Maintance

মোবাইল গেইমে গলি ক্রিকেট গুপ্তধনের খোঁজ

প্রকাশঃ ১:১৮ অপরাহ্ন, মে ১৩, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১:২৩ অপরাহ্ন, মে ১৩, ২০১৭

ইমরান হোসেন মিলন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের গেইম ডেভেলপারদের জন্য নতুন একটি প্লাটফর্ম তৈরি করছে গ্রামীণফোন ও হোয়াইট বোর্ড। নতুন এই প্লাটফর্মটির নাম ‘গেইম জ্যাম’। প্লাটফের্মটির উদ্দেশ্য দেশের বাজারের উন্নয়নের সঙ্গে বিশ্বমানের গেইম তৈরি করা। প্রথমবারের এই আয়োজনে পার্টনার হিসেবে সহযোগিতা করেছে সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ।

গেইম জ্যামের প্রথম যাত্রায় প্রাথমিকভাবে ২৫টি দল মূল প্রতিযোগিতার সুযোগ পায়।  ২৯ এপ্রিল দিনব্যাপী বুট ক্যাম্প এবং ৭ মে ৩৬ ঘণ্টার চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা শেষে সেরার স্থান পায় পাঁচটি গেইম আইডিয়া।

আর জুলাইয়ের মধ্যে গেইমারদের উল্লাস যোগাতে আসছে গেইমগুলো।

ইনফেক্টেড

ইনফেক্টেড নামের অ্যাকশন ধর্মী গেইমটি তৈরি করেছে টিম রিবুট। এক বিজ্ঞানী ঢাকায় বসে একটি প্রাণঘাতী ভাইরাস তৈরি করেন। যা ছড়িয়ে দিতে থাকেন কিছু মানুষের মাধ্যমে। তারা চেষ্টা করে চলেছে ঢাকার মধ্যে ঢোকার। কিন্তু তারা মানবজাতির জন্য খুবই ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে পারে। তাই তাদের বিনাশ সাধন জরুরী।

বিষয়টি একটি গেইমের মধ্য দিয়ে তুলে ধরতে অ্যাকশনধর্মী মোবাইল গেইম তৈরি শুরু করে টিম রিবুট। ছয় সদস্যের এই দলে আছেন রেজাউল হাসান ইভান, জিসান হায়দার জয়, মেহরাজ মারুফ, আব্দুল্লাহ আল মামুন, মো. ইমদাদুল হক এবং মো. সৈকত আজাদ।

দলটির একজন সদস্য মো. ইমদাদুল হক বলেন, তাদের এই গেইমটি প্রাথমিক অবস্থায় ঢাকাকে ছয়টি অথবা সাতটি জোনে ভাগ করে সাজানো হচ্ছে। ইতোমধ্যে গুলশান এলাকাকে দুটি জোনে ভাগ করে প্রকৃত ম্যাপের সঙ্গে মিলিয়ে করা হচ্ছে।

Gamejames-gp-wb-Techshohor

তিনি বলেন, এটি একটি থার্ড পারসন শুটিং গেইম। যেখানে একক, যৌথ এবং কমবাইন্ড ভাবে লোকালয়ে আসতে চাওয়া ভাইরাস আক্রান্তদের গুলি করে মারতে পারবে গেইমাররা। এখানে গেইমার একজন সৈনিক হয়ে তাদের বিনাশ সাধনে মত্ত হবে। আর যত বেশি মারতে পারবে তত বেশি স্কোর।

দলটির সদস্যরা সবাই বেসরকারি ইন্ডিপেনেডন্ট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের শিক্ষার্থী।

গলি ক্রিকেট
দেশের জনপ্রিয় খেলা ক্রিকেটকে মূল ধরে গলি ক্রিকেট নামের গেইমটি তৈরি করছে ভুতুম পেঁচা নামের দল। এটি একটি সিঙ্গেল প্লেয়ার ক্রিকেট গেইম। যেখানে একজন ব্যাটসম্যান বাংলাদেশের স্থানীয় যেকোনো রাস্তায় এই ক্রিকেট খেলতে পারবেন। খেলোয়াড় ভিন্ন ভিন্ন ডিরেক্শন থেকে আসা বল খেলে তার রানের স্কোর বাড়াতে পারবেন।

গেইমটি তৈরির ধারণা এসেছে দেশের ক্রিকেট পাগল জনগণ যেখানে যে অবস্থায় পারে ক্রিকেট খেলে। বিশেষ করে শহরাঞ্চলে গলির ভিরতে ক্রিকেট খেলার জনপ্রিয়তা থেকেই এই গেইম তৈরির ধারণা।

গেইমটি তৈরি ও উন্নয়নে কাজ করছে ভুতুম পেঁচার পাঁচ সদস্যের একটি দল। যাদের মধ্যে রয়েছেন মুন্সি হাসনাত, রফিকুল ইসলাম, রাসেল আহমেদ, গোলাম মোস্তফা এবং রিয়াসাত আজিম খান।

নকশী
দেশের ঐতিহ্য হিসেবে এখনো গ্রামের মানুষ নকশী কাঁথা তৈরে করেন। এবার সেই নকশী কাঁথার মতো করে মোবাইলে খেলার উপযোগী গেইম তৈরি করছে ইমরান উল হক নামের এক তরুণ। গেইম জ্যামে অংশ নিয়ে তিনি কাজ করছেন কিছুটা অ্যাকশনধর্মী আবার তার সঙ্গে ঐতিহ্যকে মিশিয়ে।

শ্যাডোলিট নামের এ্ই দলের সদস্য একজনই। গেইমটিতে খেলোয়াড়কে একজন ঐতিহাসিক সৈনিক হিসেবে তার শত্রুদের হত্যা করতে হবে। আর যখনই তিনি শত্রু হত্যা করতে যাবেন তখন তাকে নকশী কাঁথার মতো পথ ধরে কাজ করতে হবে।

গুপ্তধন খোঁজার ধারণা থেকেই এই গেইম তৈরি করা হচ্ছে গেইম জ্যামে।

Gamejam-GP-Techshohor

গেইম স্কেচ জার্নি
মো. আরাফাত হোসেন এবং মো. রাশেদ-উজ-জামান স্কেচ এবং আর্টকে গুরুত্ব দিয়ে তৈরি করছেন মোবাইল গেইম স্কেচ জার্নি। একই সঙ্গে এই আঁকাআকির ধারণা থেকেই এমন একটি গেইম তৈরির আইডিয়া পান তারা। এই দলটির নাম আনইকুয়াল সোলজার্স।

এই গেইমে খেলোয়াড়কে একটি গাড়ি চালাতে হবে। তবে গাড়ি চালাতে গিয়ে ওই খেলোয়াড়ের একটি অপশন থাকবে। তা হলো তিনি ইচ্ছে করলে রাস্তা স্কেচ করে তার গাড়িটি সামনের দিকে নিতে পারবেন। এটি খেলতে গেলে দুটি পদ্ধতি অবলম্বন করতে হয়। একটি গাড়ির সঙ্গে ট্রাভেল করা এবং অন্যটি নিজের রাস্তা নিজেই স্কেচ করা।

শব্দ
মোবাইল গেইম নিয়ে এমন নতুন ধারণা খুবই কম দেখতে পাই আমরা। বাংলা ভাষার শব্দভান্ডার বাড়ানোর একটি খেলা এই শব্দ।

এটি একটি পাজল গেইম। যেখানে খেলোয়াড়কে বাংলা শব্দ শেখার জন্য উৎসাহিত করবে। এখানে বর্ণ দিয়ে শব্দ তৈরি করতে পারবে খেলোয়াড়রা।
গেইম জ্যামে এটির উন্নয়নে কাজ করছেন অনিরুদ্ধ পৃথুল, মুশফিকা ফারিয়া নোভা, লাবিব ইসমাম খালিদ।

*

*