Maintance

মোবাইল লেনদেন হবে এক প্লাটফর্মে

প্রকাশঃ ৩:০১ অপরাহ্ন, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৩:০১ অপরাহ্ন, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১৭

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশে পেমেন্ট সিস্টেমে তথ্যের সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য একটি কমন মোবাইল পেমেন্ট সিস্টেম তৈরি হচ্ছে। চলতি বছরের মধ্যেই ওই সিস্টেম দেশে কাজ শুরু করবে। এ জন্য ইতোমধ্যে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে আলোচনা করছে এবং কাজটি এগিয়ে যাচ্ছে।

শনিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) ‘পেমেন্ট ইকোসিস্টেমে তথ্যের সুরক্ষা’ শীর্ষক সেমিনারে কয়েকটি প্রশ্নের উত্তরে সেমিনারের সঞ্চালক প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রামের আইটি ম্যানেজার আরেফ এলাহী মানিক এসব কথা জানান।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে আমরা দেশের পেমেন্ট সিস্টেমের একটি কমন প্লাটফর্ম নিশ্চিত করতে কাজ করা হচ্ছে। এজন্য অবশ্য বেশকিছু নীতিমালার ঘঁষামাজা করতে হচ্ছে। কারণ দেশে বিদ্যমান বিকাশ, রকেট ও অন্যান্যগুলোর নীতিমালা আলাদা। এজন্য এক প্লাটফর্মে আনতে কাজ হচ্ছে।

paysystem-techshohor

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের সভাপতি তপন কান্তি সরকার।

তিনি তার প্রবন্ধে দেশের সার্বিক পেমেন্ট নিরাপত্তা নিয়ে সিটিও ফোরামের সংগ্রহে থাকা কিছু তথ্য উপাত্ত তুলে ধরেন।

সেমিনারের বিশেষ অতিথি কিপটর সুইডেনের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী মাইকেল স্যালেন রডিন বলেন, তাদের দেশেও ডাটা সিকিউরিটি একটা বড় কনসার্ন। সেখানেও বেশ কয়েক ধরনের সেবা মোবাইল-ব্যাংক কেন্দ্রিক। সেখানেও জালিয়াতি হয় বলেও বলেন তিনি।

সেমিনারে প্রধান অতিথি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও এটুআই প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার বলেন, বাংলাদেশ সরকার দেশের সার্বিক উন্নয়নের যে টার্গেট সেগুলো পূরণ করতে হলে অবশ্যই তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার করতে হবে। এজন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রামের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করতেও কাজ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, আমরা এখন যে জায়গায় এসে গেছি সেখানে মানুষ পেমেন্ট সিস্টেমে একটা কমন গেটওয়ে চান। যেন যেকোনো জায়গা থেকে তারা যেন তাদের পেমেন্ট সুবিধা পান। এজন্য তাদের যথেষ্ট নিরাপত্তা দরকার।

এজন্য কবির বিন আনোয়ার তিনটি বিষয়ের দিকে নজর দেওয়ার উপর জোরারোপ করেন। তিনি বলেন, দেশে পেমেন্ট সিস্টেমে নিরাপত্তার জন্য সবার আগে একটা কমন গেটওয়ে তৈরি করা দরকার। যার জন্য কাজ করা হচ্ছে। এছাড়াও ডাটা সিকিউরিটি জোরদার এবং সেটা জোরদার করতে জাতীয় পরিচয়পত্র দিয়ে এগুলো নিশ্চিত করা গেলে এই নিরাপত্তা আরও জোরদার হবে বলে বলেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের জেনারেল ম্যানেজার দেবদুলাল রায় বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক অটোমেশন সিস্টেম চালু করে ২০০৯ সাল থেকে। কিন্তু সেটা নিয়ে যে সমস্যা নাই তা নয়। সেটা নিয়ে এখন আরও জোরবার কাজ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, দেশের পেমেন্ট সিস্টেমে যদি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চাই তাহলে অবশ্যই দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে এটা নিয়ে কোর্স চালু করা প্রয়োজন। যার অভাব রয়েছে।

তবে এনআইডি দিয়ে যদি পেমেন্ট সিস্টেম চালু করতে চাওয়া হয় তাহলে সেটা কে নিয়ন্ত্রণ করবে এটা একটা বড় সমস্যা হয়ে দেখা দিতে পারে। তাই এটাও ভেবে দেখা দরকার বলে মত দেন তিনি।

সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সাইবার সিকিউরিটি সেন্টারের পরিচালক তৌহিদ ভূঁইয়া, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক আদিল খান, আমেরিকান নাগরিক মেরিল্যান্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. এম পান্না, সিটিও ফোরামের সেক্রেটারি জেনারেল ড. এজাজুল হক।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/