Maintance

গেইমিংয়েও বিশ্ব মাতাবে বাংলাদেশ

প্রকাশঃ ৩:৪৪ অপরাহ্ন, ফেব্রুয়ারি ২, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৩:৪৪ অপরাহ্ন, ফেব্রুয়ারি ২, ২০১৭

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : স্মার্টফোনে অনেক গেইম বিনামূল্যে কয়েক ক্লিকে ডাউনলোড করে খেলা হয়। কিন্তু যে সকল প্রতিষ্ঠান গেইমগুলো তৈরি করেন তাদের লাভ কি? কিভাবে গেইমিং প্রতিষ্ঠানগুলো মুনাফা পায় কিংবা কিভাবে গেইম তৈরি করা যায় ? গেইমিংয়ে বাংলাদেশের ভবিষ্যত গন্তব্য কোথায়?- এমনি নানা প্রশ্নের উত্তর মিলল বেসিস সফটএক্সপোর ‘আইডিয়া ওয়ার্কশপ ফর গেইম ডেভেলপমেন্ট’ সেমিনারে।

সফটএক্সপোর দ্বিতীয় দিনে সেলিব্রেটি হলে এই সেমিনারে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সুশান্ত কুমার সাহা বলেন, সরকার দেশের গেইমিং খাতকে এগিয়ে নেয়ার জন্য অনেক প্রকল্প গ্রহণ করেছে। তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ হতে গেইমিং প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া আইডিয়া নিয়েও আরেকটি প্রকল্পের কাজ চলছে সেখানে যে কেউ তাদের আইডিয়া শেয়ার করতে পারবে।

softexpo-techshohor

ড্রিম ৭১ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাশাদ কবির বলেন, গেইমিং থেকে মূলত দুইটি উপায় মুনাফা পাওয়া যায়। প্রথমত  বিজ্ঞাপন এবং দ্বিতীয়ত ইন পারচেজের মাধ্যমে।

উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘আমরা যখন গেইম খেলি তখন কোনো লেভেল পার করার পর নানা ভিডিও প্রদর্শিত হয় কিংবা এড দেখা যায়। এছাড়া গেইম খেলার সময় বিভিন্ন টুলস কিনতে হয়। যা হতে গেইমিং প্রতিষ্ঠানগুলোর আয় হয়।’

আইটিআইডব্লিউ’য়ের প্রধান নিবার্হী তানভীর আহমেদ বলেন, ‘বর্তমান সময়ে গেইমিং একটি জনপ্রিয় খাত। এই খাত বাংলাদেশের যাত্রা খুব বেশি দিনের নয়। এখনো দেশে অনেক গেইমিং প্রতিষ্ঠান কিংবা স্টার্টআপের প্রয়োজন আছে। আমাদের দেশে এ খাতটির দারুণ ভবিষ্যত সামনে।

সেমিনারের বিশেষ অতিথি এটুআই পরিচালক(ইনোভেশন) মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,‘অনেকেরই গেইমসের আসক্তি রয়েছে। এই আসক্তি কাজে লাগিয়েও আমরা গেইমিং মাকের্ট ক্যাপচার করতে পারছি না। এর কারণ আমরা ডিমান্ড নিয়ে না ভেবেই সাপ্লাই নিয়ে কাজ করি। কিন্তু গেমস ডেভেলপমেন্টের শুরুতেই ব্যবহারকারীর ডিমান্ড বুঝতে মার্কেট রিসার্চ করতে হবে। গেইমস ডেভেলপমেন্ট করার জন্য প্রথমেই আইডিয়া জেনারেশন করতে হবে। আর আইডিয়া পাওয়ার জন্য আউটবক্স চিন্তা করতে হবে। আমাদের দেশের সংস্কৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে গেইমের আইডিয়া ভাবতে হবে।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন বেসিসের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং আইবিসিএস-প্রিমিক্স সফটওয়্যার(বিডি) লিমিটেডের কর্ণধার এ তৌহিদ।

তিনি বলেন, গেইমসের আন্তর্জাতিক বাজার অনেক বিস্তৃত। দেশেও এর চাহিদা রয়েছে। ভালো গেইমস ডেভেলপমেন্টের জন্য বেসিসের পক্ষ থেকে সব রকমের সহায়তা দেয়া হবে। তরুণ ডেভেলপারদের আইডিয়াগুলো বাস্তবায়ন করতে সরকারের সঙ্গে একযোগে কাজ করছে বেসিস।

সেমিনারে গেইমসের আইডিয়া ডেভেলপমেন্ট নিয়ে দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন রাইস আপ ল্যাবসের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরশাদুল হক, ম্যাসিভ স্টারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মাহবুবুল আলম, ৮ পিয়াস সলিউশন্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ শাহজালাল, গেইম ওভার স্টুডিও এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জামিলুর রশিদ, ড্রিম ৭১ বাংলাদেশে লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাশেদ কবীর, পোর্ট ব্লিসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাশা মুস্তাকিম।

*

*

Related posts/