে তাহলে সেখানেও ঘটবে সর্বনাশ।

নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা মনে করছেন ভাইরাসের মূল ধ্বংস করতে না পারলে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের পরামর্শ মতো শুধু সর্তক থাকলে তা কাজে আসতে নাও পারে। এ জন্য আরও পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি।

– বিবিসি অবলম্বনে তুসিন আহমেদ

Related posts

*

*

Top