Maintance

তৃতীয় সম্মেলন শুরু : তথ্যপ্রযুক্তি পেশাজীবীদের জন্য তহবিল করবে বিডিনগ

প্রকাশঃ ১২:১০ অপরাহ্ন, মে ১৯, ২০১৫ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১২:১৪ অপরাহ্ন, মে ১৯, ২০১৫

ইমরান হোসেন মিলন, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইন্টারনেট ব্যবহারকে আবারও মৌলিক অধিকার হিসেবে সংবিধানে স্বীকৃতি দেওয়ার কথা বলেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

বাংলাদেশ নেটওয়ার্ক অপারেটরস গ্রুপের (বিডিনগ) তৃতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
ইনু বলেন, ইন্টারনেটকে সবার জন্য সম-অধিকার হিসেবে প্রতিষ্ঠার কোনো বিকল্প নেই।

রাজধানীর গুলশানের একটি হোটেলে সোমবার সন্ধ্যায় বিডিনগের তৃতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

bdnog-techshohor

রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে ইনে ১৯ মে থেকে ২৩ মে পাঁচ দিনের এ সম্মেলনে টেলিকম ও আইএসপি প্রকৌশলীদের জন্য অ্যাডভান্সড রাউটিং এন্ড বিজিপি, আইপি টেলিফোনি, লিনাক্স সিস্টেম এডমিন এন্ড নেটওয়ার্কসহ বিভিন্ন বিষয়ে কারিগরী কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে।

অনুষ্ঠানে ইনু আরও বলেন, দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে বৈষম্য কমাতে ও সাইবার নিরাপত্তা দিতে প্রকৌশলীদেরই এগিয়ে আসতে হবে। দেশে এ কাজ শুরু করায় বিডিনগের প্রশংসা করেন তিনি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও বাংলাদেশ ইন্টারনেট এক্সচেঞ্জের (বিডিআইএস) চেয়ারম্যান অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী বলেন, দেশে এখন অনেক ইন্টারনেট পেশাজীবী দরকার। বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে এর বিকল্প নেই। বিডিনগ এ ধরনের সম্মেলনের মাধ্যমে প্রকৌশলীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে আরও যুগোপযুগী হতে সহায়তা করে।

স্ট্যাবিলিটি অ্যান্ড রিসিলিয়েন্স সভাপতি জন ক্রেইন বাংলাদেশে ইন্টারনেটের মাধ্যমে যোগাযোগ ব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তনকে স্বাগত জানান। তিনি প্রকৌশলীদের মধ্যে ইন্টারনেটের সঠিক ব্যবহার বাড়াতে বিডিনগের এ উদ্যোগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে উল্লেখ করেন।

এ ক্ষেত্রে সুশীল সমাজ এবং কারিগরি কমিউনিটিকে এক সঙ্গে কাজ করার কথা বলেন ক্রেইন।

স্বাগত বক্তব্যে বিডিনগের বোর্ড অব ট্রাস্ট্রির চেয়ারম্যান সুমন আহমেদ সাব্বির বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্মেলনে তথ্যপ্রযুক্তি পেশাজীবী ও প্রকৌশলদের অংশগ্রহণের জন্য আর্থিকভাবে সহায়তা প্রদানে বিডিনগ থেকে একটি অর্থ তহবিল গঠনের চেষ্টা চলছে।

এতে করে ইন্টারনেট ইঞ্জিনিয়ারিং টাস্ক ফোর্স (আইইটিএফ), এশিয়া-প্যাসিফিক রিজিওনাল ইন্টারনেট কনফারেন্স অন অপারেশনাল টেকনোলজিস (অ্যাপ্রিকট) ও এশিয়া প্যাসিফিক নেটওয়ার্ক ইনফরমেশন সেন্টারের (এপনিক) মতো সংগঠনের সঙ্গে কাজ করা সহজ হবে বলে জানান সাব্বির।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ইন্টারনেট করপোরেশন ফর অ্যাসাইনডস নেমস অ্যান্ড নাম্বারসের (আইক্যান) হেড অব সিকিউরিটি ও আইএসপি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (আইএসপিএবি) সভাপতি এম এ হাকিম, বিডিনগের সভাপতি নুরুল ইসলাম রোমান ও সাধারণ সম্পাদক ফকরুল আলম।

বিডিনগের আগের দুটি সম্মেলন গত বছরের মে তে ঢাকা ও নভেম্বরে কক্সবাজারে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এ ছাড়া চতুর্থ সম্মেলন চলতি বছরের নভেম্বরে সিলেটে করার পরিকল্পনা আছে বলেও জানান বিডিনগ সভাপতি।

*

*

Related posts/