ল্যাপটপ পেলেন এমপিরা

জামান আশরাফ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রায় এক বছর সংসদের গুদামে পড়ে থাকার পর একসঙ্গে তিন শতাধিক সংসদ সদস্যের মধ্যে তা বিতরণ করা হয়েছে।

‘সংসদের কানেক্টিভিটি সৃজন ও জাতীয় সংসদে ইন্ট্রানেট অ্যাপ্লিকেশন তৈরির কর্মসূচি’র আওতায় সংসদ সদস্যদের মধ্যে তিনদিন ধরে এই ল্যাপটপ বিতরণ করা হয়।

hp laptop

বৃহস্পতিবার শেষ দফায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী পালামেন্ট মেম্বারর্স ক্লাবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সংসদ সদস্যদের মধ্যে ল্যাপটপ বিতরণ করেন।

এর আগে গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে দুই কোটি ৩৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা ব্যয়ে কেনা হয় ল্যাপটপগুলো। কিন্তু নবম সংসদের একেবারে শেষ সময় হওয়ায় তখন সেগুলো আর বিতরণ করা হয়নি।

সংসদ সচিবালয় জানিয়েছে, সরকারের টাকার সর্বোচ্চ ব্যবহারের উদ্দেশ্যে সে সময় বর্তমান স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরী এগুলো বিতরণ না করতে বলেছিলেন। কেননা তখন সংসদের মেয়াদ ছিল খুব কম।

বিতরণ করা এসব ল্যাপটপ সংসদ সদস্যরা ব্যবহার করবেন। তবে মেয়াদ শেষ হলে তা ফেরত দিতে হবে।

এর আগে নবম জাতীয় সংসদের প্রত্যেক সাংসদের নিজ নিজ সংসদীয় এলাকায় কার্যালয় দেওয়ার সঙ্গে ডেক্সটপ কম্পিউটারও দেওয়া হয়।

পরে ইউএনডিপির সহায়তায় সংসদকে আরও ডিজিটাল করতে একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়। এ প্রকল্পের আওতায় কেনা হয়েছে সাড়ে তিনশ ল্যাপটপ।

সংসদ সচিবালয় সূত্র জানিয়েছে, এইচপি ব্র্যান্ডের এসব ল্যাপটপে রয়েছে কোর আই ফাইভ প্রসেসর। রয়েছে ৪ গিগাবাইট র্যা ম। আর ওজন এক দশমিক ৮ কেজি।

ল্যাপটপের সঙ্গে সাংসদদের দেওয়া হয়েছে গ্রামীণফোনের মডেম। এছাড়া এসব ল্যাপটপে ব্যবহৃত হয়েছে অরিজিনাল সফটওয়্যার। সব মিলে প্রত্যেকটি ল্যাপটপের দাম পড়েছে ৬৭ হাজার টাকা।

ল্যাপটপগুলো বিতরণের পর এখন এ বিষয়ে সাংসদদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও করবে সংসদ সচিবালয়।

ল্যাপটপ বিতরণের পর স্পিকার বলেন, সংসদ সদস্যরা নিয়মিত ল্যাপটপ ব্যবহার করলে সংসদীয় কার্যক্রমে আরও বেশী গতিশীলতা আসবে বলে বিশ্বাস তার।

Related posts

*

*

Top