বছর সেরা ব্র্যান্ডে প্রযুক্তি জায়ান্টদের জয়জয়াকার

তুসিন আহমেদ,টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর :  প্রযুক্তির জয়গানের বছর ছিল ২০১৩। জীবন সহজ করতে নিত্য নতুন প্রযুক্তি নিয়ে বছরজুড়ে হাজির হয়েছে টেক জায়ান্ট কোম্পানিগুলো। ছোট বড় সব ধরনের প্রযুক্তি পণ্য প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলো নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের পাশাপাশি রকমারি ডিভাইস উপহার দিয়েছে। বিশ্বব্যাপী বিক্রিও হয়েছে বেশ। নতুন নতুন বাজারও তৈরি হয়েছে। ব্যবসায়িক দিক থেকে সফলতাও পেয়েছে কোম্পানিগুলো। তাইতো সেরা ব্র্যান্ডগুলোর তালিকায় প্রযুক্তি খাতের বহুজাতিক কোম্পানিগুলোরি আধিপত্যও ছিল চোখে পড়ার মতো।

বিখ্যাত সাময়িকী ফোবর্স ২০১৩ সালের ব্র্যান্ডগুলোর একটি তালিকা তৈরি করেছে। বাজারে আধিপত্য বজায় রাখার তথ্যের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এগুলোর অবস্থানকেও বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে।

এ তালিকায় সবার ওপরে রয়েছে টেক জায়ান্ট অ্যাপল। বিশ্বের সবচেয়ে দামি ব্রান্ডের তালিকার শীর্ষে অবস্থান করছে। সবচেয়ে মূল্যবান ব্রান্ডের তালিকায় দীর্ঘদিনের “ফার্স্ট বয়” হিসাবে পরিচিত কোকাকোলাকে দীর্ঘ ১৩ পর সরিয়ে এক নম্বরে চলে গেছে অ্যাপল।

গত বছর কোকাকোলা নেমে এসেছে ৩য় স্থানে। আর বছর তিনেক ধরে একই স্থান ধরে রাখা মাইক্রোসফট রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে। গত বছর অ্যাপল ছিল ৮ম স্থানে। অন্যান্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে শীর্ষে স্থান করে নিয়েছে গুগল ও আইবিএমও।

প্রযুক্তি বিশ্বের পরিচিত এসব ব্র্যান্ড নিয়ে সালতামামির এ প্রতিবেদন।

অ্যাপল
শীর্ষে উঠে আসা যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় অবস্থিত টেক জায়ান্ট অ্যাপলের ব্র্যান্ড মূল্য ১০ হাজার ৪৩০ কোটি ডলার। এর আগের বার শীর্ষ তালিকার ৮ম স্থানে থাকার সময় এটির ব্র্যান্ড মূল্য ছিল তিন হাজার ৩০০ কোটি ডলার।

apple_techshohor

অ্যাপল ব্যক্তিগত কম্পিউটার, কম্পিউটার যন্ত্রাংশ ও সফটওয়্যার নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান। শুরুতে এ প্রতিষ্ঠানের নাম ছিলো অ্যাপল কম্পিউটার ইনকর্পোরেশন। প্রতিষ্ঠানটি পারসোনাল কম্পিউটার তৈরি করে বেশ প্রথম দিকে বেশ জনপ্রিয়তা পায়। ম্যাকিনটোস কম্পিউটার তৈরির মাধ্যমে এটি বেশি পরিচিতি লাভ করে। আর সম্প্রতি স্মার্টফোন আইফোন তৈরি করে বিশ্বে সাড়া ফেলে দেয়।

নিজস্ব অপারেটিং সিস্টেম আইওএসের মাধ্যমে তৈরি আইফোনের পাশাপাশি আইপড ও আইপ্যাডও জনপ্রিয়তা পেয়েছে।
প্রতিষ্ঠানটি গান শোনার সফটওয়্যার আইটিউনস এবং মাল্টিমিডিয়া ও ক্রিয়েটিভ সফটওয়্যার আইলাইফ তৈরি করে।

মাইক্রোসফট
দ্বিতীয় সেরা ব্র্যান্ড হিসাবে রয়েছে সফটওয়্যার মাইক্রোসফট। এর ব্র্যান্ড মূল্য ৫ হাজার ৬৭০ কোটি ডলার। গত তিন বছর একই অবস্থান ধরে রেখেছে জনপ্রিয় এ প্রতিষ্ঠানটি।

Microsofto_techshohor

মূলত কম্পিউটার ও প্রযুক্তি ডিভাইসের সফটওয়্যার তৈরি কর থাকে মাইক্রোসফট। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন রাজ্যের রেডমন্ড শহরে এটির প্রধান কার্যালয় অবস্থিত। সবচেয়ে জনপ্রিয় সফটওয়্যারের মধ্যে রয়েছে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম এবং মাইক্রোসফট অফিস। ১৯৭৫ সালের ৪ এপ্রিল এটি প্রতিষ্ঠিত হয়।

কোকাকোলা
গত ১৩ বছর শীর্ষে থাকা কোমল পানীয় প্রস্তুতকারকস কোকাকোলা নেমে এসেছে তৃতীয় স্থানে। গত বছর কোম্পানিটির ব্র্যান্ড মূল্য দাঁড়িয়েছে ভেলু ৫ হাজার ৪৯০ কোটি ডলার।

Coca-Cola-Logo_techshohor
বিশ্বের ২০০টিরও বেশি দেশে কোকা-কোলা বিক্রি হয়। যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের আটলান্টা শহরে এটির প্রধান কার্যালয়। কোকাকোলা সংক্ষেপে কোক (Coke) নামে পরিচিত। এটি ইউরোপ ও আমেরিকায় কোলা ও পপ নামেও পরিচিত।
কোকা-কোলার উৎপত্তি হয়েছিল একটি ওষুধ হিসেবে। ঊনিশ শতকে জন পেম্বারটন নামক একজন রসায়নবিদ কোকা-কোলার ফর্মুলা আবিস্কার করেন। ব্যাবসায়িকভাবে কোকা-কোলাকে পরিবেশন ও বিপণন করেন ব্যবসায়ী আসা গ্রিগস ক্যান্ডেলার। তার বাজারজাতকরণ কৌশলই বিশ শতক থেকে কোকাকোলাকে বিশ্বের কোমল পানীয়ের বাজারে শীর্ষে রেখেছে।

আইবিএম
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান আইবিএম রয়েছে চতুর্থ স্থানে। এর ব্র্যান্ড মূল্য হচ্ছে ৪ হাজার ৮৮০ কোটি ডলার। ১৯১১ সালে আইবিএম প্রতিষ্ঠিত হয়। এর সদর দপ্তর যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে।

ibm-logo_techshohor

আইবিএম হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার প্রস্তুত করে থাকে। এ কোম্পানির গবেষকরা পাঁচটি নোবেল, চারটি টুরিং পুরস্কার, নয়টি ন্যাশনাল মেডেল অব টেকনোলজি এবং পাঁচটি ন্যাশনাল মেডেল অব সায়েন্স লাভ করেছেন।
যুক্তরাষ্ট্রের অন্য যেকোন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের চেয়ে আইবিএম বেশি সংখ্যক প্যাটেন্টের অধিকারী। এ কোম্পানির বিখ্যাত আবিষ্কারগুলোর মধ্যে এটিএম, হার্ড ডিস্ক, ফ্লপি ডিস্ক উল্লেখযোগ্য।

গুগল
শীর্ষ সার্চ ইঞ্জিন গুগল রয়েছে তালিকার ৫ম স্থানে। বিশ্ব সেরা কর্মক্ষেত্র খেতাব পাওয়া গুগলের ব্র্যান্ড মূল্য ৪ হাজার ৭৩০ কোটি ডলার। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালির কোম্পানিটি সার্চ ইঞ্জিন থেকে পরে ইন্টারনেট ও টেক জায়ান্টে পরিণত হয়েছে।

Google-Search-Tricks_techshohor

পরবর্তীতে অনলাইন বিজ্ঞাপন সেবা এবং ক্লাউড কম্পিউটিং এর জন্যও জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এটি ইন্টারনেট ভিত্তিক বেশকিছু সেবা ও পন্য উন্নয়ন এবং হোস্ট করে। সাম্প্রতিক সময়ে গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্মেট ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। আর সর্বশেষ গুগল গ্লাস চমক জাগিয়েছে।

ম্যাকডোনাল্ড
ম্যাকডোনাল্ড হল অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং আন্তর্জাতিক চেইন খাবারের দোকান। এটি রয়েছে ষষ্ঠ অবস্থানে। ব্র্যান্ড মূল্য ৩ হাজার ৯৪০ কোটি ডলার।

জেনারেল ইলেকট্রিক

শীর্ষ এ ইলেকট্রিক পণ্য প্রস্তুতকারক কোম্পানিটি ৩ হাজার ৩২০ কোটি ডলার নিয়ে সপ্তম অবস্থানে আছে। মার্কিন বহুজাতিক কোম্পানিটি প্রযুক্তি, বিনোদন ও সেবা খাতের পণ্য প্রস্তুত করে। নিউ ইয়র্ক থেকে এটি পরিচালিত হয়।

ইন্টেল
প্রযুক্তি খাতের আরেক জায়ান্ট ইন্টেল রয়েছে অষ্টম অবস্থানে। ইনটেলের ব্র্যান্ড মূল্য ৩ হাজার ৯০ কোটি ডলার। এটি বিশ্বের সর্ববৃহৎ সেমিকন্ডাক্টর চিপ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান। এটি মাইক্রো প্রসেসরের এক্স৮৬ সিরিজের আবিষ্কারক। এ প্রসেসর বেশিরভাগ পারসোনাল বা ব্যক্তিগত কম্পিউটারে ব্যবহৃত হয়। ইন্টেল প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল ১৯৬৮ সালের ১৮ জুলাই।

intel-logo_techshohor

কম্পিউটার প্রসেসর তৈরির পাশাপাশি মাদারবোর্ড, চিপসেট, নেটওয়ার্ক ইন্টারফেস কন্ট্রোলার, ইন্ট্রিগ্রেটেড সার্কিট, ফ্ল্যাস মেমোরি, গ্রাফিক্স কার্ড ইত্যাদি প্রস্তুত করে কোম্পানিটি।

স্যামসাং
শীর্ষস্থানীয় ইলেকট্রনিক্স পণ্য প্রস্তুতকারক স্যামসাং ব্র্যান্ড মূল্যের দিক থেকে নবম স্থানে উঠে এসেছে। প্রতিষ্ঠানটির ব্র্যান্ড মূল্য ২ হাজার ৯৫০ কোটি ডলার। দক্ষিণ কোরীয় কোম্পানিটি টিভি, ফ্রিজসহ বিভিন্ন গৃহস্থালী পণ্য তৈরির পাশাপাশি স্মার্টফোন তৈরি করে সাম্প্রতিক সময়ে আবারও শীর্ষে উঠে এসেছে।

samsung-logo_techshohor

লুইস ভুইটন
বিলাস বহুল পণ্যের প্রতিষ্ঠান লুইস ভুইটন তালিকার ১০ স্থানে উঠে এসেছে। এর ব্র্যান্ড মূল্য ২ হাজার ৮৪০ কোটি ডলার।

ফোর্বস অবলম্বনে

Related posts

*

*

Top