Maintance

তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ হবে সাইবার স্পেসে

প্রকাশঃ ১:০৮ অপরাহ্ন, আগস্ট ১৭, ২০১৬ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১:০৮ অপরাহ্ন, আগস্ট ১৭, ২০১৬

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : যদি কখনো বিশ্বযুদ্ধ হয় মানে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ তবে সেটি হবে তিনটি মাধ্যমে। আকাশ, মাটি এবং অনলাইন। তবে এটা ঠিক এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে অনলাইনের সাইবার স্পেস।

সে যুদ্ধ মাত্র একটি ডোমেইনকে ব্যবহার করে লড়তে প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে বলে জানান ড. পিটার সিঙ্গার। যিনি আমেরিকার থিংক ট্যাংক নিউ আমেরিকার একজন প্রতিনিধি এবং ‘গোস্ট ফ্লিট’ বইয়ের সহ-লেখক।

তিনি বলেন, নতুন ডোমেইনে আমরা আগে কখনো প্রতিদ্বন্দ্বিতা করিনি। তবে ভবিষ্যতে এটা হবে মূলত বাইরের ময়দানে বা সাইবার স্পেসে।

Syber war
যুক্তরাষ্ট্র বিভিন্ন বিদ্রোহ দমনে কাজ করেছে এবং কিছু অনিয়মিত যুদ্ধে অভ্যস্ত হলেও সিঙ্গার মনে করেন এটা প্রচলিত যুদ্ধ থেকে ভিন্ন দিকে অগ্রসর হবে। বিশেষত চীন এখনো সবকিছুর পাশাপাশি তাদের সামরিক ক্ষমতা বাড়িয়েই চলেছে।

গোস্ট ফ্লিট বইয়ের লেখক সিঙ্গার ও অগাস্ট কোল তাদের একটি গল্পে লিখেছেন, যদি কখনো যুক্তরাষ্ট্র, চীন এবং রাশিয়া পরস্পরের সঙ্গে যুদ্ধে জড়ায় তাহলে দেখা যাবে হ্যাকিং এবং বিভিন্ন ইলেকট্রনি ডিভাইস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

যদিও বইটি লেখা হয়েছে কাল্পনিক জায়গা থেকে। তবে এর ভিতরের যে রসদ বা প্রযুক্তিগত উপাদান তা সংগ্রহ করা হয়েছে বাস্তব জগত থেকেই।

সিঙ্গার বলেন, যদি কেউ সাইবার স্পেসে সঠিকভাবে পরিচালন দক্ষতা দেখাতে না পারেন তবে কোনোভাবেই আকাশ, জল কিংবা স্থলে তাদের আধিপত্য ধরে রাখতে পারবে না।

এই যুদ্ধের একটা ক্ষুদ্র সংস্করণ ইতোমধ্যে ইউক্রেন, সিরিয়াসহ বেশ কয়েকটি দেশে দেখতে পাওয়া গেছে বলে মনে করেন সিঙ্গার।

তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ যদি বাঁধেই তবে সেখানে বিভিন্ন ডাটার বিষয় গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করা হবে। যা অন্যতম অস্ত্র হিসেবে কাজ করবে বলে বলেন সিঙ্গার।

সম্প্রতি রাশিয়ার একটি সাইবার ক্যাম্পেইনে দেশটির একটি বিদ্যালয়ের নৌ সংক্রান্ত স্নাতক বিভাগের ডিন জেমস জে উয়ার্টস বলেন, এখন স্থল পথের যুদ্ধের অন্যতম কৌশলগত অস্ত্র বলা যায় সাইবার স্পেসের ডাটা।
আর আমেরিকার বেশিরভাগ সেনাবাহিনীর কর্মকর্তারা মনে করেন আসলেই ভবিষ্যৎ যুদ্ধ বন্দুক, গুলিতে হবে না। হবে সাইবার স্পেসে।

বিজনেস ইনসাইডার অবলম্বনে ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/