Maintance

অনলাইন লেনদেন : প্রতিবার আনা যাবে ৫০০০ ডলার

প্রকাশঃ ৭:৫৭ অপরাহ্ন, আগস্ট ৯, ২০১৬ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৯:৩৩ অপরাহ্ন, আগস্ট ৯, ২০১৬

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অনলাইন গেটওয়ের মাধ্যমে বিদেশ থেকে আউটসোর্সিং কাজের অর্থ সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার ডলার পর্যন্ত আনতে পারবেন দেশের ফ্রিল্যান্সররা। আগে এই অর্থ আনার সীমা ছিল দুই হাজার ডলার। নতুন করে তিন হাজার ডলার বাড়ানো হলেও রপ্তানিকারকদের কোনো পূর্বানুমতির প্রয়োজন হবে না।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংক অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে প্রোভাইডারদের মাধ্যমে দেশে রপ্তানি অর্থ আনার পরিমাণ বাড়ানো সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বিভিন্ন ব্যাংকে পাঠিয়েছে।

ফ্রিল্যান্সররা বিভিন্ন দেশে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে ডাটা এন্ট্রি, ডাটা প্রসেসিং, বিজনেস প্রসেসিং, বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিংসহ নানা ধরনের তথ্য প্রযুক্তি সেবা রপ্তানি করে থাকে। আর এসব অনলাইনে কাজের অর্থ দেশে আনা হয় অনলাইন পেেমন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সারদের আয় দেশে আনা-নেওয়ায় সরকার মাসে এ থেকে প্রায় এক লাখ ডলার আয় করে থাকে। অর্থ আনার পরিমাণ বাড়িয়ে সেই আয় আরও বাড়াতে এমন উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

international-credit-cards
পাশের দেশ ভারতে অবশ্য আউটসোর্সিং থেকে একবারে সর্বোচ্চ ১০ হাজার ডলার অনলাইন গেটওয়ের মাধ্যমে নিয়ে আসতে পারে।

আগে আউটসোর্সিং কাজের জন্য যেকোনো পরিশাণ অর্থ আনতেই বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমতির প্রয়োজন হতো। কিন্তু সেটা ২০১১ সালে সংশোধন সি ফর্মের মাধ্যমে ৫০০ ডলার পর্যন্ত আনতে পারতো ফ্রিল্যান্সাররা। তবে সেখানেও বেশ অসুবিধা হওয়ায় নীতিমালা সংশোধন করে সর্বোচ্চ দুই হাজার ডলার করা হয়েছিল।

দেশে আউটসোর্সিং কাজের পরিধি বেড়ে যাওয়ায় এই আয় বেড়েছে। ফলে বাংলাদেশ ব্যাংক নতুন করে নীতিমালায় সংশোধন এনে সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার ডলার আনার এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করলো। তবে যেসব ব্যাংক বৈদেশিক মুদ্রায় এমন লেনদেন করে তাদেরকে এই অর্থ আনার হিসাব প্রতিমাসেই বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে দিতে হবে বলেও শর্ত দিয়েছে।

ইমরান হোসেন মিলন

৩ টি মতামত

  1. সাহিদ হাসান শোভন said:

    ফ্রিলেঞ্চাররা ডাটা এন্ট্রি, ডাটা প্রসেসিং, বিজনেস প্রসেসিং এর কাজই করে??
    হাসালেন… ১ লক্ষ ডলার এর কত %% এই কাজ গুলায় ইঙ্কাম হয়, জানেন??

*

*

Related posts/