Maintance

আলিবাবার আগে যেমন ছিলেন জ্যাক মা

প্রকাশঃ ৯:০০ অপরাহ্ন, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১১:২৫ পূর্বাহ্ন, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৭

আনিকা জীনাত, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বিশ্বের লাখো তরুণের কাছে জ্যাক মা এক অনুপ্রেরণার নাম। ই-কমার্স সাইট আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মার ৫৩ তম জন্মদিন ছিলো গত ১০ সেপ্টেম্বর।

নিজ চেষ্টায় চীনের শীর্ষ ধনীতে পরিণত হওয়া জ্যাক মার ব্যক্তিগত জীবনের কিছু তথ্য নিয়ে সাজানো হয়েছে আজকের ফিচার।

ঝগড়াটে স্বভাব
ছোট বেলা থেকেই তিনি ছিলেন পাতলা ছিপছিপে গড়নের। তবু প্রায়ই সময়ই তিনি তার সহপাঠীদের সঙ্গে মারামারিতে জড়িয়ে পরতেন। তাকে নিয়ে লেখা আলিবাবা বইয়ে তিনি বলেছেন, প্রতিপক্ষের কেউ আমার চেয়ে লম্বা চওড়া গড়নের হলেও আমি কখনও ভয় পেতাম না।

ঝিঁঝিঁ পোকা ধরার নেশা
২০১৪ সালে ‘জ্যাক মা: ফাউন্ডার ও সিইও অব দ্য আলিবাবা গ্রুপ’ নামে একটি বই লিখেছিলেন তার বন্ধু চ্যান ইউ। সেখানে চ্যান জানান, ছোটবেলায় ঝিঁঝিঁ পোকা ধরার বাতিক ছিলো জ্যাক মার। ঝিঁঝিঁ পোকার বিষয়ে তিনি এতটাই বিশেষজ্ঞ ছিলেন যে শুধু ডাক শুনেই বলে দিতে পারতেন পোকাটির আকার কিরকম কিংবা সেটি কোন প্রজাতির।

আসল নাম
ইংরেজি ভাষা শিখতে নিজ শহর হাংঝুতে তিনি টুরিস্ট গাইডের কাজ করতেন। সেখানে এক টুরিস্টের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব হয়ে যায়। ওই টুরিস্টই তাকে ‘জ্যাক’ নামে ডাকা শুরু করেন। সেই থেকে মা ইউন হয়ে যান জ্যাক মা।

JAck-ma-and-His-Wife-techshohor
স্ত্রীর সঙ্গে জ্যাক মা

ব্যক্তিগত জীবন
জ্যাক মা বিয়ে করেছেন তারই সহপাঠী ঝাং ইংকে। হ্যাংঝু নরমাল ইউনিভার্সিটিতে তারা একইসঙ্গে পড়তেন। তাদের বিয়ে হয় আশির দশকে। দুজনেই তারা শিক্ষক হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেন। বৈবাহিক জীবনে তারা এক ছেলে ও এক মেয়ের বাবা-মা।

পরীক্ষায় ফেল
হাই স্কুলের পড়া শেষ করে তিনি হাংঝুর টিচার্স ইন্সটিটিউট কলেজে ভর্তি হওয়ার আবেদন করেন। কিন্তু ভর্তি পরীক্ষায় তিনি পাশ করতে পারেননি। দুবার ফেল করার পর তৃতীয় চেষ্টায় তিনি ভর্তি হতে পেরেছিলেন।

চাকরি হয়নি কেএফসিতে
কেএফসি যখন প্রথম বার চীনে তাদের রেঁস্তোরার শাখা খোলে তখন জ্যাক মা সেখানে চাকরির আবেদন করেছিলেন। ২৪ জন প্রার্থীর মধ্যে প্রত্যেকেই চাকরি পেলেও নাকচ করে দেওয়া হয়েছিলো জ্যাক মাকে। পরবর্তীতে স্থানীয় একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি ইংরেজির শিক্ষক হিসেবে চাকরি জীবন শুরু করেন।

হাভার্ড পড়ার স্বপ্ন
তিনি হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার জন্য ১০ বার আবেদন করেছিলেন। কিন্তু প্রতিবারই তাকে ব্যর্থ হতে হয়।

গ্যাজেটস নাউ থেকে

*

*

Related posts/