বিজয় একটি নতুন ধারণা-উদ্ভাবন : তথ্যমন্ত্রী

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : তথ্য ও সংস্কৃতিমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বিজয় একটি কীবোর্ড বা সফটওয়্যার নয়, এটি একটি নতুন ধারণা ও একটি উদ্ভাবন। কম্পিউটারে বাংলা লেখার জন্য বিজয়-এর আগে ও পরে অনেক বাংলা সফটওয়্যার প্রচলিত হলেও এটি তার নিজস্ব মহিমায় উদ্ভাসিত হয়ে আছে। এখনও পেশাদারী কাজে শুদ্ধভাবে বাংলা লেখার জন্য এটি সেরা সফটওয়্যার হিসেবে সার্বজনীনভাবে স্বীকৃত।

শুক্রবার বিজয় বাংলা কি-বোর্ড ও সফটওয়্যারের রজত জয়ন্তী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

BIJF Bijoy Bangla-techshohor

জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে আয়োজিত এ সভার আয়োজক ছিল বাংলাদেশ আইসিটি জার্নালিস্ট ফোরাম (বিআইজেএফ)।

সভায় জানানো হয়, ১৯৮৮ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় বাংলা কি-বোর্ড ও সফটওয়্যারের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। ফলে এ বছরের ১৬ ডিসেম্বর এর ২৫ বছর পূর্তী হয়। রজত জয়ন্তীর এই দিনে বক্তারা বিজয় বাংলা কি-বোর্ড ও সফটওয়্যারের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করেন।

এ সময় জানানো হয়, ১৯৮৮ সালে যে বিজয় কি-বোর্ড ও সফটওয়্যার শুধুমাত্র মেকিন্টোস কম্পিউটারের জন্য শুরু হয়েছিলো, আজ তা বাংলাদেশ, পঞ্চিমবঙ্গ, আসাম, ত্রিপুরাসহ বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় অবস্থিত বাংলা ভাষাভাষি মানুষের কম্পিউটারে বাংলা লেখার সর্বাধিক জনপ্রিয় সফটওয়্যার হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে আর কোন একক সফটওয়্যার এতো বেশি মানুষ ব্যবহার করে না।

বিআইজেএফ সভাপতি মুহাম্মদ খান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় গ্রন্থ কেন্দ্রের পরিচারক কবি অসীম সাহা এবং গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর মনসুর মুসা।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বিজয় বাংলা কি-বোর্ড ও সফটওয়্যারের প্রবক্তা মোস্তাফা জব্বার, ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশের (আইএসপিএবি) সভাপতি আক্তারুজ্জামান মঞ্জু, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস) সহ-সভাপতি মোঃ মইনুল ইসলাম, বিসিএস কম্পিউটার সিটির সভাপতি মজিবুর রহমান স্বপন, বাংলাদেশ ওমেন ইন আইটি’র (বিডাব্লিউআইটি) সভানেত্রী লুনা শামসুদ্দোহা, জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সভাপতি ওসমান গনি, বিআইজেএফ’র নির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন এবং মোস্তাফা জব্বারের সহপাঠি ও তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোহাম্মদ জালাল।

মোস্তাফা জব্বার তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘সকলেরই জানার আগ্রহ বিজয় যখন রজত জয়ন্তী পূর্ণ করছে তখন এর অবস্থাটি কি? বিজয়ের এই সময় কালের সবচেয়ে বড় অর্জন হচ্ছে এটি এখন ম্যাক ওএস, উইন্ডোজ, লিনাক্স এবং অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে কাজ করে। আমার জানা মতে দুনিয়ার আর কোনো বাংলা সফটওয়্যার এভাবে চারটি প্রধান অপারেটিং সিস্টেমে চলে না। এই চারটি অপারেটিং সিস্টেমেই বিজয় কীবোর্ড কাজ করে। ম্যাক ওএস, উইন্ডোজ ও লিনাক্সে বিজয় আসকি এবং ইউনিকোড দুটি পদ্ধতিতেই কাজ করে’।

তিনি বলেন, ‘আমি বিজয়কে এমন অবস্থানে নিয়ে যেতে চাই যাতে দেশে প্রচলিত সমস্ত ডিভাইসেই এটি চলে। আমরা এখন পর্যন্ত ডেস্কটপ লেভেলে আছি। কিছুদিন আগে অ্যান্ড্রয়েডে বিজয় ব্যবহার শুরু হয়েছে। সকল প্লাটফর্মে বিজয় ব্যবহার করা এখন আমাদের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ।’

অনুষ্ঠানের শেষে বিআইজেএফ’র পক্ষ থেকে মোস্তাফা জব্বারকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

Related posts

*

*

Top