Maintance

ফেইসবুকে শ্রদ্ধায় সিক্ত আবদুল জব্বার

প্রকাশঃ ১:৩৫ অপরাহ্ন, আগস্ট ৩০, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১:৩৫ অপরাহ্ন, আগস্ট ৩০, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ‘সালাম সালাম হাজার সালাম’, ‘তুমি কী দেখেছো কভু, জীবনের পরাজয়…’ কিংবা ‘ওরে নীল দরিয়া আমায় দে রে দে ছাড়িয়া’ যার কণ্ঠে অগ্নি ঝরার মতো শোনাতো সেই আবদুল জব্বার পরাজয় মানলেন জীবনের কাছে। জীবনযুদ্ধে হার মানলেও তিনি হারেননি, তার গানেই তিনি বেঁচে থাকবেন। বেঁচে থাকবেন লাল-সবুজের পতাকার রঙে, স্বাধীনতার রঙে।

স্বাধীন বাংলা বেতারের অন্যতম শিল্পী, কণ্ঠযোদ্ধা আবদুল জব্বারের মৃত্যুর পর এমন আবেগী একটি পোস্ট দিয়েছেন এক ফেইসবুক ব্যবহারকারী। মোরসালিন মাহমুদ নামের ওই ব্যক্তির দেওয়া ফেইসবুক পোস্টে আবদুল জব্বারের বেশ কয়েকটি গানের কথাও বলেছেন যেগুলো মুক্তিযুদ্ধকালীন বাংলাদেশের হাজারো যোদ্ধাকে অনুপ্রাণিত করতো।

 শুধু মোরসালিন নয়, শত হাজারে ফেইসবুক ব্যবহারকারী কণ্ঠ মুক্তিযোদ্ধা আবদুল জব্বারের মৃত্যুতে এমন পোস্ট দিয়েছেন ফেইসবুকে। অনেকে আবার শুধু ছবি দিয়েও তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছেন।

Abdul-jabbar-techshohor

বাদল খান নামের একজন একটি ছবি পোস্ট করেছেন। বঙ্গবন্ধু পাশে বসে রয়েছেন আর আবদুল জব্বার গান রেকর্ড করছেন। ছবিতে তিনি ক্যাপশন দিয়ে লিখেছেন, তার গানেই বেঁচে থাকবেন তিনি, যেখানেই থাকবেন ভালো থাকবেন।

আবু হোসাইন বিপু নামের একজন আবদুল জব্বারের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে লিখেছেন, ভালো থাকবেন, বাংলাদেশ তোমাকে মনে রাখবে তোমার সৃষ্টি দিয়ে।

আবদুল জব্বার বুধবার সকাল ৯টা ২০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধ শুরু হলে তিনি বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের মনোবল ও প্রেরণা জোগাতে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে ‘সালাম সালাম হাজার সালাম’, ‘জয় বাংলা বাংলার জয়’সহ অসংখ্য গানে কণ্ঠ দেন। তার গানে অনুপ্রাণিত হয়ে অনেকেই মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেছিলেন।

এ ছাড়াও যুদ্ধের সময় দেশের পক্ষে তহবিল সংগ্রহে ও দেশের স্বাধীনতাযুদ্ধের পক্ষে জনমত তৈরিতে কাজ করেন। তখন কলকাতায় অবস্থিত বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের ক্যাম্প ঘুরে প্রেরণা জোগাতে হারমোনিয়াম বাজিয়ে গণসংগীত পরিবেশন করেছেন। সে সময় গণসংগীত গেয়ে প্রাপ্ত ১২ লাখ রুপি তিনি স্বাধীন বাংলাদেশ সরকারের ত্রাণ তহবিলে দান করেছিলেন।

সংগীতে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ আবদুল জব্বার ১৯৮০ সালে একুশে পদক ও ১৯৯৬ সালে স্বাধীনতা পুরস্কার পান।

১৯৩৮ সালের ৭ নভেম্বর কুষ্টিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন আবদুল জব্বার।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*