Maintance

আইটি সেবার ফি দেওয়া যাবে ভার্চুয়াল কার্ডে

প্রকাশঃ ৪:১৫ অপরাহ্ন, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৬ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৪:৩৬ অপরাহ্ন, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৬

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ব্যক্তিপর্যায়ে বিভিন্ন আইটি ও আইটি সম্পর্কিত সেবার ফি প্রদানে ভোগান্তি কমাতে চালু হয়েছে ভার্চুয়াল ক্রেডিট কার্ড সেবা। এর মাধ্যমে আইটি প্রফেশনাল, স্টুডেন্ট ও প্রযুক্তির উদ্যোক্তারা আন্তর্জাতিক বাজার থেকে কেনা বিভিন্ন অনলাইন পণ্য ও সেবার মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন।

বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলন করে দেশে প্রথম হিসেবে ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড ভার্চুয়াল ক্রেডিট কার্ডের উদ্বোধন করেছে।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর অনুরোধে সবগুলো ব্যাংককে ভার্চুয়ার ক্রেডিট কার্ড প্রবর্তনের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক এক নির্দেশনা প্রদান করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে ডাচ-বাংলা ব্যাংক সেবাটি চালু করেছে। তবে পর্যায়ক্রমে সবগুলো ব্যাংক সেবাটি চালু করবে বলেও জানানো হয়েছে।

virtual card
বিভিন্ন ধরনের মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন (অ্যাপ) অনলাইন বাজারে ছাড়ার জন্য বিশ্বখ্যাত অ্যাপস্টোরে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থের বিনিময়ে নিবন্ধন করতে হয়। এর বাইরেও অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট নিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কোর্স, বুটক্যাম্প, ডোমেইন কেনার ক্ষেত্রে এই পেমেন্ট প্রয়োজন হয়। এতোদিন পর্যন্ত এগুলো কেনা ও তার অর্থ পরিশোধ করতে ব্যক্তি পর্যায়ে কোনো ধরনের পেমেন্ট সিস্টেম চালু ছিল না।
সংবাদ সম্মেলনে এফবিসিসিআই পরিচালক ও বেসিস সভাপতি শামীম আহসান বলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী ভার্চুয়াল কার্ড পেতে আবেদনকারীকে প্রোগ্রামার, ডেভেলপার বা ফ্রিল্যান্সার হিসেবে বেসিস থেকে অনুমোদন নেওয়া যাবে।

এছাড়াও এই কার্ড পেতে বেসিস বা আইসিটি বিভাগের দেওয়া মোবাইল অ্যাপ,, গেইম বা হ্যাকাথনের সনদ প্রমাণ হিসেবে দেখিয়ে ডাচ-বাংলা ব্যাংকের নির্দিষ্ট আবেদন ফর্মে আবেদন করতে হবে বলেও জানান তিনি।

শামীম আহসান বলেন, আমরা চাই শুধু বেসিসের সদস্য নয়, বরং ব্যক্তিপর্যায়ে সব ডেভেলপাররা যেনো এই সুবিধা নিয়ে কাজ করতে পারেন।

কার্ডটির মাধ্যমে বছরে সর্বোচ্চ ৩০০ ডলার পর্যন্ত পরিশোধ করা যাবে। তবে সুনির্দিষ্ট প্রয়োজনে ও তথ্যপ্রমাণের মাধ্যমে এর বেশিও পরিশোধ করা যাবে। প্রতিটি কার্ডে ব্যাংক খরচ পড়বে ১০০ টাকা।

কার্ড ব্যবহার করে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে (উইন্ডোজ, অ্যানড্রয়েড, আইওএস, ব্ল্যাকবেরি, ফায়ারফক্স) গেইমস, সফটওয়্যার লাইসেন্স, মোবাইল গেইমস অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট, ভেন্ডর সার্টিফিকেশন পরীক্ষার ফি, ডোমেইন নিবন্ধন, হোস্টিং, ক্লাউড সেবা, হ্যাকাথনের অর্থ পরিশোধ করা যাবে।

ভার্চুয়াল কার্ডের উদ্বোধনী সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডাচ-বাংলা ব্যাংকের চেয়ারম্যান সায়েম আহমেদ, এমডি কে. এস. তাবরেজ, বেসিস পরিচালক সানি মো. আশরাফ খান, বেসিস সিনিয়র সহ-সভাপতি রাসেল টি আহমেদসহ ডাচ-বাংলা ব্যাংকের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

Related posts/