Maintance

৫০ টাকা কিস্তিতে স্মার্টফোন দেওয়ার বাধা ভ্যাট-ট্যাক্স : তারানা

প্রকাশঃ ৩:১৮ অপরাহ্ন, এপ্রিল ২০, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৩:১৯ অপরাহ্ন, এপ্রিল ২০, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের নারীদের হাতে মাত্র ৫০ টাকা কিস্তিতে স্মার্টফোন তুলে দেওয়ার প্রধান বাধা ভ্যাট-ট্যাক্স বলে উল্লেখ করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

তিনি বলেন, আমি দেশের প্রত্যেক নারীর হাতে একটি করে স্মার্টফোন পৌঁছে দিতে চাই। কিন্তু যখন আমরা একটি ফোন পুরোপুরি বাংলাদেশে তৈরি করতে যাই তখন এর খুরচা যন্ত্রাংশের দাম খুব বেশি পড়ে। ভ্যাট-ট্যাক্সের কারণে কাঁচামালের দাম বেশি পড়ে যায়। ফলে এটা একটা সমস্যা হয়ে যায়। যখন আমি প্রত্যেক নারীর হাতে স্মার্টফোন তুলে দেওয়ার কথা বলবো তখন অবশ্যই এর দাম কমাতে হবে।

তারানা হারিম বলেন, শুধুমাত্র স্থানীয়ভাবে উৎপাদন করেই এর দাম কমানো সম্ভব। এর জন্য সাবসিডি দরকার।

এজন্য তার মন্ত্রণালয় থেকে ইতোমধ্যে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা ইতোমধ্যেই বেশকিছু কাগজপত্র্র প্রস্তুত করছি। আমরা অর্থমন্ত্রীর কাছে আবেদন করবো, স্থানীয়ভাবে স্মার্টফোন উৎপাদনে যেসব কারখানা করা হবে সেগুলো থেকে ট্যাক্সটা মওকুফ করে দিলে বা কমপক্ষে যদি কাঁচামালের ট্যাক্সটা মওকুফ করে দেওয়া যায় তাহলে তারা খুব কম টাকায় স্মার্টফোন উৎপাদন করতে পারবে।

tarana-halim-new-TechShohor
ফাইল ছবি

তারানা হালিম বলেন, আমাকে তারা কথা দিয়েছেন নারীদের হাতে স্মার্টফোন তুলে দিতে মাত্র ৫০ টাকা কিস্তির ব্যবস্থা করবেন।

তিনি বলেন, এটার অনেক সুবিধা আমরা পাবো। মনে রাখতে হবে, যখন একটা মেয়র হাতে, মায়ের হাতে স্মার্টফোন যায় তখন তাকে শুধু ক্ষমতাশালীই করে না, তিনি এর সাহায্যে উদ্যোক্তা হয়ে অর্থ উপার্জনও করতে পারেন।

এই স্মার্টফোনের আয় দিয়ে শুধু নিজে না, পরিবারেরও খরচ বহন করতে পারবে। তার মেয়ে সন্তানকে শিক্ষা দিতে পারবে।

কাজেই একটা মোবাইল দিয়ে তিনটি কাজ নিশ্চিত করতে পারছি। তাকে ক্ষমতায় হিত করতে পারছি, ওই মেয়েটার জন্য আত্মনির্ভরশীল হওয়ার, আয়-রোজগার করার উপায় সৃষ্টি করতে পারছি, এবং তার কন্যা শিশুকে সুশিক্ষা দিতেও পারছে।

এসময় তিনি দেশিয় মোবাইল ফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোকে আহ্বান জানান তারা যেন নারীদের জন্য একেবারে বেসিক কিছু অ্যাপ্লিকেশন রেখে বাজারে ছাড়ে। যেগুলো একেবারেই সাধারণ নারীদের জন্য প্রয়োজন সেগুলো রাখার ব্যাপারে তিনি জোর দেন।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর খামারবাড়িতে নারী কৃষকদের জন্য বিশেষায়িত একটি মোবাইল অ্যাপ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।

বিশেষ সেই অ্যাপের সাহায্যে গ্রামীণ কৃষিকে একটা ভালো অবস্থানে নিয়ে যেতে নারীরা অসামান্য ভূমিকা রাখবেন বলেও বলেন প্রতিমন্ত্রী।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/