Maintance

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিত হয়েছে : পলক

প্রকাশঃ ১০:৪৮ অপরাহ্ন, মে ১৮, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১০:৪৮ অপরাহ্ন, মে ১৮, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে এবং ইলেকট্রনিক-অভিঘাত (ই-রেজিলিয়েন্স) বৃদ্ধিতে এবং দুর্যোগকালীন অবস্থা মোকাবিলায় তথ্যপ্রযুক্তি মূল ভূমিকা পালন করছে বলে বলেছেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

তিনি বলেন, আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর সমাজ ব্যবস্থাপনায় তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার অপরিহার্য এবং বর্তমানে দুর্যোগকালীন যোগাযোগ, উদ্ধারকার্য এবং দুর্যোগ-উত্তর পুনর্গঠন কার্যক্রমে বাংলাদেশ সরকার তথ্যপ্রযুক্তিকে অতীব জরুরি মাধ্যম হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। ফলে, আগাম সতর্কতা সংকেত, জরুরি অবস্থায় স্যাটেলাইট যোগাযোগ, ক্ষয়ক্ষতি ও ধ্বংসযজ্ঞ নিরূপণে অ্যারিয়েল ও স্যাটেলাইটে ধারণকৃত ছবি এবং সমন্বিত উদ্ধারকাজে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও বিশেষায়িত অ্যাপ ব্যবহার করছে।

PIC-UNESCAP-techshohor

বৃহস্পতিবার বিকালে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে ইউনাইটেড ন্যাশনস ইকোনোমিক অ্যান্ড সোশ্যাল কমিশন ফর এশিয়া অ্যান্ড দ্যা প্যাসিফিক(ইউএনএসকাপ) এর ৭৩তম কমিশন সেশনের ‘বিল্ডিং রেজিলিয়েন্স ফর ওয়াটার-রিলেটেড ডিজাস্টার রিস্কস শীর্ষক সাইড ইভেন্টে এসববলেন।

প্রতিমন্ত্রী পলক এ সময় বলেন, সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ কার্যক্রমের আওতায় ২০২১ সালের মধ্যে শতভাগ জনগণকে ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় এবং ৫০ ভাগ জনগণকে ব্রডব্যান্ড সংযোগের আওতায় নিয়ে আসতে বর্তমান সরকার কাজ করে চলেছে।

এর আগে প্রতিমন্ত্রী বৃহস্পতিবার সকালে হাই-লেভেল ডায়ালগ অন রিজিওনাল ইকোনমিক কোঅপারেশন অ্যান্ড ইন্টিগ্রেশন ইন সাপোর্ট অব দ্য ২০৩০, এজেন্ডা ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট শীর্ষক এক আলোচনায় প্যানেলিস্ট হিসেবেও অংশ নেন।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/