Maintance

পাঠাওয়ে ইন্দোনেশিয়ার কোম্পানির বড় বিনিয়োগ

প্রকাশঃ ৫:২৪ অপরাহ্ন, নভেম্বর ২৮, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১২:৫৯ অপরাহ্ন, নভেম্বর ২৯, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইন্দোনেশিয়াভিত্তিক ট্রান্সপোর্ট সিস্টেম প্রতিষ্ঠান গো-জেক রাইড শেয়ারিংয়ে দেশিয় স্টার্টআপ পাঠাও’য়ে ২০ লাখ ডলার বিনিয়োগ করছে।

ইতোমধ্যে গো-জেক এই বিনিয়োগ করতে একটি চুক্তিও করেছে বলে জানিয়েছে প্রযুক্তি ও ব্যবসাভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম ডিল স্ট্রিট এশিয়া।

মাধ্যমটি জানিয়েছে, কয়েক সপ্তাহ আগেই প্রতিষ্ঠান দুটি চূড়ান্ত বিনিয়োগ ব্যাপারে একটি চুক্তি করেছে। যেখানে গো-জেক পাঠাও-তে সিরিজ এ রাউন্ড সময়ে ২০ লাখ ডলার বিনিয়োগ করবে।

যা বাংলাদেশি মুদ্রা বিনিময় হারে প্রায় ১৭ কোটি টাকা।

টেকশহরডটকম পাঠাও কর্তৃপক্ষের সঙ্গে চুক্তি বিষয়ে জানতে চাইলে মার্কেটিং ম্যানেজার সৈয়দা নাবিলা মাহাবুব ‘পাঠাও, গো-জেক এর সঙ্গে চুক্তি করেছে কি করেনি; করবে কিনা বা হয়েছে কিনা এবিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না’ বলে জানান।

বিনিয়োগ সংক্রান্ত বিষয়ের সংবেদনশীলতা এবং গোপনীয়তার জন্য এ ব্যাপারে কোন প্রকার মন্তব্য করতে চায় না প্রতিষ্ঠানটি।

go-jek

যদিও গো-জেক এবং পাঠাও দুই কর্তৃপক্ষই ডিল স্ট্রিট এশিয়ার কাছে চুক্তি ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি।

ডিল স্ট্রিট এশিয়া বলছে, চুক্তির ফলে বাংলাদেশি স্টার্টআপটির একটি ক্ষুদ্র অংশীদার হচ্ছে গো-জেক। আর এর মাধ্যমে ইন্দোনেশিয়ার প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশে গো-জেক নামটি পরিচিত করাতে চায়।

গো-জেক ইন্দোনেশিয়াতেও পাঠাওয়ের মতোই রাইড শেয়ারিং সার্ভিস দিয়ে আসছে। সেখানে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে গাড়ি,বাইক এবং ট্রাক সেবা পাওয়া যায়। দেশটিতে এখন গো-জেক নিবন্ধতি গ্রাহকের সংখ্যা দুই লাখের বেশি।

বিশ্লেষকরা অবশ্য বলছেন, ইন্দোনেশিয়ায় যতোটা পরিচিতি পাওয়া যায় তার চেয়ে জনবহুল এবং ট্রাফিক জ্যামে হিমশিম খাওয়া ঢাকাতে সহজেই জনপ্রিয় হয়ে ওঠা যাবে।

দেশে খুব অল্প সময়ের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে পাঠাও। আর এ কারণে ইন্দোনেশিয় প্রতিষ্ঠানটি নিজেরে সীমানা পার করে তাদের সেবা বিস্তৃত করতে পাঠাওয়ে এই বিনিয়োগ পরিকল্পনা করেছে। প্রতিষ্ঠানটির অন্যতম বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে রয়েছে চীনের সোশ্যাল মিডিয়া জায়ান্ট টেনসেন্ট।

 ২০১৫ সালে দেশে কুরিয়ার সার্ভিস দিয়ে কার্যক্রম শুরু করে পাঠাও। পরের বছর ২০১৬ তে স্টার্টআপটি অ্যাপথিত্তিক পরিবহণ সেবায় নামে। প্রথমে বাইক দিয়ে শুরু করলেও এখন অ্যপাটিতে গাড়িও পাওয়া যাচ্ছে।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/