পণ্য ছাপিয়ে মোবাইল কংগ্রেসে জুকারবার্গে আগ্রহ

জামান আশরাফ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : কয়েকদিন আগেই প্রযুক্তি বিশ্বকে চমকে দিয়ে ১৯ বিলিয়ন ডলারে হোয়াটসঅ্যাপ কিনেছেন। তার কল্যাণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও প্রযুক্তি পেয়েছে নতুন মাত্রা। তাইতো উৎসবের নগরী বার্সেলোনায় তাকে ঘিরেই ছিল কৌতুহলের ছড়াছড়ি।

আগ্রহের কেন্দ্রে থাকা এ ব্যক্তির নাম মার্ক জুকারবার্গ। শীর্ষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকের প্রতিষ্ঠাতা তিনি। সোমবার স্পেনের বার্সেলোনায় শুরু হওয়া মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসের আয়োজক থেকে শুরু করে স্থানীয় বাসিন্দা ও বিদেশের হাজার হাজার অতিথির আগ্রহ ছিল তাকে ঘিরে।

zukerberg_barcelona_techshohor

কংগ্রেসের উদ্বোধনের প্রথম দিনে জুকারবার্গ বিশ্বের বৃহত্তম এ মোবাইল সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। তার বক্তৃতা শুনতে কংগ্রেসের বিশাল সম্মেলন কেন্দ্রে শত শত ব্যক্তির দীর্ঘ লাইন লেগে যায়।

পুরো আয়োজন ৭০ হাজারের বেশি বর্গফুট ঘিরে হলেও যে মিলনায়তনে ফেইসবুক প্রতিষ্ঠাতা বক্তৃতা দেবেন সেখানকার আসন মাত্র দেড় হাজার। তাই সোমবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ছয়টায় বক্তৃতা দেওয়ার আগেই সেখানে লম্বা লাইন দেখা যায়।

তরুন এ সফল উদ্যোক্তার বক্তৃতা শুনতে হাজারো প্রযুক্তিপ্রেমী মিলনায়তনের বাইরে ঘন্টার পর ঘন্টা ধরে অপেক্ষা করেছেন। আসন সংখ্যার কয়েকগুণ বেশি ব্যক্তি লাইনে দাঁড়াতে শুরু করেন বেলা তিনটা থেকে। তবে যারা হলে জায়গা পাবেন না তাদের জন্য বাইরে বড় পর্দার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ফুটবলের শহর খ্যাত বার্সেলোনায় ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসকে কেন্দ্র করে প্রায় ৮০ হাজার বিদেশি অতিথি এসেছেন। শুধু অতিথি নয়, পুরো সম্মেলনকে ঘিরে ব্যস্ত এখানকার অধিবাসীরা। আর সোমবার উদ্বোধনী দিনে নতুন পণ্য বা প্রযুক্তির চেয়ে তাদের আগ্রহের কেন্দ্রে ছিলেন ফেইসবুক প্রতিষ্ঠাতা।

বক্তৃতায় নিরাশ করেননি জুকারবার্গ। স্বপ্ন দেখিয়েছেন বিশ্ববাসীকে। পাঁচশ কোটি মানুষকে অতি অল্প সময়ের মধ্যে ইন্টারনেটের আওতায় নিয়ে আসার স্বপ্নের কথা জানান তিনি। প্রথমবারের মতো এমন আয়োজনে আসেন তিনি। এসময় তিনি ফেইসবুক এবং হোয়াটসঅ্যাপ নিয়ে নানা প্রশ্নের উত্তর দেন।

জুকারবার্গ বলেন, তিনটি উপায়ে ইন্টারনেটের মূল্য কমানো সম্ভব। এক্ষেত্রে ইন্টারনেট যন্ত্রপাতির মূল্য কমানো, ডেটার কার্যক্ষমতা বাড়ানো এবং গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধি করা। আর সেটা করতে পারলে অল্প দিনের মধ্যে যেমন বিলিয়ন বিলিয়ন নতুন গ্রাহক যোগ করা সম্ভব হবে, তেমনি ইন্টারনেটের মূল্যও কমে আসবে।

ফেইসবুক সিইও বলেন, সামনের দিনে এটাই আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। যে করেই হোক আনকানেটকটেড মানুষকে কানেক্ট করতে হবে।

গত সেপ্টেম্বরে ফেসবুক ১২০ কোটি গ্রাহকের ল্যান্ডমার্ক অজর্ন করেছে। জুকারবার্গ বলেন, কিছুদিন আগে যখন তারা প্রথমবারের মতো শত কোটি গ্রাহক পেলেন তখন থেকেই তারা ইন্টারনেট নিয়ে নানা চিন্তা শুরু করেন। আর হোয়াটসঅ্যাপ কেনা তারই অংশ।

জুকারবার্গ জানান, আগামী বছর কয়েকটি দেশকে বেছে নেওয়া হবে, যেখানে তারা ইন্টারনেট নিয়ে আরও কাজ করতে পারেন।

mobile congress_techshohor

এর আগে স্থানীয় সময় সকাল ৯টায় চার দিনব্যাপী কংগ্রেসের উদ্বোধন হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রথমে বক্তব্য রাখেন টেলিনর গ্রুপের প্রেসিডেন্ট ফ্রেডরিক বাকসাস। এ ছাড়া সিংটেলের গ্রুপ সিইও চুয়া সক কং, আরব আমিরাতের মোবাইল অপারেটর ইতিসালাতের সিইও আবদুল করিম জুলফার ও আমেরিকা টেলিকমের সিইও ড্যানিয়েল হাজ বক্তব্য রাখেন।

উদ্বোধনী আয়োজনে ফেইসবুক কর্তৃপক্ষের হোয়াটসঅ্যাপ কিনে নেওয়া এবং বিনা খরচে এ সুবিধা গ্রাহকদেরকে দেওয়ার সমালোচনা করেন তারা। তবে এমন সমালোচনার কোনো জবাব দেননি মার্ক জুকারবার্গ।

মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসকে কেন্দ্র করে প্রায় ৮০ হাজার বিদেশি অতিথির পদচারণায় মুখরিত বার্সেলোনা। এ নগরীর বাসিন্দাদের কাছে ফুটবল হচ্ছে ভালোবাসা এবং মোবাইল কংগ্রেস গর্বের বিষয়।

২০০৬ সাল থেকে বার্সেলোনা প্রযুক্তি বিশ্বের সর্ববৃহৎ আয়োজনটি চমৎকারভাবে সম্পন্ন করে আসছে। জিএসএমএর পক্ষ থেকে নগরীকে বিশ্ব মোবাইল বাজারের রাজধানী হিসেবে ঘোষণাও দেওয়া হয়।

কংগ্রেসে বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২২০টি দেশের কয়েক হাজার প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ, বিভিন্ন দেশের অপারেটর, মোবাইল হ্যান্ডসেট নির্মাতা প্রতিষ্ঠান, কনটেন্ট প্রোভাইডারসহ মোবাইল শিল্প সংশ্লিষ্টরা অংশ নিয়েছেন।

চমকজাগানো এ প্রদর্শনীতে দেড় হাজারের মতো স্টলে নিজেদের সেরাটা তুলে ধরেছে বিশ্বের বড় বড় প্রায় সব মোবাইল ফোন প্রস্তুতকারকরা।

বিশ্বব্যাপী মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের নতুন প্রযুক্তি হাতের নাগালে নিয়ে আসতে বিভিন্ন সুযোগ নিয়ে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

বিভিন্ন দেশের অপারেটর এবং প্রযুক্তি-পণ্য প্রস্তুতকারীদের পুরস্কার দেওয়া হবে। সেরা মোবাইল সেবা প্রদানকারী, সেরা মোবাইল হ্যান্ডসেট ও ডিভাইস, সেরা অ্যাপস, সেরা মোবাইল প্রযুক্তিসহ ৮টি ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার প্রদান করা হবে। বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে মঙ্গলবার।

নতুন নতুন স্মার্টফোন, ট্যাবলেট পিসি, হাইব্রিড ডিভাইস এবং নতুন ধরনের মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম, প্রযুক্তির উপস্থিতিতে ইতিমধ্যে জমজমাট হয়ে উঠেছে এ আয়োজন।

Related posts

*

*

Top