Maintance

বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় দেশীয় উদ্যোগ সিমেড হেলথ

প্রকাশঃ ৫:৪০ অপরাহ্ন, অক্টোবর ১, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৫:৪০ অপরাহ্ন, অক্টোবর ১, ২০১৭

তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক স্টার্টআপদের বৈশ্বিক বিনিয়োগকারীদের সামনে তুলে আনার প্রতিযোগিতা সিডস্টারস ওয়ার্ল্ডের ঢাকা পর্বে সেরা হয়েছে সিমেড হেলথ।

বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় লড়তে যাবে সুইজারল্যান্ড। সিডস্টারস ঢাকার আসর নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন ইমরান হোসেন মিলন।

সিডস্টারস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতা

সুইসভিত্তিক গ্রুপ অব কোম্পানিজ সিডস্টারসের লক্ষ্য উদীয়মান অর্থনীতির দেশগুলোতে প্রযুক্তি ও উদ্যোগের মাধ্যমে মানুষের জীবনে ইতিবাচক প্রভাব রাখা। সিডস্টারস ইকোসিস্টেমে স্টেকহোল্ডারদের মধ্যে সংযোগ স্থাপন করার কাজ করে। পাশাপাশি, সরকারি ও ব্যক্তিগত অংশীদারদের সঙ্গে নিয়ে একদম প্রাথমিক পর্যায় থেকে কোম্পানি প্রতিষ্ঠায় কাজ করে এং প্রবৃদ্ধিশীল স্টার্টআপে বিনিয়োগ করে।

স্টার্টআপ স্কাউটিং, কোম্পানি প্রতিষ্ঠা ও অ্যাকসেলেরেটর কর্মসূচিসহ বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটির ৭৫টির বেশি দেশের উদ্যোক্তা, বিনিয়োগকারী, ইনকিউবেটর, করপোরেশন এবং সরকারি কর্মকর্তাদের কাছে পৌঁছানোর সুযোগ করে দেয় সিডস্টারস। দেশে প্রতিযোগিতাটির আয়োজন করে গ্রামীণফোন।

যেসব কাজ করে সিডস্টারস

সিডস্টারস ওয়ার্ল্ড বিশ্বব্যাপী স্টার্টআপ প্রতিযোগিতায় ৭৫টির বেশি উদীয়মান বাজারের মধ্য থেকে চূড়ান্ত মেধাবীদের সোর্সিং করে। তিন মাসব্যাপী ভার্চুয়াল অ্যাকসেলেরেশনের মাধ্যমে তাদের টেককেয়ার করে। ২৫টির বেশি দেশে বিদ্যমান কো-ওয়ার্কিং ও কো-লিভিং স্পেস নেটওয়ার্ক দেয়। সিডস্টারস অ্যাকাডেমি প্রতিষ্ঠা করে টেকসই ব্যবসা গড়ে তুলতে উৎসাহী স্থানীয় উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণে কর্মসূচি নেয়।

কারা অংশ নেয়

সিডস্টারস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে যেকোনো ব্যবসায়িক উদ্যোগ অংশ নিতে পারে। তবে অংশ নিতে কিছু শর্ত মানতে হয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে। উদ্যোগের বয়স দুবছর হতে হবে। এছাড়াও একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ বিনিয়োগ থাকতে হবে।

এমন শর্ত মেনে সিডস্টারস ঢাকা পর্বে অংশ নিতে চলতি বছর আবেদন করেছিল ১৭০ স্টার্টআপ। সেখান থেকে শীর্ষ আট স্টার্টআপ নিয়ে চূড়ান্ত পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। আর চূড়ান্ত পর্বে একটি চ্যাম্পিয়ন ও দুটি দল রানারআপ হয়।

বিজয়ী যারা

স্বাস্থ্যসেবা ভিত্তিক স্টার্টআপ সিমেড হেলথ লিমিটেড বিচারকদের সামনে তাদের উদ্ভাবনের প্রেজেন্টেশন তুলে ধরেন। সেখান থেকেই ঢাকা পর্বে চ্যাম্পিয়ন নির্বাচিত হয় উদ্যোগটি।

সিমেড হেলথ মূলত আইওটি ভিত্তিক ক্লাউড নির্ভর স্বাস্থ্যসেবা প্লাটফর্ম। যা পরিচালনা করে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত তথ্য পর্যলোচানা করে স্বাস্থ্য ঝুঁকি নির্নয় করা যাবে।

সিমেড ডিভাইস স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্যবহারকারীর স্বাস্থ্য সংক্রান্ত তথ্যের রেকর্ড রাখে এবং ব্যবহারকারীদের পরামর্শ প্রদান করে। বর্তমানে সিমেড অসংক্রামক ব্যাধি রোধে স্বাস্থ্যের আটটি গুরুত্বপূর্ণ সংকেত পরিমাপ করতে পারে। সিমেড ব্যবহারের ফলে ব্যবহারকারীরা ডায়াগনিস্টিক সময়, চিকিত্সার খরচ, হাসপাতালে ভর্তির খরচ উল্লেখযোগ্যভাবে কমাতে পারবেন।

এছাড়াও প্রতিযোগিতায় প্রথম রানার আপ হয়েছে রেপ্টো এডুকেশন সেন্টার। যারা দেশের শিক্ষাব্যবস্থার গণতন্ত্রায়নে অনলাইন কোর্স হিসেবে এডুকেশন সেন্টারটি পরিচালনা করেন।

দ্বিতীয় রানারআপ কুকআপ টেকনোলজিস। বাসায় তৈরি খাবারের জন্য এয়ারবিএনবি হচ্ছে ‘কুকআপস’। বাসায় তৈরি সব ধরনের খাবার বেচাকেনার প্ল্যাটফর্ম এটি।

সিমেড অংশ নেবে আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক আসরে

বিজয়ী সিমেড আগামী নভেম্বরে ব্যাংককে সিডস্টারস এশিয়ার রিজিওনাল সামিটে অংশ নেবে। এর পাশাপাশি, সকল ব্যয়ভারসহ আগামী এপ্রিলে সুইজারল্যান্ডে সিডস্টারস গ্লোবাল সামিটে অংশগ্রহণের সুযোগ পাবে।

গ্লোবাল সামিটে সপ্তাহব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে ৭৫ দেশের বিজয়ী এবং বিশ্বের বিভিন্ন বিনিয়োগদাতা ও প্রশিক্ষকদের মধ্যে সাক্ষাতের সুযোগ হবে। সেখানেই নিজেদের ব্যবসায়িক ধারণা উপস্থাপনের মাধ্যমে নিজেদের ব্যবসার মূলধন বিনিয়োগ হিসেবে সর্বোচ্চ ১০ লাখ মার্কিন ডলার জিতে নেয়ার সুযোগ পাবে সিমেড হেলথ।

ঢাকার চূড়ান্ত পর্বে অংশ নেওয়া অন্যান্য উদ্যোগ

আরেকটু : ই-কমার্স সফটওয়্যার ‘আরেকটু’ বাংলাদেশে ফেইসবুকের মাধ্যমে পণ্য বিক্রিতে ১০ হাজারের বেশি ব্র্যান্ডের জন্য সেবা দিচ্ছে।

মাইক্রোটেক ইন্টারঅ্যাকটিভ : অগমেন্টেড রিয়ালিটি প্রযুক্তি ব্যবহার করে শিশুদের আনন্দদানের মাধ্যমে শেখানোর কাজ করে ‘মাইক্রোটেক ইন্টারঅ্যাকটিভ’।

বাড়িকই :  লজিস্টিক ও ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের কার্যকারিতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে ‘বাড়িকই’।

হেড ব্লকস : ভুল মানুষের ওপর বিনিয়োগে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ভুল করে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ। এক্ষেত্রে, প্রতিষ্ঠানের উৎকর্ষে সঠিক মানুষ খুঁজে পেতে সহায়তা করে ‘হেড ব্লকস’।

জলপাই টেকনোলজিস : স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ‘জলপাই টেকনোলজিস’ একটি সামগ্রিক হেলথকেয়ার প্ল্যাটফর্ম যা ডাক্তারের সাক্ষাৎকার, পরামর্শ, ঔষধ ও চিকিৎসার রেকর্ড নিয়ে কাজ করে।

মেঘদূত অ্যানালিটিকস : উদীয়মান অর্থনীতির প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য ক্লাউডভিত্তিক ‘সেলফ সার্ভিস বিআই সল্যুশন’ ব্যবহার করে তাদের ডাটাচালিত প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরে কাজ করে ‘মেঘদূত অ্যানালিটিকস’।

*

*

Related posts/