Maintance

পরিবর্তনের ১০ বছরে আইফোন

প্রকাশঃ ৬:০১ অপরাহ্ন, জুন ২৯, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৬:০৪ অপরাহ্ন, জুন ২৯, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাজারে আসছে আইফোন ৮। সেপ্টেম্বরে ডিভাইসটি অনেক পরিবর্তন আর নতুন নতুন ফিচার সুবিধা দিয়ে বাজারে আনতে অ্যাপল ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে।

তবে আসল খবর হলো আইফোন তাদের যাত্রার ১০ বছর পূর্তি করেছে। ২৯ জুলাই ২০০৭ সালে যাত্র করেছিল আইফোন। যে যাত্রায় তারা নিজেদের পরিবর্তন করেছে আমূল।

দীর্ঘদিন ধরে রেখেছিল ফোনের বাজারে নিজেদের শীর্ষস্থান। বিক্রি করেছে শতকোটিরও বেশি।  শুরুতে ছিল না অ্যাপস্টোর, ছিল শুধুই এটিঅ্যান্ডটি নেটওয়ার্কে সীমাবদ্ধ। এখন রয়েছে নিজেদের অ্যাপ স্টোর

এমন কী শুরুতে বিক্রির অবস্থা এতোটাই খারাপ ছিল যে, একটা পর্যায়ে ফোনের দাম কমিয়ে দিতে বাধ্য হয় অ্যাপল।

ApplesiPhoneturns10bumpytechshohor

অ্যাপলে ডিভাইসটি নির্মাণের পেছনে থাকাদের একজন টনি ফেডাল সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে বলেন,  প্রথম বছরে অ্যাপলের ব্যবসায় মডেলটি একটি দুর্যোগ ছিল। দ্বিতীয় বছর তারা এটি বুঝতে পারে আর ঘুরে দাঁড়ায়।

এক দশক আগে অ্যাপলের কিছু সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের জন্য আইফোনের ধারণা ‘অবাক করা’ কিছুই ছিল। যদিও, সে সময় স্টিভ জবসের নেতৃত্বে থাকা অ্যাপল তার মধ্যেই আইপড দিয়ে কম্পিউটারকে ছাড়িয়ে যায়।

শুরুর দিকের আইফোনগুলোতে স্থান শনাক্তকারী প্রযুক্তি সরবরাহ করত স্কাইহুক। এ প্রতিষ্ঠানের ডেভিড বায়েরস্টো বলেন, স্টিভ জবস আমাদের প্রধান নির্বাহী ও প্রতিষ্ঠাতাকে ডাকতে যে ভয়েসমেইল পাঠিয়েছিলেন, তা এখনও আমাদের কাছে আছে। তিনি (স্কাইহুক প্রধান) ভেবেছিলেন তার সঙ্গে অফিসের কেউ তামাশা করছেন আর স্টিভ জবসকে ফিরতি কল করতে তিনি দুই দিন সময় নেন।

২০০৮ সালে অ্যাপ স্টোর উন্মোচন করে অ্যাপল, নতুন উচ্চতায় উঠে যায় আইফোন। এই স্টোরে অ্যাপ নির্মাতাদের আইফোনের জন্য অ্যাপ বানানো ও বিতরণের সুযোগ দেয়। অ্যাপ নির্মাতাদের যে কোনো আয় থেকে একটা অংশ অ্যাপল কেটে রাখে। এখন এটাই হয়ে উঠেছে অ্যাপলের আয়ের অন্যতম উৎস। ২০১৬ সালে এ খাত থেকে প্রতিষ্ঠানটির আয় হয়েছে দুই হাজার ৪৩০ কোটি ডলার।

আইফোন ৮ এর বিল্টইন হিসেবে ওয়্যারলেস চার্জার থাকবে বলে বলেছে প্রতিষ্ঠানটির একজন কর্মকর্তা।

ওই কর্মকর্তা বলেন, পানি নিরোধী এবং ওয়্যারলেস চার্জিংয়ের মতো নতুন ফিচারগুলোতে এখন ভিন্নতা দরকার এবং পানি নিরোধী ফিচার আইফোন অ্যাসেম্বল প্রক্রিয়াও কিছুটা পরিবর্তন করবে।

সেই সঙ্গে এই ডিভাইসটিতে আনা হতে পারে ৩-ডি ম্যাপিং সেন্সর আর ‘অগমেন্টেড রিয়ালিটি’ আপ ব্যবহারের সুবিধা।

দশম কবছরে এসেও আইফোনের অন্যতম প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বি গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ফোন। যদিও এখন পর্যন্ত আইফোনই সবচেয়ে দামি স্মার্টফোন। আর এমন দামি হয়েও তারা অনেক সময়ই বাজারে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছিল।

এমনকি গত বছরেও আইফোন সবচেয়ে বেশি রাজস্ব করেছে ২৪ দশমিক তিন বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

তবে এর সবকিছুই সম্ভব হয়েছে অ্যাপলের প্রতিষ্ঠাতা স্টিভস জবসের কারণে বলে এক বাক্যে স্বীকার করে নেন প্রতিষ্ঠানটির সব পর্যায়ের কর্মীরা।

রয়টার্স অবলম্বনে ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/