চলতি বছরে ভারতের সম্ভাবনাময় ৯ আইটি উদ্যোগ

শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : উদ্যোক্তা মানেই এখন নতুন কিছু। একসময় উদ্যোক্তারা আইডিয়া নিয়ে বছরের পর বছর বসে থাকলেও তা বাস্তবায়ন করা দুরুহ ছিল। কিন্তু ক্লাউড, সফটওয়্যার ও অনলাইনভিত্তিক যোগাযোগের কারণে সে প্রতিবন্ধকতা অনেকটাই দূর হয়েছে

আধুনিক যুগের এই সুবিধাকে আমাদের দেশে কাজে লাগাতে শুরু করেছেন মাত্র অনেক উদ্যোক্তা। ভারতে কিন্তু তা আরও আগেই শুরু হয়েছে। দেশটিতে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ২০১৪ সালে খুবই সম্ভাবনাময় কিছু উদ্যোগ সাড়া ফেলতে শুরু করে কিছু তরুন উদ্যোক্তার ব্যতিক্রমী চেষ্টায়।

সাড়া ফেলা উল্লেখযোগ্য নয়টি উদ্যোগের সঙ্গে পরিচিয় করিয়ে দিতে এ প্রতিবেদন।

startup_techshohor

বার্ডস আই সিস্টেম
রিয়েল-টাইম ট্র্যাফিক তথ্য রাস্তায় পৌঁছে দেওয়ার জন্য রবি খেমানি ও ব্রীরাজ ভাগানী তৈরি করেছেন বার্ডস আই সিস্টেম। ওয়েব, অ্যাপ্লিকেশন, এসএমএস, ই-মেইল সোশ্যাল মিডিয়াসহ যতভাবে সম্ভব তারা মুহূর্তের মধ্যে রাস্তাঘাটের সর্বশেষ খবর মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে চান।

আপাতত মুম্বাই, দিল্লি ও বাঙ্গালোরে এ সিস্টেম চালু করা হয়েছে, শিগগির আরও ১০ শহরে প্রসার করা হবে এটি। ইন্ডিয়ান অ্যাঞ্জেল নেটয়ার্কের (আইএএন) থেকে দুই কোটি রুপি মূলধন হিসেবে পেয়েছিলেন উদ্যোক্তারা।

কিউকাম্বারটাউন
ব্লগিংয়ের জন্য টুম্বলার যেমন, রান্নার জন্য কিউকাম্বারটাইন তেমন। খাদ্য ও রান্না সম্পর্কিত ভিডিও তৈরি করে এতে শেয়ার করতে পারেন। অর্থাৎ ভোজনপ্রেমী ও রান্নাকারীদের সোশ্যাল নেটওয়ার্ক এটি।

ক্রিস থমাস, অরুণ প্রভাকর, ক্রিস লুশার ও ড্যান হকের এ কোম্পানি ২০১৪ সালে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপেও প্রসারিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

দ্রুভা
যে কোনো অফিসের বিভিন্ন কাজে কর্মীরা নানা ফাইল বা নথি শেয়ার করেন, ই-মেইল আদান-প্রদান করেন। ফলে একই ধরনের ফাইল জমা হতে হতে একসময় বড় ধরনের জায়গা অপচয় হয়।

এ সমস্যার সমাধানে এগিয়েছে এসেছেন জাসপ্রিত সিং, মিলিন্দ বোরাটে ও রামানি কথানদারামান। তাদের তৈরি দ্রুভা ইনসিংক এমন একটি সফটওয়্যার যা ডুপ্লিকেট তথ্যগুলো মুছে ফেলে প্রচুর স্পেস বাঁচিয়ে দেবে।

বর্তমানে দ্রুভার গ্রাহক সংখ্যা আড়াই হাজারেরও বেশি, কর্মী ২০০ জন।

এক্সোটেল
শিবকুমার গনেশন, ঈশ্বর শ্রিধরন, সিদ্ধার্থ রমেশ ও বিজয় শর্মা তৈরি করেছেন এক্সোটেল নামে বিশেষ ভার্চুয়াল ফোন নম্বর। আপনার সব কল, এসএমএস, ভয়েস রেকর্ডিং ইত্যাদি সংরক্ষণ করে রাখবে এ নম্বর। ২০১২ সালে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে আড়াই কোটি রুপি মূলধন জোগাড় করেছেন এর উদ্যোক্তা।

আগামী বছর তারা ক্রেতার সংখ্যা বাড়িয়ে তিন হাজার করতে চান।

গ্রাম ভানি কম্যুনিটি মিডিয়া
বিশ্বের প্রথম ভয়েসভিত্তিক সোশ্যাল মিডিয়া তৈরি করছেন ভারতের আদিতেশ্বর শেঠ ও মায়াঙ্ক শিবাম। গ্রামাই ও অনুন্নত এলাকার দরিদ্ররা যাতে খুব সহজে একটি ফোন কলের মাধ্যমে তথ্য শেয়ার করতে পারেন, সে ব্যবস্থা এতে করা হচ্ছে।

কৃষি, স্বাস্থ্য, গ্রাম সরকার থেকে শুরু করে ইকমার্স পর্যন্ত সবধরনের তথ্যই আদান-প্রদান করতে পারবেন এতে ব্যবহারকারীরা। ২০০৯ সালে শুরু হওয়া এ প্রকল্প ভারতের ২০টি রাজ্যে ভয়েসভিত্তিক নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে ৭০টিরও বেশি সংস্থার সাথে কাজ করছে।

২০১৪ সালের শেষে এটি চালু হতে পারে।

আইযোগী
যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, জিসিসি রাষ্ট্র ও ভারতের ভোক্তাদের কাছে তথ্যপ্রযুক্তি সেবা পৌঁছে দেয় আইযোগী। বিশাল ধর ও উদয় চাল্লু এটি প্রতিষ্ঠা করেন। আইযোগীর সেবা পরিধির মধ্যে ফোন, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট, ডেস্কটপ, প্রিন্টার সবই আছে।

বর্তমানে ১০টির বেশি দেশে ২৫ লাখের বেশি গ্রাহক আছে তাদের।

মেটেল ইনকর্পোরেশন
মানুষের বিশ্লেষণ ও পর্যবেক্ষণ শক্তির পরীক্ষা করে থাকে, এমন একটি প্রতিষ্ঠান মেটেল ইনকর্পোরেশন। অনলাইনে যে কোনো ব্যক্তির কারিগরি, আচরণগত ও মানসিক পরীক্ষা নিতে পারে তারা। তন্ময় সিংগাল ও কাতান কাপুর এটি প্রতিষ্ঠা করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে ও মধ্যপ্রাচ্যে এর মধ্যে তাদের প্রতিষ্ঠানের প্রসার শুরু হয়েছে।

ন্যানোবি ডাটা অ্যান্ড অ্যানালিটিক্স
একটি ক্লাউডভিত্তিক অ্যানালিটিক্স প্ল্যাটফর্ম এটি। মহেশ রামকৃষ্ণন ও সিভি বিনোদ ব্যাঙ্গালোরে প্রতিষ্ঠা করেছেন। কোনো ব্যবসার ভবিষ্যত ও আয় সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী করার জন্য কনটেন্টভিত্তিক গবেষণা চালান তারা। এর জন্য তাদের অ্যাপও রয়েছে।

বর্তমানে ন্যানোবি মূলত ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের সাথে কাজ করছে, তবে শিগগিরই আন্তর্জাতিক বাজারে প্রবেশ করবে।

স্যাপিয়েন্স অ্যানালিটিক্স
ব্যতিক্রমী এই সফটওয়্যারটি যে কোনো প্রতিষ্ঠানের উৎপাদন ক্ষমতা অন্তত ২০ ভাগ বাড়াতে পারে। প্রতিষ্ঠানের সব কর্মীদের কাজকর্ম স্বয়ংক্রিয়ভাবে মনিটর করতে পারে এটি। কোনো কর্মী বাসায়, অফিসে বা মিটিংয়ে প্রতিষ্ঠানের জন্য কতোক্ষণ সময় দিচ্ছে তা জানতে পারে।

প্রতিষ্ঠার আড়াই বছরে এ সফটওয়্যার ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৬০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এ বছর যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে বিস্তৃত হতে পারে কোম্পানিটি। শিরিষ দেওধর, মাধুকর ভাটিয়া, স্বাতী দেওধর ও হেমন্ত যোশী এর প্রতিষ্ঠাতা।

– টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে

ট্যাগ

Related posts

*

*

Top