সফটওয়্যার পার্কের বেহাল অবস্থা দেখে ক্ষুব্ধ প্রতিমন্ত্রী

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : কারওয়ান বাজারস্থ জনতা টাওয়ারে সফটওয়্যার পার্কের বেহাল দশা দেখে হতাশা প্রকাশ করেছেন ডাক, টেলিযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। বিশেষ করে একটি পরিত্যক্ত কক্ষে অর্ধকোটি টাকার ভিডিও কনফারেন্সিং যন্ত্র পড়ে থাকতে দেখে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন। ভবনের বেজমেন্টে কাঁচামালের অবৈধ গোডাউনটি তাৎক্ষণিক উচ্ছেদের নির্দেশ দেন তিনি।

মঙ্গলবার সকালে সফটওয়্যার পার্ক পরিদর্শনে প্রতিমন্ত্রী। এসময় সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম, বেসিসের সভাপতি শামীম আহসান, উর্ধ্বতন সহ-সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির এবং তথ্যপ্রযুক্তি সাংবাদিকদের সংগঠণ বিআইজেএফের সভাপতি মুহাম্মদ খান।

Software park visit-TechShohor

১২ তলা ভবনটি ঘুরে দেখা যায়, এর ছয় তলায় মিলিনিয়াম সলিউশন, সাত তলায় স্কয়ার ইনফরমেটিকস এবং এগোরো তলায় ই-সফটওয়্যার নামের মাত্র তিনটি প্রতিষ্ঠান কাজ করছে। অধিকাংশ ফ্লোরই ফাঁকা পড়ে রয়েছে।

সফটওয়্যার পার্কের বর্তমান অবস্থা বিষয়ে হোসনে আরা বেগম জানান, পার্কের সামগ্রিক ব্যবস্থাপনার কাজ যে প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া হয়েছিল তারা শর্ত ভঙ্গ করেছে। সফটওয়্যার পার্ক বাস্তবায়নে বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে তারা অর্ধেক কাজও করতে পারেনি। তাই তাদের চুক্তি বাতিল হয়েছে। এ নিয়ে আদালতে মামলা চলছে। দ্রুত এর নিস্পত্তি হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, বর্তমানে ভবনটি মারাত্বক অব্যবস্থাপনার মধ্যে থাকলেও আশা করছি, শিগগিরই একে পূর্ণাঙ্গ পার্ক হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব হবে।

শামীম আহসান বলেন, অনেক দিন ধরেই সফটওয়্যার পার্কের কার্যক্রম চালুর বিষয়টি স্থগিত আছে। প্রতিমন্ত্রীর উদ্যোগে পার্কটি দ্রুত চালু হবে বলে আশা করছি।

সফটওয়্যার পার্ককে কার্যকর করার অংশ হিসেবে ভবনের একটি অংশে বিআইজেএফের কার্যক্রম চালানোরও মৌখিক অনুমতি দেন প্রতিমন্ত্রী।

Related posts

টি মতামত

  1. মোঃবেলায়েত হোসেন said:

    উন্নয়নের নামে চলছে নিরব চাদাঁবাজী সরকার ওসংবাদ মাধ্যম গুলো জেনে নিেচ্ছ না কোন পদক্ষেপ । এভাবে দেশ কত দিন চলবে। এর শেষ কথা সাধারণ মানুষ জানতে চাও।

*

*

Top