ডিজিটাল প্রচারণায় বিসিএস প্রার্থীরা

তুহিন মাহমুদ, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ডিজিটাল প্রচারণায় নেমেছেন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির (বিসিএস) নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী প্রার্থীরা। চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে প্রার্থীদের সঙ্গে সরাসরি দেখা করার পরিবর্তে ই-মেইল, মোবাইল ফোন কল ও এসএমএসকেই বেছে নিয়েছেন তারা। অনেকে নিজস্ব ওয়েবসাইটের মাধ্যমেও প্রচারণা চালাচ্ছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নির্বাচনের আগে আঞ্চলিক কমিটিগুলোর সদস্যদের সাথে দেখা করতে ঢাকার বাইরে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল প্রার্থীদের। তবে দেশজুড়ে অবরোধ ও সহিংসতার মধ্যে সেটি করা সম্ভব হচ্ছে না। এ কারণে তাদের প্রচারণা এখন ডিজিটাল নির্ভর হয়ে পড়েছে।

BCS-election-banner-TechShohor

অন্যান্য সংগঠনের নির্বাচনের মতো বিসিএস নির্বাচনের জন্য এখন পর্যন্ত কোনো ধরনের পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন, লিফলেট ব্যবহার করেননি প্রার্থীরা। প্রচলিত পদ্ধতির বাইরে তারা অনলাইন ও ফোনের মাধ্যমেই ভোটারদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন।

বিসিএসের আগামী ২০১৪-১৫ সালের দুই বছর মেয়াদী কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ১৪ ডিসেম্বর। নির্বাচনে সাত পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন ১৫ প্রার্থী। এবার নির্বাচনে মোট ভোটার ৭০৮ জন। এর মধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য অংশ আঞ্চলিক কমিটির সদস্য।

নির্বাচনে কম্পিউটার সোর্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এএইচএম মাহফুজুল আরিফের নেতৃত্বে বেটার বিজনেস অ্যান্ড বিসিএস (বিবিএনবি) নামে একটি প্যানেল গঠন করা হয়েছে। এ প্যানেলের নির্বাচনী প্রচারণা চলছে নিজস্ব ওয়েবসাইটের (http://www.betterbusinessandbcs.net) মাধ্যমে। এতে প্রার্থীদের পরিচিতি ও নির্বাচনী ম্যানিফেস্টো দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার থেকে বিবিএনবি সকল ভোটারদের ই-মেইলে নির্বাচনী ম্যানিফেস্টো পাঠাবে। নির্বাচনের আগে অবরোধ থামলে সকল শাখা কমিটি ও ভোটারদের কাছে যাবেন প্রার্থীরা। এ ছাড়া আগামী ৮ অথবা ১১ ডিসেম্বর এ প্যানেলের প্রার্থী পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হবে।

প্রচারণা প্রসঙ্গে প্যানেল প্রার্থী হাইটেক প্রফেশনালের প্রোপাইটর মুজিবুর রহমান স্বপন বলেন, ‘দেশের এ পরিস্থিতিতে রাজধানীর ভোটারদের কাছে যাওয়া সম্ভব হলেও বাইরে শাখাগুলো ও ভোটারদের কাছে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। তবে মোবাইলে নিয়মিত তাদের সাথে যোগাযোগ করা হচ্ছে।’

প্যানেলের বাইরে ব্যক্তিগতভাবে নির্বাচন করছেন ৮ জন। নির্বাচনকে সামনে রেখে এর মধ্যে কেউ কেউ সরাসরি ভোটারদের কাছে গিয়েছেন। তবে সবাই মোবাইল কল ও এসএমএস এর মাধ্যমে যোগোযোগ করছেন।

স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী জয়েন্ট অ্যাসোসিয়েশন অব অ্যাডভান্স নেটওয়ার্কের (জান) সঞ্জয় কুমার সাহা বলেন, অবরোধের আগে খুলনা ও কুমিল্লাতে যাওয়া সম্ভব হলেও অন্য শাখাগুলোতে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। এখন ঢাকার ভোটারদের সাথে যোগাযোগ চলছে। এ কারণে মেইলে নির্বাচনী ম্যানিফেস্টো পাঠিয়েছি সবাইকে। আপাতভাবে এভাবেই প্রচারণা চলছে।

সংশ্লিষ্টদের মতে, প্রচলিত ধরনের প্রচারণা না গিয়ে দেশের তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর এ বৃহৎ সংগঠনের সকল কার্যক্রম ডিজিটাল হওয়া দরকার।

Related posts

*

*

Top