Maintance

নতুন সংজ্ঞায় ই-কমার্স, থাকবে না ভ্যাট

প্রকাশঃ ৫:৪৪ অপরাহ্ন, জুন ২৯, ২০১৬ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১০:৫০ পূর্বাহ্ন, জুন ৩০, ২০১৬

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের ই-কমার্সকে খাত হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে এর সংজ্ঞায় পরিবর্তন আনছে সরকার। নতুন এ সংজ্ঞায় অনলাইন কেনাকাটা বা ই-কমার্সকে ভ্যাটমুক্ত রাখা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত

বুধবার বাজেট প্রস্তাবের সংশোধনীতে ই-কমার্সের সংজ্ঞা পরিবর্তন করে ভ্যাটমুক্ত রাখার বিষয়টি অর্থবিলে যুক্ত করে তা সংসদে পাস করা হয়।

বৃহস্পতিবার ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট পাস হবে। ১ জুলাই নতুন অর্থবছরের শুরুতে তা কার্যকর হবে।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সভাপতি শামীম আহসান টেকশহরডটকমকে বলেন, ই-কমার্সের সংজ্ঞা পরিবর্তন করে খাতটিকে স্পেসিফিক করাটা ভাল খবর এবং নতুন সংজ্ঞা অনুযায়ী নির্দিষ্ট খাতটিতেও ভ্যাট না থাকার ঘোষণাকে স্বাগত জানাই।

তবে এ খাতে কর অবকাশ সুবিধা দিয়ে সরকারের প্রতি করপোরেট কর অব্যাহতি দেওয়ার আহবান জানান তিনি।

e-commerce-techshohor

শামীম আহসান বলেন, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান যারা অনলাইন প্লাটফর্মেও পণ্য বিক্রি করছে তাদের অনলাইন অংশটুকু ই-কমার্স বিবেচনা করে ভ্যাট মওকুফ দেয়া হোক। প্রয়োজনে বিষয়টি মনিটরিং করতে বাংলাদেশে কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিস), বুয়েট ও বেসিস মিলে কাজ করবে।

তবে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাবে অর্থ আইনে পূর্বের কর অব্যাহতির আওতায় থাকা ‘ই-কমার্স ও অনলাইন শপিং’কে তুলে নেয়া হয়েছে। খাতটি আগে ২০২৪ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতির মধ্যে ছিল। এ বিষয়ে সংশোধনীতে স্পষ্ট কিছু পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, গত অর্থ-বছরের বাজেট ঘোষণায় ই-কমার্সকে প্রথমবারের মতো সুনির্দিষ্ট করে ভ্যাটের আওতায় আনার ঘোষণা দিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী। সেখানে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ই-কমার্সে মূল্য সংযোজন করের (ভ্যাট) হার ৪ শতাংশ করার প্রস্তাব রাখা হয়েছিলো। পরে সেই ভ্যাট প্রত্যাহার করা হয়।

বেসিসের হিসাবে বর্তমানে প্রতি বছর যে পরিমান ই-কমার্স বা অনলাইন লেনদেন হচ্ছে তা বছরে ১০০ কোটি টাকার বেশি নয়।

আল-অামীন দেওয়ান

আরও পড়ুন: 

*

*

Related posts/