Maintance

গঠনতন্ত্রেই নাম ভুল বেসিসের

প্রকাশঃ ৬:০৬ অপরাহ্ন, অক্টোবর ১১, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১২:৫০ অপরাহ্ন, অক্টোবর ১২, ২০১৭

আল-আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : তথ্যপ্রযুক্তি খাতের শীর্ষ বাণিজ্য সংগঠন বেসিসের গঠনতন্ত্রে নিজের নামই ভুল।

শুধু নাম নয় বেসিসকে একটি কোম্পানি হিসেবেও বলা হয়েছে এই গঠনতন্ত্রের একটি জায়গায়।

এবারে বেসিস বোর্ড সাব-কমিটি এবং বেসিস কনস্টিটিউশন অ্যামেন্ডমেন্ড কমিটির যে সুপারিশ তাতে প্রথম দুটি সংশোধনীই এই নাম-পরিচয়। ৩১ অক্টোবর এই কনস্টিটিউশন অ্যামেন্ডমেন্ড নিয়েই বিশেষ সাধারণ সভা ডেকেছে বেসিস।

মেমোরেন্ডাম অব অ্যাসোসিয়েশনের আর্টিকেল বা ক্লজ-১ এ এখন বলা আছে-‘বাংলাদেশ অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস’। নতুন সংশোধনীতে এটিকে ‘বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস’ করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। অথচ এই নামটিই সংগঠনিটর প্রচলিত নাম।

আর্টিকেল বা ক্লজ-২ তে নিবন্ধিত অফিসের বিবরণে একটি জায়গায় ‘কোম্পানিটি’ বলা রয়েছে। এখানে নতুন সংশোধনীতে ‘অ্যাসোসিয়েশনটি’ করতে প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

আরো পড়ুন: বেসিস নির্বাচন ডিসেম্বরে, ২ বছর মেয়াদ সব পদে

কনস্টিটিউশন অ্যামেন্ডমেন্ড প্রপোজালে ১৯ পৃষ্ঠা জুড়ে বর্তমান গঠনতন্ত্রের অসংখ্য ভুল সংশোধন ও বিষয়, শব্দ, বাক্য প্রতিস্থাপনের বিষয়ে বলা হয়েছে।

সংগঠনটির লক্ষ্য-উদ্দেশ্য,তথ্য, সদস্যপদ, কার্যনির্বাহী কমিটি, নির্বাচনসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অংশে সংশোধন ও পরিবর্তনের কথা বলা হয়েছে।

বেসিস সভাপতি তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার টেকশহরডটকমকে জানান, ডিটিও’র নির্দেশনা অনুয়ায়ী বর্তমান গঠনতন্ত্র সংশোধন করা হচ্ছে। তবে নির্দেশনা পালন করতে গিয়ে গঠনতন্ত্রে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ক্রুটি-বিচ্যুতি বেরিয়ে এসেছে। এগুলোও সংশোধন করা হচ্ছে।

২০১৪ সালের ২০ ডিসেম্বর ইজিএমে যখন পূর্বের গঠনতন্ত্র সংশোধনের প্রস্তাব আনা হয় তখন আপত্তি তুলেছিলেন সংগঠনটির বর্তমান এই সভাপতি।

সেই সময়ের বেসিস সভাপতি শামীম আহসানের নেতৃত্বাধীন কমিটি গঠনতন্ত্রের এসব সংশোধনীর প্রস্তাব আনে। ওই কমিটির সময় সংগঠনটির পুরোনো গঠনতন্ত্রের নির্বাচনী কাঠামোই ফেলা হয়েছিল।

ওই কমিটির তিন নেতা বর্তমান কমিটিতেও আছেন। বেসিসের পুরোনো গঠনতন্ত্র পাওয়া এরপর সংশোধিত গঠনতন্ত্র এবং সম্প্রতি সংশোধনী আনা গঠনতন্ত্র-এই সবগুলো পরিবর্তনের সময় ধরে দীর্ঘ পাঁচ বছর টানা বেসিসের কার্যনির্বাহী কমিটিতে থাকা এই তিন নেতা হলেন রাসেল টি আহমেদ, এম রাশিদুল হাসান ও উত্তম কুমার পাল।

উদ্ভুত বিষয়টি নিয়ে বেসিসের অনেক সদস্য ও তথ্যপ্রযুক্তিখাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নেতৃত্বে এসে সংগঠনের প্রতি মনযোগ ও দায়িত্বের ঘাটতির কারণেই আজ এই লজ্জাজনক পরিস্থিতি হলো।

 

*

*

Related posts/