Maintance

আয়কে করমুক্ত রাখতে এনবিআরে জিইইউজিপির স্মারকলিপি

প্রকাশঃ ৬:৫২ অপরাহ্ন, এপ্রিল ১৬, ২০১৮ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৬:৫৩ অপরাহ্ন, এপ্রিল ১৬, ২০১৮

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : কর্মীদের আয়কে আগামী বাজেটে করমুক্ত রাখার দাবি জানিয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে (এনবিআর) একটি স্মারকলিপি পাঠিয়েছে ‘জেনারেল এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন গ্রামীণফোন’ (জিইইউজিপি)।

সোমবার রাজস্ব বোর্ডের পাশাপাশি স্মারকলিপিটির কপি পাঠানো হয় অর্থমন্ত্রী ও অর্থপ্রতিমন্ত্রী বরাবরও।

স্মারকলিপিতে জিইইউজিপি পাঁচটি দাবি জানায়। দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে, ওয়ার্কারস প্রফিট পার্টিসিপেশন ফান্ডের (ডাব্লুপিপিএফ) ওপর থেকে সকল ধরনের কর প্রত্যাহার করা।

দেশের লাভজনক কোম্পানিগুলোর ডাব্লুপিপিএফ এর অর্থ কর্মীদের মধ্যে বন্টন নিশ্চিত করা।

বাংলাদেশে ভ্রমণ ভিসায় পর্যটক হিসেবে প্রবেশ করে কর্মরত বিদেশী নাগরিকদের চিহ্নিত করে আইন মেনে তাদের কাছ থেকে কর আদায় নিশ্চিত করা।

Symphony 2018

প্রতিবেশী দেশগুলোর মতো যে কোনো লাভজনক কোম্পানির নিট লভ্যাংশের একটি নির্দিষ্ট হার দেশের মানব সম্পদ উন্নয়নে বিনিয়োগে বাধ্যবাধকতা আরোপ করা এবং করের বোঝা কমাতে নিম্ন, নিম্ন-মধ্য, মধ্য ও উচ্চ-মধ্য আয়ের বেসরকারী চাকরিজীবীদের করমুক্ত আয়ের সীমা বৃদ্ধি করা।

gp-house-techshohor

এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠনটি জানায়, ২০১০ সালের অক্টোবর মাসে একটি গেজেট নোটিফিকেশনে বেসরকারি টেলিকম খাতকে ’শিল্প’ ঘোষণা করা হয়। এর মাধ্যমে শ্রম আইনের আলোকে ডাব্লুপিপিএফ বাধ্যকর করে।

এমতাবস্থায় গেজেটটিকে চ্যালেঞ্জ করে গ্রামীণফোন ২০১১ সালে আদালতে একটি রিট মামলা করে, যা এখনো বিচারাধীন।

গ্রামীণফোন লিমিটেড ২০১০ থেকে ২০১২ সালের ডাব্লিুপিপিএফ-এর মূল টাকা ২০১৫ সালের প্রথম দিকে সাধারণ কর্মীদের দিতে বাধ্য হয় এবং পরে ২০১৩ সালে সরকার ২০০৬ সালের শ্রম আইনে সংশোধনীর মাধ্যমে ডাব্লিুপিপিএফ-এর আওতা শুধুমাত্র শ্রমিকের পরিবর্তে কম্পানিতে কর্মরত সকল বেনিফিশিয়ারিতে বৃদ্ধি করে। তখন থেকে কোম্পানি শ্রমিকের পরিবর্তে বেনিফিসিয়ারি হিসেবে এই অর্থ প্রদান করা শুরু করে।

আনিকা জীনাত

*

*