অ্যাপসের জনপ্রিয়তার বছর

তুসিন আহমেদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রযুক্তিময় বছর ২০১৩ সালে ছিল অ্যাপসের সমাহার। নিত্য নতুন অ্যাপসের দেখা মিলেছে বছরজুড়ে। প্রতিযোগিতামূলক অ্যাপসের বাজার ধরে রাখার চেষ্টা ছিল তিন জায়ান্ট গুগল, অ্যাপল ও মাইক্রোসফটের। এতে সামনে আসে অসাধারণ অনেক অ্যাপস। ২০১৩ সালের সেরা কিছু অ্যাপস নিয়ে এবারের এ প্রতিবেদন।

ক্যান্ডি ক্রাশ সাগা (Candy crush saga)
হালের আমলে সবচেয়ে বেশি খেলা হয়েছে এ গেইমটি। আইফোন এবং আইপ্যাড ডিভাইসের উপযোগী ক্যান্ডি ক্রাশ সাগা অ্যাপটি সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড করা হয়েছে। এটি আইওএস ৪.৩ থেকে সর্বশেষ সংস্করণে চলে। তবে আইফোন ফাইভের জন্য এটি বিশেষভাবে তৈরি করা হয়েছে। অ্যাপটির সাইজ ৩৯.৬ মেগাবাইট। এটির রেটিং ৪ লাখ ৬৫ হাজার ৮৮০। আইওএসের জন্য বিনামুল্যে ক্যান্ডি ক্যাস সাগা অ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে।

candy crush saga-TechShohor

আইওসের পাশাপাশি অ্যান্ড্রয়েডের জন্যও রয়েছে জনপ্রিয় এই অ্যাপসটি। ডাউনলোড করা যাবে এখান থেকে।

দুলিনগো(Duolingo)
এটি একটি ভাষা শেখার অ্যাপ। অ্যাপটির উচ্চ কাস্টোমাইজ্যাবল শিক্ষা কার্যক্রমের মাধ্যমে শেখা যাবে পছন্দের ভাষা। শুধু তাই নয়, এই অ্যাপ ভাষা শিক্ষার লক্ষ্যে পৌছানোর পাশাপাশি আপনাকে পুরস্কৃতও করবে। আপাতত এই অ্যাপটি দিয়ে ইংরেজি, স্প্যানিস, ফান্স, জার্মানি, ইতালীয় এবং পর্তুগীজ এই ছয়টি ভাষা শেখা যাবে। গেইমটি বিনামুল্যে ডাউনলোড করা যাবে।

টেম্পল রান টু (Temple Run 2)
গেইমারদের কাছে টেম্পল রান টু গেইমটিও বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। টেম্পল রান ওয়ান গেইমটির জনপ্রিয়তা দেখে টেম্পল রান টু বের করা হয়। আইওএসের জন্য গেইমটির সাইজ ৫২.৭ মেগাবাইট। এটি আইপ্যাড, আইফোন, আইপডের জন্য তৈরি করা হয়েছে। এর রেটিং ১ লাখ ৯০ হাজার ৯১।

temple_run2-TechShohor

অ্যাপলের অ্যাপস্টোর থেকে বিনামূল্যে ট্যাম্পল রান টু গেইমটি ডাউনলোড করা যাবে। গেইমটির রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড সংস্করণ। বিনামুল্য এটি ডাউনলোড করা যাবে।

পিক্সলর এক্সপ্রেস(Pixlr Express)
এটি একটি ফটো এডিটিং অ্যাপ। ফিল্টারিং সুবিধার পাশাপাশি এর মাধ্যমে কালার নিয়ন্ত্রণ করা যায়। ব্লার ইমেজ তৈরি করা, লেয়ারের মাধ্যমে এডিটিং সুবিধা তো আছেইই। এছাড়া স্টিকার হিসেবে একটি ইমেজকে আরেকটার উপর ব্যবহার করা যাবে। মাত্র ৭.২ মেগাবাইটের এই চমৎকার অ্যাপসটি বিনামুল্যে এখান থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

গুগল ম্যাপ (Google Maps)
প্রযুক্তি জায়ান্ট গুগলের সেবাগুলোর মধ্যে অন্যতম গুগল ম্যাপ। সহজে কোনো স্থানের ম্যাপ খুঁজে পেতে এর বিকল্প নেই বললেই চলে! এটি ব্যবহারকারীদের যাতায়াতে অনেক সহায়তা করে। প্রায় ২’শ দেশের সর্ম্পূন ম্যাপ রয়েছে অ্যাপটিতে। এটির সাইজ ১১ মেগাবাইট। অ্যাপল অ্যাপ স্টোরে রেটিং ৭২ হাজার ৮৯৯। অ্যান্ড্রয়েডের গুগল প্লে স্টোরে রেটিং ৩১ লাখ ১৮ হাজার নয়’শ সাত। বিনামুল্যে  অ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে অ্যাপলের অ্যাপ স্টোর থেকে। অ্যান্ড্রয়েডের জন্য পাওয়া যাবে গুগল প্লে স্টোরে।

ফটোর (fotor)
ফটো এডিটিং টুলস হিসেবে অ্যাডোব ফটোশপ ব্যবহার করেন অনেকেই। ঠিক তেমনি একটি ছবি এডিটিং টুলস হল ফটোর। ছবিকে মুহূর্তেই এবং সহজেই নতুন লুক দেওয়া যাবে অসাধারণ উইন্ডোজ ৮ এই অ্যাপ্লিকেশন দিয়ে। ফটোরের সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয় এটি সহজবোধ্য। অ্যাপটি ব্যবহার করে খুব সহজেই ছবি এডিট করা যাবে। এতে ছবি এডিটের বেসিক টুলসের পাশাপাশি অনেক এক্সট্রা ফিচার যুক্ত করা হয়েছে। সাধারণ ব্রাইটনেস, স্যাচুরেশন, কন্ট্রাস্ট, টেম্প, শার্পেন টুলসের পাশাপাশি সিঙ্গেল ট্যাপ এনহান্সমেন্ট  ছবির মান বহুগুণে বাড়িয়ে তুলবে। এছাড়া ক্রপ অপশনতো আছেই।

fotor-02-100034431-orig

ফটোর শুধুমাত্র উইন্ডোজ ৮ এই নয় উইন্ডোজ ফোনঅ্যান্ড্রয়েডের জন্যও এর আলাদা সংস্করণ রয়েছে। ফটোরকে উইন্ডোজ ফোনের অন্যতম সেরা ফটো এডিটিং অ্যাপস হিসেবে মনে করা হয়। উইন্ডোজ ৮ এ উইন্ডোজ স্টোর অ্যাপস ওপেন করে ‘Fotor’ লিখে সার্চ করলে পাওয়া যাবে অ্যাপটি।

স্ন্যাপচ্যাট(Snapchat)
ইদানিং ছবি শেয়ারের জন্য জনপ্রিয় হয়ে উঠছে স্ন্যাপচ্যাট। স্নাপচ্যাটের ব্যবহাকারীর সংখ্যা দিন দিন দ্রুতগতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ মাধ্যমটি ব্যবহার করে ছবি শেয়ারের জন্য অ্যাপল স্ন্যাপচ্যাট নামে অ্যাপ তৈরি করেছে। প্রতিদিন অ্যাপটি দিয়ে  ৪০ কোটি ছবি শেয়ার হয়। অ্যাপটির সাইজ ৬.৭ মেগাবইট। রেটিং ৪০ হাজার ৯২৫।

Snapchat-techshohor

বিনামুল্যে অ্যাপলের অ্যাপ স্টোর থেকে স্ন্যাপচ্যাট অ্যাপটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে আইফোন ও আইপ্যাডে। অ্যান্ড্রয়েডের জন্যও এখান থাকে ডাউনলোড করা যাবে।

ইনস্টাগ্রাম(Instagram)
স্মার্টফোন ফটো শেয়ারিং অ্যাপ ইনস্টাগ্রাম। অ্যান্ড্রয়েড, আইওএস এবং উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে এর জনপ্রিয়তা অনেক। ছবির পাশাপাশি বর্তমানে ভিডিও শেয়ার করার ব্যবস্থা যুক্ত করা হয়েছে। অ্যাপটি ব্যবহার করে বন্ধুর কাছে ছবি পাঠানো যাবে। অ্যাপলের অ্যাপ স্টোরে অ্যাপটির সাইজ ১৪ মেগাবাইট। রেটিং ১৫ লাখ ৮০ হাজার ৪৭৬।

আইওএসের জন্য বিনামুল্যে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে । অ্যান্ড্রয়েডের জন্য এই লিংক থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

এভারনোট (Evernote)
২০১৩ সালের আরেকটি জনপ্রিয় অ্যাপ এভারনোট। এটি মূলত একটি আধুনিক নোটপ্যাড। এটি শুধু নোট লিখে মনে রাখতেই সাহায্য করে না, বরং এর মাধ্যমে ছবি তোলা যাবে, অডিও রেকর্ডিং এবং সেটিতে ট্যাগ করা যাবে। যার ফলে পরবর্তীতে কনটেন্টকে সার্চ করে বের করতে সুবিধা হয়।  অ্যান্ড্রয়েডের জন্য এই লিংক থেকে ডাউনলোড করা যাবে।

আইবুক (Ibook)
বইপ্রেমীদের জন্য এটি চমৎকার একটি অ্যাপ। আইবুক অ্যাপের মাধ্যমে হাজারো বই ডাউনলোড করে পড়া যাবে। এতে রয়েছে ই-বুক স্টোর। এ স্টোর থেকে পছন্দমত ই-বুক ডাউনলোড করে পড়া যাবে।

অ্যাপটি সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হয়েছে আইপ্যাডের জন্য। অ্যাপটির সাইজ ৩১ মেগাবাইট এবং রেটিং ৯২ হাজার ৬০৭। বিনামুল্যে আইবুক অ্যাপটি ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে আইওএসচালিত ডিভাইসে।

Related posts

*

*

Top