Maintance

গ্যাজটগুলো বর্ষসেরা

প্রকাশঃ ১:১৮ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৪:৩৪ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৭

এস এম তাহমিদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইলেক্ট্রনিক্স গ্যাজেটের জয়জয়কার বিশ্বজুড়ে। প্রতিদিনই তৈরি হচ্ছে মানুষের জীবনকে আরও সহজ-উপভোগ্য করার গ্যাজেট।

বছরের সেরা ফোন, কম্পিউটার, ল্যাপটপ তো থাকছেই, পাশাপাশি বেশকিছু গ্যাজেট রয়েছে যা বছরের আলোচিত গ্যাজেট হিসেবে ধরা যায়। কি ছিল সেসব গ্যাজেট?

১। নিন্টেন্ডো সুইচ

চলার পথে গেইম খেলার জন্য কনসোলের নেই বিকল্প। একই কনসোল যদি বাসায় টিভির সঙ্গেও ব্যবহার করা যায় তাহলেতো পোয়াবারো। ঠিক এমনই কনসোল তৈরি করে ২০১৭ সালে সাড়া ফেলেছে নিন্টেনডো।

ট্যাবলেট আকৃতির কনসোলটির দুপাশে রয়েছে কন্ট্রোলার, বাসায় ডকে রেখে কনসোলটি টিভির সঙ্গেও ব্যবহার করা যাবে। প্রচুর জনপ্রিয় গেইম কনসোলটির জন্য ছাড়া হচ্ছে। ফলে এর বিক্রি এখন তুঙ্গে। এখন পর্যন্ত কনসোলটিতে অনলাইন মাল্টিপ্লেয়ার যুক্ত করা হয়নি, কিন্তু আগামী বছরের শুরুতেই তা উন্মোচন করা হবে বলে জানিয়েছে নিন্টেন্ডো। তবে নামকরা বড় গেইমগুলোর চেয়ে সুইচে হালকা গেইম খেলাই বেশি আনন্দদায়ক।

২। ডিজেআই স্পার্ক

ছবি তোলার জন্য ড্রোন অনেকেই ব্যবহার করেন, তবে ড্রোন ব্যবহারে দক্ষ পাইলট হওয়া বেশ কঠিন। সেটি বদলে দিতেই বিখ্যাত নির্মাতা ডিজেআই বাজারে এনেছে স্পার্ক। যা সহজেই কোনও কন্ট্রোলার ছাড়াই ওড়ানো যাবে।

ড্রোনটির আকৃতিও খুবই ছোট। একহাতে সহজেই বহন করা যায়। তবে ডিজেআই ফ্যান্টম সিরিজের মত ভারী ক্যামেরা এটি বহন করতে পারবে না। এতে থাকা ক্যামেরাটি খুবই ভালোমানের, ছবি যাতে না কাঁপে সেজন্য স্ট্যাবিলাইজেশনও ড্রোনটি যথেষ্ট ভালো, এরূপ ক্ষুদ্র ড্রোনের জন্য যা বিস্ময়কর।

৩। গুগল হোম মিনি ও ম্যাক্স

অ্যামজন ইকোকে টেক্কা দিতে গত বছর গুগল হোম বাজারে আসলেও মূল্য ও অডিওর মানের জন্য তেমন জনপ্রিয়তা পায়নি। এবছর গুগল হোমের দুটি সংস্করণ বাজারে এসেছে।

এর মধ্যে গুগল হোম মিনির মূল্য ইকো ডটের সমান হওয়ায় জনপ্রিয়য় হয়ে উঠতে শুরু করে। গুগল হোম ম্যাক্স শুধু অ্যাসিস্ট্যান্ট নয়, বরং হাই-ফাই স্পিকার হিসেবে বাজারে ছাড়া হয়েছে। তবে দুটি ডিভাইসই বাজারে আসার পর পর বেশ কিছু সফটওয়্যারজনিত সমস্যায় পড়ে। ফলে ব্যবহারকারীরা কেনার ব্যাপারে দ্বিধায় পড়েন।

৪। অ্যাপল ওয়াচ ৩

স্মার্টওয়াচের বাজারে অ্যাপল এখনো রয়েছে সবার ওপরে। তার নতুন সংস্করণটি আরও বেশি ব্যাটারি লাইফ, পানিরোধী করে তৈরি করা হয়েছে। তবে এবারের মূল ফিচার সরাসরি সিম কার্ডের মাধ্যমে ফোরজি ইন্টারনেট ব্যবহার ও সরাসরি অ্যাপল ওয়াচ ৩ থেকেই ফোন করার সুবিধা।

স্মার্টওয়াচ আসলে কতটা কাজের তা নিয়ে বিতর্ক থাকলেও অ্যাপল ওয়াচ এর মধ্যে সেরা সেটি নিয়ে সন্দেহ নেই। তবে এলটিই সংযোগে বেশ কিছু সমস্যার কারণে অ্যাপল ওয়াচ ৩ তার পূর্বসূরীদের মত জনপ্রিয়তা এখনো পায়নি।

তবে নতুন আপডেটে সরাসরি ওয়াচ থেকেই অ্যাপল মিউজিক শোনার সুবিধা যুক্ত করার ফলে নতুন ক্রেতারা এর প্রতি আরও আকৃষ্ট হতে পারেন।

৫। আঙ্কি কজমো

খেলনা রোবটের মধ্যে আঙ্কি কজমো নিজের স্থান করে নিয়েছে ব্যক্তিত্বের মাধ্যমে। ক্ষুদ্র বুলডোজারের আকৃতির এ রোবটটি কথা বলতে না পারলেও চোখের অভিব্যক্তি ও শব্দের মাধ্যমে মনের ভাব প্রকাশ করতে পারে। কৌতহল নিয়ে আশপাশের জিনিস নেড়ে দেখতে পছন্দ করে, খেলাধুলায়ও কম যায় না।

চার্জ ফুরিয়ে এলে নিজেই চার্জিং স্টেশনে চলে যেতে সক্ষম কজমো। বাচ্চাদের রোবটিক্সে আগ্রহী করে তুলতেই এটি তৈরি করা হয়েছে।

৬। অপ্পো পিএম-৩

আমাদের দেশে অপ্পো ফোন নির্মাতা হিসেবে পরিচিত হলেও বিশ্বব্যাপী তাদের অডিও পণ্য সর্বাধিক সমাদৃত। তাদের সর্বশেষ হেডফোন পিএম-৩ এ বছরের সেরা হেডফোনের খেতাব পেয়েছে।

প্ল্যানার ম্যাগনেটিক প্রযুক্তির হেডফোনটি অসাধারণ সাউন্ড দিতে সক্ষম, তৈরিতেও ব্যবহার করা হয়েছে মানসম্পন্ন ধাতু। সাধারণ হেডফোনের ডাইনামিক ড্রাইভার স্পিকারের চেয়ে প্ল্যানার-ম্যাগনেটিক স্পিকার আরও ব্যাতিচারবিহীন সাউন্ড দিতে সক্ষম। তবে সাধারণত সেগুলো চালাতে শক্তিশালী অ্যাম্পের প্রয়োজন হয়। অপ্পোর হেডফোনটি কোনও অ্যাম্প ছাড়াই সরাসরি ফোনের সঙ্গে চালানো যাবে। মূল্য কিছুটা চড়া, তবে মানসম্পন্ন সাউন্ড পেতে হলে খরচ করতে হবে তা সবারই জানা।

৭। সনি আলফা এ৭এস ২

ক্যামেরা জগতে সনি আলফা সিরিজ ছোট বডিতে ফুল-ফ্রেম সেন্সর ব্যবহারের জন্য প্রসিদ্ধ। ছোটখাট ক্যামেরাগুলো বড় ডিএসএলআর অথবা সিনেমাক্যামেরার সঙ্গে পাল্লা দিতে সক্ষম। তাদের এ৭এস ২ মডেলটি ২০১৭ সালের সেরা ক্যামেরা হিসেবে বেশ কিছু অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে।

ক্যামেরাটির স্ট্যাবিলাইজেশন, অসাধারণ নয়েজ রিডাকশন ও দ্রুত শাটার স্পিড বাকি সব ক্যামেরার থেকে তাকে আলাদা করেছে। তবে বেশ চড়া মূল্যের ক্যামেরাটির লেন্সগুলোর কমদামী নয়। ফলে যারা সনি ক্যামেরা ব্যবহারের কথা ভাবছেন তাদের সেদিকে নজর রাখতে হবে।

*

*

Related posts/