Maintance

ইন্টারনেট যন্ত্রাংশে ভ্যাট-ট্যাক্স প্রত্যাহারের দাবি আইএসপিএবি'র

প্রকাশঃ ১:২৪ অপরাহ্ন, এপ্রিল ২০, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১:২৪ অপরাহ্ন, এপ্রিল ২০, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ বা আইএসপিএবি আসন্ন বাজেটে ইন্টারনেট যন্ত্রাংশের উপর থেকে ভ্যাট-ট্যাক্স প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সঙ্গে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রাক বাজেট আলোচনায় তাদের করা প্রস্তাবগুলো বিবেচনায় নিয়ে সেগুলো বাস্তবায়ন করার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

আইএসপিএবি পাঁচটি দাবি সংম্বলিত বাজেট প্রস্তাব করেছে। তাদের দাবিতে বলেছে, ইনফর্মেশন টেকনোলজি এনাবল সার্ভিসেস (আইটিইএস) এর বর্তমান সংজ্ঞায় বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ সেবাগুলো বাদ পড়ায় এ সংক্রান্ত বিভিন্ন সেবার বিপরীতে প্রযোজ্য ভ্যাট বা অন্যান্য বিষয়াদি সম্পর্কে তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর সেবা কোম্পানিগুলোকে আইটিইএস এর সংজ্ঞায় অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন।

NBR_ISPAB_PREBUDGET_TECHSHOHOR

তাই সংগঠনটি দাবি জানিয়েছে এই আইটিইএস এর বর্তমান সংজ্ঞায় বাদপড়া বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত করতে।

বর্তমানে আইএসপিএবি প্রতিষ্ঠানগুলোর উৎসে কর কর্তনের যে বিধান রাখা হয়েছে তা প্রত্যাহার এবং এনবিআর থেকে প্রত্যয়নপত্র গ্রহণের বাধ্যবাধকতা প্রত্যাহার করার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

আসন্ন বাজেটে আইএসপিএবি প্রতিষ্ঠানগুলোর অফিস বা বাড়িভাড়ার উপর যে ১৫ শতাংশ ভ্যাট আছে তা প্রত্যাহারেরও দাবি করেছে আইএসপিএবি।

ইন্টারনেট ইকুইপমেন্ট যেমন, মডেম, ইথারনেট ইন্টারফেইস কার্ড, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক সুইচ, হাব, রাউটার, সার্ভার, ব্যাটারিসহ অন্যান্য পণ্যে বর্তমানে ২২.১৬ শতাংশ ভ্যাট ও শুল্ক রয়েছে তা প্রত্যাহার করে নেওয়ার দাবি জানায় সংগঠনটি।

এছাড়াও সরকার যে ৩৫ শতাংশ কর্পোরেট ট্যাক্স রয়েছে সেটি সামনের বাজেটে আইএসপিএবি প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য কমিয়ে ১৮ শতাংশ করার দাবি জানিয়ে বাজেট প্রস্তাব করেছে।

বুধবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সম্মেলন কক্ষে প্রাক-বাজেট আলোচনায় আইএসপিএবির প্রতিনিধিরা এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমানের কাছে এই বাজেট প্রস্তাব জমা দেন।

প্রতিষ্ঠানটির প্রতিনিধিরা বলেন, ইন্টারনেটকে সবার জন্য সহজলভ্য করতে ইন্টারনেট সম্পর্কিত পণ্যে ভ্যাট-ট্যাক্স প্রত্যাহার এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে কমানোর বিকল্প নেই।

তাদের দেওয়া বাজেট প্রস্তাব সামনের বাজেটে প্রতিফলন ঘটবে বলেও আশা প্রকাশ করেন সংগঠনটির প্রতিনিধিরা।

তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবসায়িক ও উদ্যোক্তা বেশ কয়েকটি সংগঠন একসঙ্গে পৃথক এই বাজেট প্রস্তাব করে। যেখানে নেতৃত্বে ছিলেন বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার।

বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন এনবিআর সদস্য (মূসকনীতি) ব্যারিস্টার জাহাঙ্গীর হোসেন, মো. পারভেজ ইকবাল (করনীতি), মো. লুৎফর রহমান (শুল্কনীতি)।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/