Maintance

জিপি অ্যাক্সেলারেটরে তিন উদ্যোগ, নতুন ব্যাচের যাত্রা

প্রকাশঃ ৭:১২ অপরাহ্ন, আগস্ট ৯, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৬:৪৬ অপরাহ্ন, আগস্ট ৯, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : গ্রামীণফোন অ্যাক্সেলারেটরের তৃতীয় ব্যাচের সমাপনী ও চতুর্থ ব্যাচের যাত্রা শুরু হয়েছে।

বুধবার জিপি হাউজে চার মাসের মেন্টরশিপের পর স্টার্টআপগুলো বিনিয়োগকারীদের কাছে তাদের ব্যবসাকে উপস্থাপন করে। একই প্ল্যাটফর্মে চতুর্থ ব্যাচের নতুন পাঁচটি স্টার্টআপকে স্বাগত জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, ডিজিটাল দেশ গঠন এবং ডিজিটাল লাইফস্টাইলের জন্য ডিজিটাল পণ্য ও সেবা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সরকার এক্ষেত্রে সহায়তা করার চেষ্টা করছে এবং গ্রামীণফোনও এসে এগিয়ে আসায় আমরা আনন্দিত।

প্রতি ব্যাচ থেকে নির্বাচিত স্টার্টআপকে সিড ফান্ড হিসেবে ১২ লাখ টাকা, প্রায় হাজার মার্কিন ডলার মূল্যের অ্যামাজন ওয়েব সার্ভিস (এডব্লিউএস) ক্রেডিট এবং চার মাসব্যাপী জিপি হাউজে কাজ করার জায়গা দেয়া হয়।

GPA_batch-techshohor

এ সময়ের মধ্যে বিনিয়োগকারীদের নজরে আসা, খাত সংশ্লিষ্ট পেশাদারদের দ্বারা যাচাই-বাছাই এবং নিজেদের প্রকল্পটি বাণিজ্যিককরণের লক্ষে সবরকম আর্থিক সহযোগিতা পাওয়ার সুযোগ পেয়ে থাকে স্টার্টআপগুলো। এদের মধ্যে দুটি প্রতিষ্ঠান আগামী সেপ্টেম্বরে টেলিনর গ্রুপ আয়োজিত ডিজিটাল উইনার এশিয়ায় অংশ নেয়ার মাধ্যমে এশিয়ার অন্যান্য দেশে নিজেদের ব্যবসা বিস্তারের সুযোগ পাবে।

তৃতীয় ব্যাচের তিনটি স্টার্টআপ জলপাই, মাইক্রোটেক ও ব্যাংককম্পেয়ারবিডি স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারী, পেশাদার প্রযুক্তিবিদ, গ্রামীণফোন ও এসডি এশিয়ার উর্দ্ধতন কর্মকর্তা এবং মিডিয়া ব্যক্তিত্বের  সামনে তাদের ধারণা প্রদর্শন করে। চতুর্থ ব্যাচের স্টার্টআপরাও অতিথিদের সামনে নিজেদের পরিচিতি তুলে ধরে।

চতুর্থ ব্যাচের শীর্ষস্থানীয় স্টার্টআপগুলো হচ্ছে অল্টারইউথ, ফুডটং,অভিযাত্রিক, মার্স এবং আমারউদ্যোগ।

নতুন ব্যাচকে স্বাগত জানিয়ে গ্রামীণফোনের সিইও মাইকেল ফোলি বলেন, নতুন বাস্তবতার সাথে তাল মেলাতে আমরা আমাদের ব্যবসার জন্য একটি ইকো সিস্টেম গড়ে তুলতে চেষ্টা করছি এবং আপনাদের উদ্ভাবিত সেবাগুলো আমাদের নেটওয়ার্কে চলে এবং গ্রাহকদের নতুন চাহিদা মেটাতে সাহায্য করে।

অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের ট্রান্সফরমেশন বিভাগের প্রধান কাজি মাহবুব হোসেন, জিপি অ্যাক্সেলারেটর প্রোগ্রামের প্রধান মিনহাজ আনোয়ার, এসডি এশিয়ার প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মুস্তাফিজুর আর খানসহ অন্যান্যরা বক্তব্য রাখেন।

ইমরান হোসেন মিলন

 

*

*

Related posts/