অভিবাসীদের সামাজিক মাধ্যমের তথ্য নেবে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশঃ সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৭, ০৪:২২ - আপডেটঃ সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৭, ০৫:১১

Symphony 2018

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অভিবাসীদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম খতিয়ে দেখবে যুক্তরাষ্ট্র সরকার। সামাজিক মাধ্যমের কর্মকাণ্ড খতিয়ে দেখতে দেশটির হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগ একটি প্রস্তাব করেছে।

এসব ডাটা শুধু অভিবাসীদের ক্ষেত্রেই নয়, বরং দেশটির কিছু স্থায়ী নাগরিকদের ক্ষেত্রেও পরীক্ষা করবে যুক্তরাষ্ট্র। সেখানে সার্চ মাধ্যমে পাওয়া ব্যক্তির সম্পর্কে তার কর্মকাণ্ড এবং এবং সামাজিক মাধ্যম খতিয়ে দেখা হবে।

এর আগে গত জুনে যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা প্রত্যাশীদের সামাজিক মাধ্যমের ইতিহাস খতিয়ে দেখার কথা জানিয়েছিল মার্কিন দূতাবাসের কর্মকর্তারা। সেখানে ব্যক্তির বিগত ১৫ বছরের ইতিহাস ঘেঁটে দেখার কথা জানায় দূতাবাস।

হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগ এসব কাজের জন্য ফেইসবুক পোস্ট বা গুগল ফলাফল থেকে তথ্য সংগ্রহ করবে। পরে তথ্যগুলো ফেডারেল রেজিস্টারে জমা করা হবে এবং সেখান থেকে একটি প্রবিধাণ প্রণয়ন করা হবে। যার একটি চূড়ান্ত সংস্করণ ১৮ অক্টোবরের মধ্যে কার্যকর করা হবে।

বাজফিড এক প্রতিবেদনে বলেছে, এই কাজগুলো শুধু এখনকার অভিবাসীদের ক্ষেত্রে করা হবে তা নয়, এটি সবুজ কার্ড প্রাপ্তদের ক্ষেত্রেও করা হবে। এমনকি স্বাভাবিক ভাবেই যারা দেশটির নাগরিক তাদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে।

সামাজিক মাধ্যমের ডাটা সংগ্রহ করার আগে এখন বিষয়টি নিয়ে একটি নীতিমালা প্রণয়নের কাজ করছে হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগ। যেটাকে ‘অ্যালাইন ফাইল’ নামে অভিহিত করা হচ্ছে।

প্রস্তাবটি ট্রাম্প প্রশাসনের নতুন নিয়ম অনুসরণ করে। যেখানে বিভিন্ন দেশ থেকে যাওয়া দর্শনার্থীদের সামাজিক মাধ্যমগুলো পর্যালোচনা করার ক্ষমতা রাখে। এমনকি এটি ব্যক্তির ফোন নম্বর পর্যন্ত দেখতে পারবে এমন নিয়মকে সমর্থন করেই করা হচ্ছে।

এমন নীতিমালা ব্যক্তির ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষা দিতে অক্ষম এবং বড় ধরনের ব্যক্তি স্বাধীনতার হুমকী বলে একটি গ্রুপ এক বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে।

ফরচুন অবলম্বনে ইমরান হোসেন মিলন

*

*

সর্বাধিক পঠিত