Maintance

তথ্যপ্রযুক্তিতে নতুন জোট 'ইনফরমেশন সিকিউরিটি অ্যালায়েন্স'

প্রকাশঃ ৫:৩২ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৬ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৬:৩৮ অপরাহ্ন, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৬

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে নতুন একটি জোটের আত্ম প্রকাশ করেছে। ‘ইনফরমেশন সিকিউরিটি অ্যালায়েন্স’ নামের এই জোট দেশে ইন্টারনেট সিকিউরিটি নিয়ে বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

সোমবার রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটি (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে জোটটির ঘোষণা করা হয়।

বেসরকারি ও সরকারি প্রতিষ্ঠান মিলে দেশে সাইবার সিকিউরিটি নিশ্চিত করতে এবং এই সম্পর্কে ইতিবাচক পদক্ষেপ নিতে এমন জোট করছে বলে জানান আয়োজকরা।

ict security allience-Techshohor

জোটটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসেবে রয়েছেন সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের সভাপতি তপন কান্তি সরকার।

জোটটিতে একসঙ্গে কাজ করবে সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস), এটুআই, তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ, বিডিসিইআরটির, আইএসপিএবি, বিজেআইটি, দোহাটেক, ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সাইবার সিকিউরিটি নিয়ে কাজ করা আরও কিছু প্রতিষ্ঠান।

স্বাগত বক্তব্যে তপন কান্তি সরকার বলেন, টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থার হিসাবে দেশে দিন দিন ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ছে। এখন তা চয়কোটি ৬৮ লাখে দাঁড়িয়েছে। তাই ব্যবহারকারীর নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগের যথেষ্ট কারণ আছে।

ব্যবহারকারীর নিরাপত্তা বাড়াতে দেশে বিছিন্নভাবে ব্যক্তি বা সাংগঠনিকভাবে সচেতনতামূলক কাজ হচ্ছে। এই  কর্মকাণ্ডগুলোকে একীভূত করতে এমন জোট গঠন বলে জানান তিনি।

মূল বক্তব্যে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সাইবার সিকিউরিটি সেন্টারের ডাইরেক্টর ড. তৌহিদ ভূইয়া বলেন, অনলাইন সুবিধা ব্যবসার জন্য নতুন সুযোগ সৃষ্টি করে, কিন্তু একই সময়ে সাইবার ঝুঁকির কারণে এটা সে প্রতিষ্ঠানের জন্য বিপুল আর্থিক ক্ষতির কারণও হতে পারে।

শ্যাম সুন্দর শিকদার বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি দেশের উন্নয়নের প্রধান হাতিয়ার। দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে এবং ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রয়োগ নিশ্চিতকরণে সরকার বদ্ধ পরিকর। সর্বক্ষেত্রে এর প্রয়োগে যে সফলতা এসেছে তা আজ জাতীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। সবাই মিলে এমন একটি জোট সুষ্ঠু সাইবার নিরাপত্তা প্রদানে কাজ করতে পারবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন দোহাটেকের চেয়ারম্যান সামসুদ্দোহা, বিডিসিইআরটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সুমন আহমেদ সাবির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমইএস বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মো. হেলাল উদ্দিন আহমেদ, আইএসপিএবির সভাপতি মো. আব্দুল হাকিম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রকল্পের আইটি ম্যানেজার মো. আরিফ এলাহি মানিকসহ আরও অনেকেই।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/