স্মার্টফোন এক্সপোর বাড়তি আকর্ষণ ‘লিবারেশন ৭১’

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে স্মার্টফোন ও ট্যাব এক্সপো মেলায় ঘুরতে এসে একটি স্টলের সামনে অনেক দর্শনার্থী একটু থমকে দাঁড়াচ্ছেন। মনোযোগ দিয়ে বোঝার চেষ্টা করছেন কি চলছে সেখানে।  কাছে গিয়ে দেখা গেল, স্টলের মধ্যে রাখা একটি ল্যাপটপে অস্ত্র নিয়ে যুদ্ধ করছেন একজন।

দৃশ্যটি একটু পরিচিত মনে হওয়ায় সেটিই কাছে টানছে সবাইকে। প্রথমে দেখলে মনে হবে জনপ্রিয় কল অব ডিউটির মতো এটিও কোনো বিদেশি গেইম। তবে স্টলের মধ্যে বসে থাকা কিছু তরুন যখন বলছে এটি মুক্তিযুদ্ধের ওপর ভিত্তি করে তৈরি একটি গেইম, তখন অনেকেই অবাক হচ্ছেন।

চোখ তুলে দেখে নিচ্ছেন স্টলের ব্যানারটি। পাক সেনাদের বিরুদ্ধে বাঙ্গালীর বিরত্ব গাথা তুলে ধরার ভিন্ন এ প্লাটফর্মকে বেছে নেওয়ায় বাহবা দিচ্ছেন অনেককে।  মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে একদল তরুণের তৈরি এ প্রচেষ্টার নাম ‘লিবারেশন ৭১’।

Liberation '71_techshohor

 

এক্সপোতে অ্যাপস জোনে ‘লিবারেশন ৭১’  গেইমটি প্রদর্শন করা হচ্ছে। এটি বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ ফার্স্ট পারসন শ্যুটার গেইম। মহান মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে গেইমটি তৈরি করছে ‘টিম৭১’ নামে ৪০ সদস্যের একটি দল। সম্প্রতি স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে এটি উন্মোচন করা হয়েছে।

প্রদর্শনীতে লিবারেশন ৭১ গেইমটি স্টলে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছে। শিশু থেকে বৃদ্ধ অনেকেই এটি দেখছেন। স্টলে গেইমটি খেলার সুযোগও রয়েছে। যে কেউ চাইলে খেলতে পারবেন। দর্শনার্থীরা  চাইলে পেনড্রাইভ কিংবা মেমোরি কার্ডে গেইমটির ফাইল নিতে পারবে।

মেলায় আগত নাফিজ নামে এক দর্শনার্থী লিবারেশন ৭১ গেইমটি দেখে জানান, ” সত্যি অসাধারণ একটি গেইম। বাংলাদেশে কেউ এমন গেইম তৈরি করে পারে ভাবতে ভাল লাগছে।”

টিম ’৭১ এর শুরুটা হয়েছিল ২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর। দেশের সবচাইতে বড় ফেইসবুকভিত্তিক গেমিং কমিউনিটি  ‘গেইমার জোনের’ মধ্য থেকে কয়েকজন গেইমার দেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে গেইম ডেভেলপের জন্য উদ্যোগ হাতে নেন। এর মাঝে পেরিয়ে গেছে একটি বছর।

নানা চড়াই উতরাই পেরিয়ে টিম ’৭১ গত ২৬ মার্চ লিবারেশন ’৭১ এর “আলফা ভার্সন ১.০” অফিশিয়ালি গেইমটির উন্মোচন করেন। এর পর থেকে ২১ হাজার বার গেইমটি ডাউনলোড করা হয়েছে।

টিম ’৭১ এর প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান সিইও ফরহাদ রাকিব বলেন, তথ্যপ্রযুক্তির যুগ চলছে এখন। তাই দেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে তরুণ প্রজন্মের মাঝে পৌঁছে দিতে তথ্যপ্রযুক্তিকে ব্যবহার সবচেয়ে ভালো উপায়।

রাকিব বলেন, সময়টা এমন এখন চাইলেই আপনি তরুণ প্রজন্মের কাউকে মুক্তিযুদ্ধের বই দিয়ে উৎসাহিত করতে পারবেন না। তাই আমাদের লক্ষ্য ছিল তাদের পছন্দের পথে গেইমের মাধ্যমে দেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস তুলে ধরা। সেই চিন্তাধারা থেকেই আসলে এ গেমের যাত্রা শুরু হয়।

LIB2

গেইমটির কাহিনী দেশের মুক্তিযুদ্ধের সত্যিকার ঘটনাগুলো নিয়ে আবর্তিত হয়েছে। দেশের মুক্তিযুদ্ধের মহান ৭ বীরশ্রেষ্ঠের ৭টি মিশন, রাজারবাগ পুলিশ লাইন প্রতিরোধ, অপারেশন জ্যাকপট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হত্যাকান্ড, ক্র্যাক প্লাটুন, ১৬ই ডিসেম্বর পাক বাহিনীর ঢাকায় আত্মসমর্পনসহ ১৬টি গুরুত্বপূর্ণ মিশন গেইমে ঠাঁই পেয়েছে।

গেইমটি তৈরিতে তথ্য মন্ত্রণালয় প্রকাশিত “মুক্তিযুদ্ধের দলিল” বইটি অনুসরণ করা হয়েছে।

টিম ৭১ এর হেড অব ওয়েব ডেভেলপমেন্ট অনির্বাণ রায় টেকশহরডটকমকে বলেন, “ ২০১২ সালে দল গঠনের সময় লিবারেশন ৭১ গেইমটি নিয়ে যে স্বপ্ন দেখেছিলাম তা ধীরে ধীরে পূর্নতা পাচ্ছে। আমাদের শত প্রতিকূলতার মাঝেও এ বছরের ১৬ ডিসেম্বর গেইমটি রিলিজের চেষ্টা করব।”

টিম ’৭১ এর ৪০ সদস্যের মধ্যে গেইমটি নিয়ে আরও কাজ করেছেন থ্রিডি ডিজাইনার সাখাওয়াত হোসেন, রিমন এ. বেভান, ওয়েব ডেভেলপার অনির্বাণ রায় ও আসিফ মাহমুদ,  সাউন্ড ডিরেক্টর যাযাবর রাসেল এবং নাইম আহমেদ প্রমুখ।

‘লিবারেশন ৭১’ গেইমটি নিয়ে ভবিষৎ পরিকল্পনা সর্ম্পকে জানতে চাইলে টিম’৭১ এ সদস্যরা পরে মুক্তিযুদ্ধের ওপর ভিত্তি করে সিরিজ গেইম তৈরির পরিকল্পনার কথা জানান।

এ ছাড়া আলফা সংস্করণটিকে সম্পূর্ণ করা ও আরও নিখুঁতভাবে পূর্ন সংস্করণে রিলিজ করা হবে। উপযুক্ত সহায়তা পেলে দেশের ও উপমহাদেশের আরও অনেকগুলো ঐতিহাসিক ঘটনাকে নিয়ে গেইম তৈরির কথা জানান তারা।

৪৯.৪ মেগাবাইটের এই গেইমটি এই ঠিকানা থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

Related posts

*

*

Top