বিসিএস নির্বাচনে ১৩ জনের মনোনয়নপত্র জমা

আল আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস) ২০১৪-২০১৫ সেশনের কার্যনিবার্হী পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ১৩ জন। মোট সাতটি পদের বিপরীতে এ মনোনয়নপত্র জমা পড়ে।

নির্বাচনে ‘বেটার বিজনেস অ্যান্ড বিসিএস’ প্যানেল গঠন করে কম্পিউটার সোর্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এএইচএম মাহফুজুল আরিফের নেতৃত্বে তিনিসহ মনোনয়নপত্র জমা দেন,মুজিবুর রহমান স্বপন (হাইটেক প্রফেশনালস), এটি শফিক উদ্দীন আহমেদ (ইন্টারন্যাশনাল কম্পিউটার ভিশন), ইউসুফ আলী শামীম (কম্পিউটার পয়েন্ট), নজরুল ইসলাম মিলন (পিসি মার্ট), কাজী শামসুদ্দীন আহমেদ লাভলু (এবিসি কম্পিউটার কর্ণার) ও আলী আশফাক (রিম সিস্টেমস লিমিটেড)।

BCS Election-TechShohor

কম্পিউটার সোর্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এএইচএম মাহফুজুল আরিফ টেক শহরকে জানান, প্যানেলের সবাই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। শিগগিরই আমাদের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করা হবে।

এছাড়া স্বতন্ত্র হিসেবে জমা দেন, মঈনুল ইসলাম (টেকভ্যালি), আব্দুল মোমেন খান (ডাটা সল্যুশন), সঞ্জয় কুমার সাহা (জান কম্পিউটার), ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত সরকার (সিএনসি ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল), এস এম ওয়াহেদুজ্জামান (মাইক্রোসান সিস্টেম) ও নাজমুল আলম ভূঁইয়া (সাইবার কমিউনিকেশন)।

টেকভ্যালি কম্পিউটার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মঈনুল ইসলাম টেক শহরকে জানান, মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছি। আশাকরছি ভোটাররা সঠিক সিদ্ধান্তই নেবেন।

মনোনয়নপত্র জমাদানকারীদের মধ্যে এএইচএম মাহফুজুল আরিফ ২০০২-২০০৩ সেশনে বিসিএসের কোষাধ্যক্ষ, আলী আশফাক ২০০৪-২০০৫ সেশনে মহাসচিব, নজরুল ইসলাম মিলন ২০০৬-২০০৭ এ যুগ্ম মহাসচিব ছিলেন। অন্যদিকে মঈনুল ইসলাম বর্তমান মেয়াদে সহ-সভাপতি ও মুজিবুর রহমান স্বপন পরিচালক পদে আছেন।

এদিকে এ নির্বাচনে সাতটি শাখা কমিটির প্রার্থীরা ইতিমধ্যে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বীতায় নির্বাচিত হয়েছেন। শাখাগুলো হলো- খুলনা, সিলেট, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, বরিশাল, কুমিল্লা এবং চট্টগ্রাম। এসব শাখায় সাতটি পদের বিপরীতে সাতজনই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। তবে যশোর শাখায় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ১১ জন। তাই এ শাখায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বিসিএসের ডেপুটি ম্যানেজার তোজাম্মেল উদ্দিন সিকদার কিরণ টেক শহরকে জানান, বৈধ মনোনয়নপত্র জমাদানকারীদের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। আগামী ৫ মার্চের মধ্যে মনোনয়নপত্র বাতিলের কোন অভিযোগ থাকলে লিখিতভাবে তা জমা দিতে হবে। কোন অভিযোগ থাকলে শুনানী এবং নিষ্পত্তি শেষে ৮ মার্চ বৈধ প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে। ১১ মার্চ প্রার্থীতা প্রত্যাহারের সময় থাকছে এবং সেদিনই চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ১৪ ডিসেম্বর বিসিএসের নির্বাচন অনুষ্ঠানের তারিখ নির্ধারিত হলেও দেশের সার্বিক পরিস্থিতি ও দেশের বিভিন্ন জেলায় অবস্থানরত ভোটারদের নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে নির্বাচন স্থগিত করা হয়। সেসময় এ নির্বাচনে ১৫ জন প্রার্থী হয়েছিলেন। পরে পুন:তফশিল ঘোষণা করে বিসিএস নির্বাচন কমিশন। নতুন নির্বাচনী তফশিল অনুযায়ী, আগামী ২৯ মার্চ (শনিবার) সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটি ও শাখা কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Related posts

*

*

Top