মুনাফার অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধের উদ্যোগ নেবেন সুব্রত সরকার

আল আমীন দেওয়ান : দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সবচেয়ে বড় সংগঠন বিসিএসের ২৯ মার্চের নির্বাচনকে সামনে রেখে টেকশহরডটকমের সিরিজ প্রতিবেদনের সঙ্গে থাকছে বর্তমান ও সাবেক নেতা, প্রার্থী ও ভোটারদের সঙ্গে আলাপচারিতা।

নির্বাচনকে ঘিরে অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস) সদস্যরা এখন বেশ আলোচনায় আছেন। ভোটের প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা ভোটার-সদস্যদের সঙ্গে সংগঠনের অতীত, বর্তমান, ভবিষ্যতের বিষয়-আশয় নিয়ে আলাপচারিতায় ব্যস্ত।

নির্বাচনের এ ডামাডোলের মধ্যে টেকশহরডটকমও তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বৃহত্তম এ সংগঠনের বর্তমান হালচাল, প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতি, ভোটারদের চাওয়া পাওয়ার বিষয়ে জানতে কথা বলেছে অনেকের সঙ্গে। এ প্রতিবেদনে থাকছে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকারের সঙ্গে আলাপচারিতার চুম্বক অংশ।

Eng subroto_techshohor

সিঅ্যান্ডসি ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের সিইও ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকার বর্তমানে মাল্টিপ্লান কম্পিউটার সিটি সেন্টারের মহাসচিব। ভারত থেকে ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশনে স্নাতক ডিগ্রীধারী এ সংগঠক তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সঙ্গে জড়িত দীর্ঘদিন থেকে।

স্বতন্ত্র এ প্রার্থী টেকশহরডটকমকে জানিয়েছেন বিসিএস নিয়ে তার পরিকল্পনা ও সদস্যদের প্রতি প্রতিশ্রুতির কথা।

দেশের আইসিটি খাতকে এগিয়ে নিতে বৃহত্তম সংগঠন হিসাবে বিসিএসের ভূমিকাকে আরও কার্যকর করতে চান সুব্রত সরকার। তিনি মনে করেন, এ সংগঠনের সঙ্গে সফটওয়্যার, হার্ডওয়্যারসহ আইসিটির সংশ্লিষ্ট সব ব্যবসায়ীরা সম্পৃক্ত। এ কারণে সংগঠনটি সরকারের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সমঝোতা, সদস্যদের দাবি, সমস্যা অর্থাৎ ব্যবসায়ীদের স্বার্থ সংরক্ষণের গুরুত্বপূর্ণ কাজটি করে থাকে।

সিঅ্যান্ডসি ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের সিইও বলেন, বিসিএসের নেতৃত্বে এমন নেতা দরকার- যিনি এ খাতের বিভিন্ন পর্যায়ের যোগাযোগে ডিপ্লোমেটিক হবেন। সাংগঠনিক দক্ষতা থাকবে। সদস্যদের কল্যাণে বিভিন্ন পদক্ষেপ বাস্তবায়নে জোরালো ভূমিকা নিতে পারবেন। একই সঙ্গে তিনি এ খাতের খুঁটিনাটি বিষয়গুলোও জানবেন।

আইসিটি মার্কেটের বর্তমান পরিস্থিতিতে ব্যবসায়ীদের মধ্যে এক ধরণের অসুস্থ প্রতিযোগিতা চলছে উল্লেখ করে সুব্রত বলেন, এতে ক্ষুদ্র ও বড় ব্যবসায়ীরা যেমন বিপদে পড়েছেন তেমনি এ খাতটিও ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। একই খাতে নিজেদের মধ্যে অসুস্থ মুনাফার প্রতিযোগিতা শুরু হলে তা অনিশ্চয়তা তৈরি করে।

মাল্টিপ্ল্যান সিটির মহাসচিব বলেন, এ অবস্থা থেকে উত্তরণের চেষ্টা থাকবে আমার। কিভাবে ব্যবসায় উন্নতি করতে হবে, ঝুঁকিতে টিকে থাকতে হবে, অসুস্থ প্রতিযোগিতায় না নেমেও মুনাফার নিয়শ্চতা পাওয়া যাবে সেজন্য জাতীয়, আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের দিয়ে সচেতনতামূলক কার্যক্রম নিতে চাই। ওয়ারেন্টি পলিসি নিয়েও একটা সিদ্ধান্তে আসতে হবে আমাদের, এটা নিয়ে অনেক সময় গড়িয়েছে।

সাধারণ সদস্যদের কল্যাণে কাজ করবেন জানিয়ে সুব্রত বলেন, বিভিন্ন পরিস্থিতিতে ব্যবসার অবস্থা খারাপ হতে পারে। এ থেকে সদস্যদের উত্তরণের জন্য উদ্যোগ নিতে হবে।

BCS Election-TechShohor

কম্পিউটার ব্যবসায়ীদের ব্যাংক ঋণের ব্যবস্থা করতে বিসিএস গ্যারান্টার হতে পারে উল্লেখ করে এ সংগঠক বলেন, ঋণের পরিমান এক কোটি টাকার কম হবে। সদস্যরা এ অর্থ নিজেদের ব্যবসাকে রক্ষা বা সম্প্রসারণে কাজে লাগাচ্ছে কি-না তা পর্যবেক্ষণে সমিতির পক্ষ থেকে মনিটরিং ব্যবস্থাটাও রাখতে হবে। নির্বাচিত হলে এ বিষয়ে কাজ করার কথা জানান তিনি।

সুব্রত নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি হিসাবে সদস্যদের জন্য একটি ক্লাব করার উদ্যোগ নেওয়ার কথা জানান। তিনি বলেন, ঢাকার বাইরের সদস্যরা আসলে তাদের এখানে সেখানে থাকতে হয়। এ ছাড়া সমিতির বিভিন্ন কাজেও একটি গেস্টহাউজ দরকার।

খুব সম্প্রতি সদস্যদের জন্য চালু কল্যাণ তহবিলের পরিধি বাড়াতেও কাজ করবেন তিনি যাতে ব্যবসায়ীরা উপকৃত হয়। কম্পিউটার পণ্যের ভ্যাট-ট্যাক্সের বিষয়টিরও একটা সুরাহা করতে উদ্যোগ নেওয়ার কথা জানান তিনি।

Related posts

*

*

Top