Maintance

'বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস জানানো হবে ডিজিটাল মাধ্যমে'

প্রকাশঃ ৫:৪৭ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৫:৪৭ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : তরুণ প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানাতে ডিজিটাল মিডিয়ার ইতিবাচক ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ একই সুতোয় গাঁথা। কিন্তু ৭৫ সালের পর দুটো প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। তাই তরুণ প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস ও গৌরবগাঁথা যথাযথভাবে পৌঁছে দিতে তরুণ প্রজন্মকে ডিজিটাল মিডিয়ার ইতিবাচক ব্যবহার করতে হবে।

বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে ‘সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার এবং মুক্তিযুদ্ধ’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও সিম্পোজিয়ামে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
palak-techshohor
প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, ইনডেমনিটির মাধ্যমে দেশে বিচারহীনতার যে পরিবেশ জিয়াউর রহমান তৈরি করেছিল আমরা সেটি থেকে বেরিয়ে এসেছি। আমরা ৩৭ বছরের সেই কালো আইন রহিত করে জাতির পিতার হত্যাকাণ্ডের বিচার করেছি, ন্যায় বিচার নিশ্চিত করেছি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঠিক নেতৃত্ব ও তার আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টার প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে আমরা সারাদেশে ২০২১ সাল নাগাদ খাতটিতে ২০ লাখ কর্মসংস্থান ও এ খাতে ৫ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি করার লক্ষ্যে কাজ করছি।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুপারনিউমেরারি অধ্যাপক ড . সৈয়দ আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা মুক্তির জন্য স্বাধীনতা অর্জন করেছিলাম। মুক্তির যুদ্ধ অনিঃশেষ যা আজও চলমান।  এই যুদ্ধেও বিজয় অর্জন করতে হবে।

বক্তব্যে তথ্যপ্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বনমালী ভৌমিক বলেন, বঙ্গবন্ধুর ঋণ আমরা শোধ করতে চাই না, এই ঋণ বহন করেই আমরা এগিয়ে যেতে চাই।

তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব পার্থ প্রতিম দেবের সভাপতিত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. শওকত আরা হোসেন, তথ্য প্রযুক্তি অধিদপ্তরের উপ-মহাপরিচালক মালিহা নার্গিস, সার্টিফায়িং অথরিটিজের নিয়ন্ত্রক আবুল মনসুর মো. সারফ উদ্দীন প্রমুখ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/