Maintance

দেশ-বিদেশের সিইওদের সংযোগে সরকারি উদ্যোগ

প্রকাশঃ ১১:৫২ অপরাহ্ন, জুলাই ৩১, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১:১৭ পূর্বাহ্ন, আগস্ট ১, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশ-বিদেশের তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সিইওদের সংযোগ ঘটিয়ে বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান বাড়াতে নতুন উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) এলআইসিটি প্রকল্পে ‘স্ট্র্যাটেজিক সিইও আউটরিচ প্রোগ্রাম’ নামে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

সোমবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে এই কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সরকার যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বোস্টন কনসালটিং গ্রুপের (বিসিজি) সহযোগিতায় এই প্রোগ্রাম বাস্তবায়ন করছে।

‘বিসিজি আগামী দু’বছর দেশের তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সিইওদের সঙ্গে বিদেশের তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের সিইওদের যোগাযোগ ও ব্যবসায়িক সম্পর্ক তৈরি করে এই খাতে বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থান বাড়াবে।’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, দেশের অর্ধেকেরও বেশি তরুণ প্রজন্মকে কেন্দ্র করে সকল কৌশল নির্ধারণ করা হচ্ছে। ফলে ইন্টারনেট অব থিংস, অ্যানালিটিকস্, সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট, ক্লাউড, মোবাইল প্রযুক্তি, রোবোটিকস, নলেজ প্রসেস আউটসোর্সিং(কেপিও) ইত্যাদি খাতে ক্রমবর্ধমান বৈশ্বিক প্রযুক্তি শিল্পে নিজেদেরকে সম্পৃক্ত করার লোকবল তৈরি হচ্ছে।

বছরে সাড়ে ৪ লাখ শিক্ষার্থী স্নাতক পাশ করছে এবং দেশে ১০ কোটি কর্মক্ষম জনশক্তির সরবরাহ আছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আইটি ও আইটিএস খাতে ২০২৪ সাল পর্যন্ত কর অবকাশ দেয়া হয়েছে বলেই বাংলাদেশ আজ সর্বনিম্ন খরচের গন্তব্যে পরিণত হয়েছে।

সভাপতির বক্তব্যে তথ্যপ্রযুক্তি সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী বলেন, দেশের বিকাশমান প্রযুক্তি খাতের জন্য বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি দুটিই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সিইও আউটরিচ প্রোগ্রামের মাধ্যমে দেশের প্রযুক্তি খাত আরও বিকশিত হবে।

অনুষ্ঠানে দুটি উপস্থাপনায় এই উদ্যোগের বিস্তারিত তুলে ধরেন বিসিজির পার্টনার  কুয়ালালামপুর চ্যাপ্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জারিফ মুনীর ও নয়াদিল্লী চ্যাপ্টারের পরিচালক বিকাশ জৈন।

এলআইসিটি প্রকল্পের কম্পোনেন্ট টিম লিডার সামি আহমেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট ডেভেলপমেন্ট অথরিটির চেয়ারম্যান কাজী আমিনুল ইসলাম, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান নজিবুর রহমান, বাংলাদেশ ব্যাংক, শিল্প প্রতিষ্ঠান ও তথ্যপ্রযুক্তি খাত সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়িক সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

আল-আমীন দেওয়ান

*

*

Related posts/