প্রতিশ্রুতি নয়, বিসিএসে ‘সুপরিবর্তন’ আনতে চান আরিফ

আল আমীন দেওয়ান : দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সবচেয়ে বড় সংগঠন বিসিএসের ২৯ মার্চের নির্বাচনকে সামনে রেখে টেকশহরডটকমের সিরিজ প্রতিবেদনের সঙ্গে থাকছে বর্তমান ও সাবেক নেতা, প্রার্থী ও ভোটারদের সঙ্গে আলাপচারিতা।

নির্বাচনকে ঘিরে অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস) সদস্যরা এখন বেশ আলোচনায় আছেন। ভোটের প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা ভোটার-সদস্যদের সঙ্গে সংগঠনের অতীত, বর্তমান, ভবিষ্যতের বিষয়-আশয় নিয়ে আলাপচারিতায় ব্যস্ত।

নির্বাচনের এ ডামাডোলের মধ্যে টেকশহরডটকমও তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বৃহত্তম এ সংগঠনের বর্তমান হালচাল, প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতি, ভোটারদের চাওয়া পাওয়ার বিষয়ে জানতে কথা বলেছে অনেকের সঙ্গে। এ প্রতিবেদনে থাকছে বিবিঅ্যান্ডবি প্যানেলের প্রধান এ এইচ এম মাহফুজুল আরিফের সঙ্গে আলাপচারিতার চুম্বক অংশ।

arif_computer source-techshohor

দেশের শীর্ষস্থানীয় তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য আমদানি ও বিপণনকারী প্রতিষ্ঠান কম্পিউটার সোর্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ এইচ এম মাহফুজুল আরিফ নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী একমাত্র প্যানেল বেটার বিজনেস অ্যান্ড বিসিএসের (বিবিঅ্যান্ডবি) নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

বলা হচ্ছে প্যানেলটি বিজয়ী হলে বিসিএসের পরবর্তী সভাপতি হিসাবে তার দায়িত্ব নেওয়ার কথা রয়েছে। টেকশহরডটকমের সঙ্গে আলোচনায় তিনি পুরো প্যানেলের পক্ষে তুলে ধরেছেন সমিতি নিয়ে ভাবনার কথা।

আরিফ বলেন, আসন্ন নির্বাচন বিসিএসের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। এটির ওপর নির্ভর করছে দেশের তথ্যপ্রযুক্তি বাজার কতটুকু এগুবে। আমরা পুরোনো সকল ধ্যান ধারনা পেছনে ফেলে একটা আমূল পরিবর্তন আনতে চাই। যেটা হবে সুপরিবর্তন। বিসিএসকে প্রকৃত অর্থে ইন্টারঅ্যাক্টিভ সংগঠন হিসেবে গড়ে তুলতে সুনির্দিষ্ট কার্যক্রম হাতে নেওয়া হবে। এগুলো শুধু প্রতিশ্রুতি বা সদস্যদের আলাপ আলোচনার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে না। বাস্তবায়নের পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এ সংগঠক বলেন, সবার জন্য ভালো হবে এমন পরিবর্তনে কাজ করবে বিবিঅ্যান্ডবি প্যানেল। এ জন্য সুপরিকল্পিত রূপরেখা ও পরিকল্পনা বাস্তবায়নের সক্ষমতা এবং অভিজ্ঞতা দরকার। এটি এ প্যানেলের রয়েছে। ব্যবসায়ীরা যাতে একটি লাভজনক ব্যবসার পরিবেশ পান সেদিকে আমাদের মনোযোগ থাকবে।

প্যানেল দলনেতা বলেন, সদস্যদের মধ্যে যোগাযোগ ও কার্যক্রম বৃদ্ধি, দেশে বিদেশে বিসিএসের উজ্জ্বল অবস্থান, অ্যাসোসিও ও ডব্লিউটিএসের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার করার কাজটি করতে হবে।
সংগঠনের হারানো জৌলুস ফিরিয়ে আনা হবে।

BCS Election-TechShohor

তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সকল ধাপে ব্যবসার ভালো পরিবেশ সৃষ্টি করা ও সদস্যদের মধ্যে ঐক্য তৈরিতে একটি শক্তিশালী প্লাটফর্ম গঠন করার কথা জানিয়ে আরিফ বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সব শাখায় সংগঠনের সদস্যদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো নিশ্চিত করা, সংগঠনের কার্যক্রমে সদস্যদের অংশগ্রহণ বাড়ানো, নতুন বাজার সম্প্রসারনে একটি গবেষণা ও জরিপ কার্যক্রম গ্রহণের পাশাপাশি সদস্যদের জন্য ওয়ানস্টপ সেবার ব্যবস্থা করা হবে।

অভিজ্ঞ ও তারুণ্যের সমন্বয়ে প্যানেল করা হয়েছে জানিয়ে কম্পিউটার সোর্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, তাদের কাছে এ খাতের অভ্যন্তরীন উন্নয়ন যেমন প্রাধান্য পাবে, তেমনি জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে বিসিএসের অবস্থা সুসংহত করতে একটি কার্যকর নীতিমালা গ্রহণ করা হবে।

আরিফ বলেন, সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকেও বিসিএসকে আরও কার্যকর করা হবে। তৃণমূল পর্যায়েও তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নকে আমরা গুরুত্ব দেব। একটি যুতসই ওয়ারেন্টি পলিসি, পণ্যের ভ্যাট-ট্যাক্স মওকুফের পরিধি বাড়ানো, গ্রাহক সেবার নিয়শ্চতাসহ একটি স্থিতিশীল বাজার তৈরির চেষ্টা করা হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

Related posts

*

*

Top