Maintance

দেশের তথ্যপ্রযুক্তি উন্নয়ন তথ্যে জাতিসংঘের সংস্থা হালনাগাদ নয়

প্রকাশঃ ৬:৩৭ অপরাহ্ন, জুলাই ৭, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১১:১০ অপরাহ্ন, জুলাই ৮, ২০১৭

ইমরান হোসেন মিলন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশে এখন প্রতি ১০০ জনে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৪৪ জন। ১৬ কোটি জনসংখ্যার দেশে সর্বশেষ হিসাবে সক্রিয় মোবাইল গ্রাহক রয়েছেন ১৩ কোটি ৩৫ লাখ।

অথচ  জাতিসংঘের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের অর্থনৈতিক ও সামাজিক কমিশনের (এসক্যাপ) আঞ্চলিক ইন্সটিটিউট দ্যা ইউনাইটেড ন্যাশন এশিয়ান অ্যান্ড প্যাসিফিক ট্রেনিং সেন্টার ফর ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি ফর ডেভেলপমেন্ট (ইউএন-এপিসিআইসিটি) বলছে বাংলাদেশে প্রতি ১০০ জনে ইন্টারনেট ব্যবহার করে মাত্র ৫ জন।

মোবাইল ফোন ব্যবহারের হারের তথ্যেও এপিসিআইটিতে বলা হচ্ছে এটি শতকরা ৫৬ দশমিক ৪৮ জন।

বিষয়টি নিয়ে টেকশহরডটকমের এক জিজ্ঞাসায় ইউএন-এপিসিআইসিটি এর পরিচালক হুয়েন সুক-রি বলছেন, ‘জাতিসংঘের অধীন প্রতিষ্ঠানে যদি এমন ব্যাকডেটেড তথ্য দেওয়া হয় তাহলে সেটি দুঃখজনক।’

তথ্যপ্রযুক্তিতে ব্যক্তি ও প্রাতিষ্ঠানিক দক্ষতা উন্নয়নের মাধ্যমে বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নে কাজ করা জাতিসংঘের এই প্রতিষ্ঠানের তথ্যে বাংলাদেশে কম্পিউটার ব্যবহারকারীর হার ৩ দশমিক ০৮, ডটবিডি ডোমেইনে সাইট নিবন্ধন ৫৯৮৭টি, ইন্টারনেট ইন্টারন্যাশনাল ব্যান্ডউইথ ২৪ দশমিক ৭৮ জিবিপিএস উল্লেখ করে রাখা হয়েছে।

আর এসব তথ্য ২০০৯-১০ সালের ডিজিটাল রিভিউ অব এশিয়া প্যাসিফিক সোর্সে উল্লেখ করা । এর মধ্যে অনেক তথ্য ২০০৭ সালের হিসাবে।

অথচ বর্তমানে ডটবিডি ডোমেইন নিবন্ধন ৩৬ হাজার ছাড়িয়েছে। ব্যান্ডউইথের ব্যবহার ৪২১ জিবি। অন্যান্য উন্নয়ন সূচকও বাংলাদেশ এগিয়ে গেছে বিস্ময়করভাবে।

নীতি নির্ধারক ও খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, জাতিসংঘের মতো জায়গায় বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের ডিজিটাল ডেভেলপমেন্টের তথ্যগুলোর হালনাগাদ উপস্থাপনা না থাকলে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের উন্নয়নের স্বীকৃত প্রচার ও ব্র্যান্ডিং, বিনিয়োগে আগ্রহীদের বিভ্রান্ত করতে পারে।

তবে হুয়েন সুক-রি টেকশহরডটকমকে জানান, এপিসিআইসিটি জাতিসংঘের প্রকৃত একটি সংস্থা যেটি তথ্যপ্রযুক্তি নিয়ে কাজ করে। তবে আমরা যেসব ডেটা বা তথ্য সরবরাহ করে থাকি সেগুলো সবই হালনাগাদ।’

তথপ্রযুক্তিখাতে বাংলাদেশের বর্তমান অগ্রগতি ও এপিসিআইটির উল্লেখিত তথ্যের ব্যাপক পার্থক্যের বিষয়টি উল্লেখ করলে তিনি জানান, ‘এটা ঠিক অনেক দেশের তুলনায় বাংলাদেশে মোবাইল এবং ইন্টারনেট ব্যবহারের পরিমাণ অনেক বেশি। এপিসিআইসিটির দৃষ্টিকোণ থেকেও বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তির অবকাঠামো অন্যান্য দেশের তুলনায় খুবই উন্নত। নানা সংস্থা ও সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় এখন এর সঙ্গে যুক্ত হয়ে কাজ করছে।’

ইউএন-এসক্যাপ এ বাংলাদেশ ভালো করছে উল্লেখ করে জাতিসংঘ অধীন প্রতিষ্ঠানটির এই পরিচালক বলেন, আমরা চেষ্টা করছি বাংলাদেশের এমন উন্নয়নকে বিভিন্ন দেশে অংশীদারের মাধ্যমে তুলে ধরতে।

*

*

Related posts/